ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ মে ২০২২, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

নির্বাচন

রাজশাহীতে স্বতন্ত্র ১২, নৌকা ৬, স্থগিত ১

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮৩৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৬, ২০২২
রাজশাহীতে স্বতন্ত্র ১২, নৌকা ৬, স্থগিত ১

রাজশাহী: রাজশাহীর তিনটি উপজেলার ১৯ ইউনিয়নে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বুধবার (৫ জানুয়ারি) রাতে বেসরকারিভাবে ১৮টির ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। এতে বিদ্রোহীদেরই (স্বতন্ত্র) জয়জয়কার হয়েছে।

১৮টির মধ্যে ১২টিতেই জয় পেয়েছে বিদ্রোহী চেয়ারম্যানরা। আর ছয়টিতে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগের নৌকা।

ভোটগ্রহণ শুরুর পর বুধবার দুপুরে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর ইউনিয়নে জোর করে ঢুকে ব্যালটে সিল মারায় একটি কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। যে কারণে রাতে ওই ইউপির ফলও স্থগিত করা হয়েছে।

এদিকে রাজশাহীর তিন উপজেলার ১৮ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ৬ জন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ১২ জন বিজয়ী হয়েছেন। এর মধ্যে বাগমারা উপজেলার ১৬টির মধ্যে ৫টি নৌকা ও ১১টি স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়লাভ করেছেন। পুঠিয়ার দুইটির মধ্যে একটি ইউনিয়নের নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। অপরটিতে বিদ্রোহী প্রার্থী বিজয়ী হয়েছে। এছাড়া দুর্গাপুরের একটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জয়লাভ করেছেন।

রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার বেলপুকুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী বদিউজ্জাজামন বদি বিজয়ী হয়েছেন। উপজেলার বানেশ্বর ইউনিয়নের দিঘলকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোট স্থগিত রয়েছে। তাই ফালাফলও ঘোষণা হয়নি।

রাজশাহী দুর্গাপুর উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম সম্রাট। তার প্রাপ্ত ভোট ৫ হাজার ৮৭৮। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বিএনপি নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী হাসান ফারুক ইমাম সুমন (আনারস প্রতীকে) পেয়েছেন ৫ হাজার ২৩৬ ভোট। বুধবার রাতে উপজেলা ফলাফল ঘোষণা কেন্দ্রে এ ফল ঘোষণা করা হয়। রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার আসাদুজ্জামান ফল ঘোষণা করেন।

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নের মধ্যে গোবিন্দপাড়ায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন- স্বতন্ত্র প্রার্থী হাবিবুর রহমান, নরদাশে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন নৌকার প্রার্থী গোলাম সারওয়ার আবুল, দ্বীপপুরে স্বতন্ত্র বিকাশ চন্দ্র ভৌমিক, বড়বিহানালীতে স্বতন্ত্র মাহমুদুর রহমান মিলন, আউচপাড়ায় স্বতন্ত্র ডিএম. সাফিকুল ইসলাম, শ্রীপুরে নৌকার প্রার্থী মকবুল হোসেন মৃধা, বাসুপাড়ায় নৌকার প্রার্থী লুৎফর রহমান, কাচারী কোয়ালীপাড়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী মোজাম্মেল হক, শুভডাঙ্গায় স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশারফ হোসেন, মাড়িয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী রেজাউল হক, গণিপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুজ্জামান, ঝিকরায় স্বতন্ত্র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম, গোয়ালকান্দিতে নৌকার প্রার্থী আলমগীর সরকার, হামিরকুৎসায় স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ার হোসেন, যোগীপাড়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী এম.এফ মাজেদুল হক সোহাগ এবং উপজেলার সোনাডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদে নৌকার প্রার্থী আজাহারুল হক জয়লাভ করেছেন।

রাজশাহী জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মো সাইফুল ইসলাম জানান, বুধবার সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ঘটেছে। তবে বড় ধরনের কোনো সহিংসতা হয়নি। পুঠিয়ার একটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন থেকে পরে সিদ্ধান্ত আসবে।

বাংলাদেশ সময়: ০৮৩৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৬, ২০২২
এসএস/আরএ 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa