ঢাকা, সোমবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

নির্বাচন

মৃত বাবার নামে অপপ্রচার বন্ধের দাবি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯০২ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৮, ২০২১
মৃত বাবার নামে অপপ্রচার বন্ধের দাবি অপপ্রচার বন্ধের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

পাবনা: আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে প্রয়াত বাবার নামে অপপ্রচার বন্ধের দাবিতে পরিবারের পক্ষে সংবাদ সম্মেলন করেছেন পাবনার সুজানগর উপজেলার নাজিরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মো. মশিউর রহমান।
 
সোমবার (১৮ অক্টোবর) দুপুরে সুজানগর উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় সুজানগর-২ আসনের সংসদ সদস্য ও পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সাগঠনিক সম্পাদক আহম্মেদ ফিরোজ কবির, সুজানগর উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীনুজ্জামান শাহীন, পৌরসভার মেয়র রেজাউল ইসলাম রেজা, বীর মুক্তিযোদ্ধা সামসুল আলমসহ সংশ্লিষ্ঠ ইউনিয়নের নেত্রীরাসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সম্মলনে চেয়ারম্যান মো. মশিউর রহমান বলেন, সম্প্রতি সারাদেশে ইউনিয়ন পর্যায়ে প্রথম ধাপের নির্বাচনের জন্য সময় নির্ধারণ করেছেন নির্বাচন কর্মকর্তারা। এ নির্বাচনে দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী অনেকেই আবেদন করেছেন। অপ্রত্যাশিতভাবে হলেও দল এবারের নির্বাচনে আরেকজনকে প্রথম পর্যায়ে প্রার্থী ঘোষণা করেন। এ প্রার্থীতা ঘোষণার পর আমি দলের কাছে আবেদন করেছিলাম। আমি এ ইউনিয়নের দু’বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান, আমার প্রার্থীতা কেন বাতিল করা হলো? সেটি জানতে চেয়েছিলাম। দলের নীতি নির্ধারকেরা পুনরায় বিষয়টি বিবেচনা করে আমাকেই আবার নৌকা প্রতীক দেন এবারের নির্বাচনের জন্য।  

তিনি বলেন, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে একটি চক্র উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে দলের অভ্যন্তরে থেকে কৌশলে আমার ও আমার পারিবারের নামে ষড়যন্ত্র করছে। ‘আমার বাবা শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন’ বলে তারা গণমাধ্যমের কাছে অপপ্রচার চালাচ্ছে। আর এ ষড়যন্ত্রের মূল কলকাঠি নাড়ছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও বর্তমানে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ-কমিটির সদস্য কামরুজ্জান উজ্জ্বলসহ তার লোকজন। তিনি ছাড়া তার পরিবারের লোকজন মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের লোক না। আর তারাই আজ আমার ও আমার প্রয়াত বাবার নামে অপপ্রচার চালাচ্ছে।  

মশিউর রহমান আরও বলেন, আমার বাবা ১৯৭২ সালে সংশ্লিষ্ঠ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ছিলেন। ১৯৭০ সালের নির্বাচনে বর্তমান সংসদ সদস্য তার বাবা প্রয়াত সংসদ সদস্য আহম্মেদ তফিজ উদ্দিনের সঙ্গে  নির্বাচন করেছেন। আমার বাবার নামে যে অভিযোগ করা হয়েছে, আমরা পরিবারে পক্ষ থেকে তার জোর প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি। একইসঙ্গে অপপ্রচার বন্ধে ব্যবস্থা নেওয়াসহ এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের নামে দলীয়ভাবে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আবেদন জানাচ্ছি। দলীয়ভাবে যদি ব্যবস্থা না নেওয়া হয়, তবে আইনগতভাবে ব্যবস্থা নেবো।  

এদিকে অভিযুক্ত কামরুজ্জান উজ্জ্বল বাংলানিউজকে বলেন, আমার নামে মিথ্যা অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমি রাজনীতি করি। আমি কারও প্রতিপক্ষ না। আমার ও আমার পরিবারের নামে মিথ্যা অপপ্রচারের তিব্র নিন্দা জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০১ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৮, ২০২১
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa