ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

শিক্ষা

ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি চক্রের মূলহোতা রাবি ছাত্রলীগ নেতা তন্ময়

রাবি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৫৭ ঘণ্টা, জুলাই ২৮, ২০২২
ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি চক্রের মূলহোতা রাবি ছাত্রলীগ নেতা তন্ময়

রাবি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালেয়ের (রাবি) ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি দেওয়ার অপরাধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ চারজনকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত৷ 

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) ‘এ’ ইউনিটের পরীক্ষা চলাকালে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়৷

এদিকে গ্রেফতার হওয়া বায়েজিদ খান নামের এক প্রক্সিদাতাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে বেরিয়ে আসে জালিয়াতি চক্রের মূলহোতার নাম৷ তার ভাষ্যমতে, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুশফিক তাহমিদ তন্ময় ‘প্রক্সি’ দেওয়ার জন্য ‘এক্সপার্ট’ হিসেবে তাদেরকে ভাড়া করে আনেন।

জিজ্ঞাসাবাদ করার সময় করা এক মিনিটের একটা ভিডিও বাংলানিউজের কাছে সংরক্ষিত রয়েছে।

মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর দপ্তরে গ্রেফতার হওয়া প্রক্সিদাতাদের জিজ্ঞাসাবাদের সময় ভিডিওটি করা হয়।

ওই ভিডিওতে দেখা যায়, তাকে জিজ্ঞাসা করা হচ্ছে, কার নির্দেশে তিনি প্রক্সি দিতে এসেছেন। তখন তন্ময়ের নাম বলছেন।  

জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে তিনি আরও জানান, প্রক্সি দিতে সকালে ক্যাম্পাসে এসেছেন। প্রক্সি দেওয়ার আগে তিনি তার ব্যক্তিগত ফোন তন্ময়ের কাছে জমা রেখেছিলেন। তন্ময় শাহমখ্দুম হলের দোতলায় থাকেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আসাবুল হক বলেন, প্রক্সি জালিয়াতিতে ধরা পড়া বায়েজিদ একেক সময় একেকজনের নাম বলেছেন। এতে একাধিক ব্যক্তির নাম এসেছে। সেখানে মুশফিক তাহমিদ তন্ময়ের নামও বলেছেন। এটা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তদন্ত করে দেখবে।  

এতে প্রক্টরিয়াল বডি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সহযোগিতা করবেন বলেও জানান তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মুশফিক তাহমিদ তন্ময় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। তিনি শাহ মখ্দুম হলের দোতলায় থাকেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের ২০১৪-১৫ সেশনের শিক্ষার্থী তিনি। এছাড়া প্রক্সিদাতা বায়েজিদ খান রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের একই বিভাগের একই সেশনের শিক্ষার্থী। এর আগেও তার বিরুদ্ধে ভর্তি বাণিজ্য, সিট বাণিজ্য, মাদক ব্যবসা এবং সরকারি চাকরিতে নিয়োগ বাণিজ্যের সঙ্গেও জড়িত বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে জানতে ছাত্রলীগ নেতা মুশফিক তাহমিদ তন্ময়কে একাধিকবার ফোন করা হলে তার মোবাইলফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, আমরা বিষয়টি শুনেছি৷ এ নিয়ে কেন্দ্রীয় কমিটি ও আমার সভাপতির সঙ্গে কথা বলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫৬ ঘণ্টা, জুলাই ২৮, ২০২২
এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa