ঢাকা, রবিবার, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

নির্বাচন ও ইসি

ফেসবুক পেজে সব কার্যক্রম প্রচার করবে ইসি, তবে...!

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫২ ঘণ্টা, নভেম্বর ৫, ২০১৭
ফেসবুক পেজে সব কার্যক্রম প্রচার করবে ইসি, তবে...!

ঢাকা: অবশেষে ফেসবুকে একটি অফিসিয়াল পেইজ খুলেছে নির্বাচন কমিশন(ইসি)। শুধু তাই নয়, সেবামূলক কার্যক্রমগুলো এতে তুলে ধরার জন্য সারাদেশের সকল কার্যালয়কে কেন্দ্র থেকে নির্দেশনাও পাঠানো হয়েছে।

নির্বাচন কমিশন সচরাচর ভোটার তালিকা হালনাগাদ, দলের নিবন্ধন, পর্যবেক্ষক নিবন্ধন, জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত কার্যক্রমগুলো ব্যাপকভাবে প্রচার করে থাকে। এক্ষেত্রে পত্রিকা, টিভি ও বেতারের পাশপাশি ধর্ম মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমেও প্রচার কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়।

কিন্তু সবচেয়ে শক্তিশালী সামাজিক যোগাযোগ প্রচারমাধ্যম হিসেবে বিশ্বব্যাপী ফেসবুক নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করলেও, ফেসবুকে ইসির কোনো প্রচার বা সক্রিয়তা ছিল না এতোদিন। এখন এটিও হলো। মানে ফেসবুকেও সক্রিয় হয়েছে ইসি।

গত আগস্ট মাসের শেষের দিকে ইসির ফেইসবুক পেইজটি খোলা হলেও এটি ব্যবহারের জন্য কোনো অফিসিয়াল নির্দেশনা বা তাগিদ ছিল না। তাই তেমন ব্যবহারও হচ্ছিল না। অবশেষে গত ৩০ অক্টোবর পেইজটি ব্যবহারের জন্য মাঠ পর্যায়ের সব কার্যালয়কে নির্দেশনা পাঠিয়েছে ইসির তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি শাখা।

সহকারী প্রোগ্রামার সিফাত জাহান স্বাক্ষরিত ওই নির্দেশনায় বলা হয়েছে: ‘নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের জন্য একটি ফেসবুক পেইজ (www.facebook.com/BangladeshECS) খোলা হয়েছে। দ্রুততম সময়ে এর মাধ্যমে নির্বাচন কমিশনের কার্যক্রমসমূহ ব্যাপক জনগোষ্ঠীর মাঝে প্রচার করা সম্ভব। ’

তাই নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের আওতাধীন মাঠ পর্যায়ের সকল অফিসকে ফেসবুক পেজটিতে তাদের কার্যক্রম তুলে ধরতে নির্দেশনায় বলা হয়েছে।

নির্দেশনাটি নির্বাচন কমিশন সচিবালয়, জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অণুবিভাগ, নির্বাচন প্রশিক্ষন ইনস্টিটিউটের সকল কর্মকর্তা, আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা এবং জেলা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বা ভোটার হওয়া সংক্রান্ত তথ্যগুলোর প্রতিই মানুষের আগ্রহ বেশি। এসব নিয়ে হয়রানি ও ভোগান্তিরও শেষ নেই মানুষের। তাই ভোটার হওয়া এবং এনআইডি সংশোধন, ঠিকানা পরিবর্তন সংক্রান্ত তথ্যগুলো প্রচার করা হলে খুব ভাল হবে। এছাড়া নির্বাচনী তথ্যগুলোও মানুষের খুব কাজে আসবে।

পেইজটিতে কার্যক্রম চালানোর জন্য গত ৩০ অক্টোবর নির্দেশনা দেওয়া হলেও নির্দেশনার বাস্তবায়ন তেমন একটা হচ্ছে না। এজন্য দায়ী কর্মকর্তাদের উদ্যমহীনতা ও গদাইলস্করি মনোভাব। কর্মকর্তারা ফেসবুকে বলতে গেলে তেমন কোনো তথ্যই প্রচার করছেন না। সর্বশেষ একটি অনলাইন পত্রিকার নিউজ শেয়ার দেওয়া হয়েছে গত ৩১ অক্টোবর। এর আগেও যে পোস্টগুলো দেওয়া হয়েছে তাও অনিয়মিত।

অথচ বর্তমানে দেশের বিভিন্ন স্থানে ছবি তুলে ভোটার করার কাজ চলছে। কিন্তু তা নিয়েও ফেসবুক পেচে ইসি কর্মকর্তাদের কোনো পোস্ট নেই।

রোববার (০৫ অক্টোবর) সিলেটে স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে। এ নিয়েও কোনো পোস্ট এ নিউজ লেখা পর্যন্ত চোখে পড়েনি।

আবার রোববার (০৫) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছেন। ফেসবুকে পেইজটিতে এ নিয়েও তথ্য পোস্ট করা হয়নি।

এ বিষয়ে ইসির যুগ্মসচিব (চলতি দায়িত্ব) আসাদুজ্জামান বাংলানিউজকে আগে বলেছেন, ফেসবুক পেইজ প্রচারকাজের জন্য খুব প্রয়োজনীয়। কিন্তু কর্মকর্তা-কর্মচারিদের এখনো এ নিয়ে মনোভাব তৈরি হয়নি। তবে সবাইকে গুরুত্ব দেওয়া উচিত। বাংলাদেশ সময়:২০৪০ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৫, ২০১৭
ইইউডি/জেএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa