ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

শিক্ষা

জবিতে পরীক্ষা দিয়েছেন ভিন্ন কেন্দ্রের ভর্তিচ্ছুরাও

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩৪ ঘণ্টা, জুলাই ৩০, ২০২২
জবিতে পরীক্ষা দিয়েছেন ভিন্ন কেন্দ্রের ভর্তিচ্ছুরাও সংগৃহীত ছবি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি): দেশের ২২টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা। শনিবার (৩০ জুলাই) দুপুর ১২টা থেকে দেশের অন্যান্য কেন্দ্রের মতো জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসেও এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

এদিন, এ কেন্দ্রে পরীক্ষা দেন ভিন্ন কেন্দ্রের শিক্ষার্থীরাও।

জানা গেছে, ভুল করে নিজেদের নির্ধারিত কেন্দ্রে না গিয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে চলে আসেন ৮০ শিক্ষার্থী। মানবিক দিক বিবেচনায় তাদের পরীক্ষা এ কেন্দ্রে নেওয়া হয়।

বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত 'ক' ইউনিটের পরীক্ষা গ্রহণে সার্বিক শৃঙ্খলা রক্ষায় তৎপর ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোক্টরিয়াল বডি। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও আশপাশে মোতায়েন ছিল পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ। বিএনসিসি ও রোভার স্কাউটসহ অন্যান্য স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোও পরীক্ষার্থীদের সহায়তায় সচেষ্ট ছিল বলে জানা গেছে।

দুপুর ১২টায় পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও সকাল ৯টা থেকে ভর্তিচ্ছুরা জগন্নাথ ক্যাম্পাসে জড়ো হতে থাকেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সবগুলো গেটসহ পোগোজ ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের গেট দিয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে প্রবেশ করানো হয়। প্রবেশ পথগুলোর পাশেই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোর সহায়তা ডেস্ক ছিল। যেখান থেকে ভর্তিচ্ছুরা পরীক্ষা রুম ও অন্যান্য বিষয় সম্পর্কে জেনে নেন।

পরীক্ষা গ্রহণে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণের পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যানজট নিরসনেও ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়। জানা গেছে, পরীক্ষা ঘিরে পুরান ঢাকার যানজট নিরসনে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে চিঠি দেওয়া হয়। কিন্তু পুলিশের পক্ষ থেকে তেমন কোনো কার্যক্রম চোখে পড়েনি। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের সামনে, আশপাশের এলাকায় যানজট ছিল। এতে ভর্তিচ্ছুদের কেন্দ্রে পৌঁছতে ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে।

ভুল করে যেসব শিক্ষার্থী জগন্নাথে আসেন, তাদের পরীক্ষা নেওয়া হয় কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের একটি কক্ষে। বিশেষ ব্যবস্থাপনায় ৮০ শিক্ষার্থীর পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

এ পরীক্ষায় বিশেষ কোটার কোনো শিক্ষার্থী মেডিকেল সেন্টারে পরীক্ষা দেয়নি।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন, সুশৃঙ্খলভাবে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। যেসব শিক্ষার্থী ভুল করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে চলে এসেছেন, মানবিক দিক বিবেচনা করে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় তাদের পরীক্ষাও নেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময় : ১৪৩২ ঘণ্টা, ৩০ জুলাই, ২০২২
এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa