ঢাকা, মঙ্গলবার, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ মে ২০২২, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩

শিক্ষা

পাবিপ্রবির গণিতের সহকারী রেজিস্ট্রারের নামে মামলা প্রত্যাহার দাবি 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৭, ২০২২
পাবিপ্রবির গণিতের সহকারী রেজিস্ট্রারের নামে মামলা প্রত্যাহার দাবি  মানববন্ধন।

পাবনা: পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও গণিত বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার মো. হারুনর রশিদ ডনের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরতদের পরিবারের সদস্যরা।  

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুরে ক্যাম্পাসে মূল প্রশাসনিক ভবনের সামনে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এ মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা।

সম্প্রতি পাবনা সদরের ভাড়ারা ইউনিয়নে নির্বাচন কেন্দ্রিক সংঘর্ষে এক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী খুন হন। ওই ইউনিয়নের নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলেন সহকারী রেজিস্ট্রার মো. হারুনর রশিদ ডনের বড় ভাই মো. আবু সাঈদ খান। রাজনৈতিক পরিবারের সদস্য হওয়ার কারণে তাকে মিথ্যা হত্যা মামলার আসামি করেছে প্রতিপক্ষ। এই ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানবন্ধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষকরা।

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স অ্যাসোসিয়শনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল্লাহ আল স্বপনের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স ফেডারেশনের মহাসচিব মীর মোরশেদুর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব রফিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মফিদুল ইসলাম মজনু, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সোহাগ হোসেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. হারুনার-রশিদ, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের ডিন প্রফেসর ড. কামরুজ্জামান, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান, সহকারী রেজিস্ট্রার জহুরুল ইসলাম প্রিন্স, সেকশন অফিসার অলিউল্লাহ, বিশ্ববিদ্যালয়ে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদুল ইসলাম বাবু, কর্মচারী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেনসহ আরও অনেকে।  

মানববন্ধন পরিচালনা করেন বাংলাদেশ আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স ফেডারেশনের যুগ্ম মহাসচিব মো. রফিকুল ইসলাম রফিক।

এসময় বক্তারা বলেন, কোনো রাজনৈতিক কারণে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে একজন কর্মকর্তার নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করা যায় না। ওই ঘটনার দিনে তিনি এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থান করছিলেন। আজকে এই ধরনের মিথ্যা মামলার বিরুদ্ধে যদি প্রশাসনিকভাবে বা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা গ্রহণ না করে তা হলে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। আজ ডনের নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে অন্য সময় আমাদের পরিবারের সঙ্গে কোনো ঘটনা হলে আমাদের নামে মামলা দিয়ে হয়রানি করা হবে। তাই পুলিশ প্রশাসনসহ স্থানীয় রাজনৈতিক ব্যক্তিদের বিষয়টি তদন্ত করে তাকে এই মিথ্যা মামলা থেকে অবিলম্বে অব্যাহতি দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজে গতি ফিরিয়ে আনতে সহযোগিতা করবেন। যদি ডনের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার না করে তাকে আটক রাখা হয় তা হলে বাংলাদেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় এক সঙ্গে আন্দোলনে নামবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময়: ২১২৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৭, ২০২২
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa