ঢাকা, শনিবার, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ০২ মার্চ ২০২৪, ২০ শাবান ১৪৪৫

ফুটবল

কমলাপুরের টার্ফ নিয়ে অভিযোগ, সাফের ভাবনায় কিংস অ্যারেনা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৩
কমলাপুরের টার্ফ নিয়ে অভিযোগ, সাফের ভাবনায় কিংস অ্যারেনা

দেশের প্রায় সব বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্ট গুলোই আয়োজিত কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে। এই স্টেডিয়ামের টার্ফ নিয়ে অভিযোগ বেশ পুরোনো।

প্রায় প্রতিটি আর্ন্তজাতিক আসরেই টার্ফ নিয়ে অভিযোগ তোলে সফরকারী দলগুলো।  

এত অভিযোগের পরও কোনো পরিবর্তন নেই; এই টার্ফেই আয়োজিত হচ্ছে টুর্নামেন্টগুলো। এবারের অনূর্ধ্ব-২০ টুর্নামেন্টেও টার্ফ নিয়ে অভিযোগ করেছেন নেপালের কোচ। যে কারণে আজ সাফের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক হেলাল জানিয়েছেন, তাদের ভাবনায় রয়েছে বসুন্ধরা কিংস অ্যারেনা। আর্ন্তজাতিক টুর্নামেন্ট আয়োজনে কিংস অ্যারেনা উপযুক্ত বলে জানিয়েছেন তিনি।

কমলাপুর স্টেডিয়ামের টার্ফ নিয়ে হেলাল বলেন, ‘এই টার্ফ নিয়ে অভিযোগ আমরাও পেয়েছি। আমাদের কাছে দুই-তিনটা টিম অভিযোগ করেছে। আমরা কর্তৃপক্ষকে এই অভিযোগ জানিয়েছি। আগামীতে যে খেলা হবে সেখানে যেন এই টার্ফ এড়ানো যায় সেই বিষয়ে আমরা বলেছি। তারা বলেছে তারা মিটিংয়ে বসবে এটা নিয়ে। ’

আগামীতে এই টার্ফে খেলা দলগুলোর জন্য আরও বেশি কষ্টকর হবে বলে জানিয়েছেন হেলাল। সাফের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘এখানে ২৩ জন খেলোয়াড় নিয়ে দলগুলো খেলছে। ফলে দুই-তিনজন ইনজুরিতে পড়লে বদলি খেলোয়াড় দিয়ে খেলা চালানো যাচ্ছে। তবে পরের যে টুর্নামেন্টগুলো হবে সেখানে খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশন করা হবে ২০ জন। সেক্ষেত্রে খেলাটা বেশ কঠিন হয়ে পড়বে। ’

বিকল্প ভেন্যু হিসেবে বসুন্ধরা কিংস আদর্শ হতে পারে বলে মনে করেন হেলাল। তিনি বলেন, ‘আমি বলেছি এখানের বদলে বসুন্ধরায় (কিংস অ্যারেনা) ম্যাচ আয়োজন করা যেতে পারে। বসুন্ধরার মাঠ তো ভালো। সেখানে ফ্লাড লাইট না থাকলে দিনে খেলাতে পারে। দিনে খেলাতে তো কোনো সমস্যা নেই। ঐখানে তো ড্রেসিংরুমও ভালো আছে। সিলেটে ভেন্যু আছে। তবে সেখানে খরচ বেশি হয়ে যাবে। এখান থেকে নিয়ে যাওয়া আবার নিয়ে আসা। সেই খরচ কে দেবে। তবে সে খরচ দলগুলো বহন করলে আমাদের কোনও আপত্তি নেই। ’

এই টার্ফে এএফসি টুর্নামেন্ট আয়োজিত হতে পারলে সাফ কেন আয়োজন করতে পারবো না এমন প্রশ্নের জবাবে সাফের সাধারন সম্পাদক বলেন, ‘আমরা অভিযোগ করলে তারা উত্তর দেয়। এখানে এএফসি টুর্নামেন্ট হয়। এএফসি এই মাঠকে অ্যাপ্রুভাল দিলে সাফ এর সমস্যা হওয়ার কথা না। ’

আগামী জুনে ছেলেছেদের সাফ টুর্নামেন্ট আয়োজিত হবে। তবে এখনও ভেন্যু নির্ধারিত হয়নি। আয়োজক হওয়ার দৌড়ে ভারত এগিয়ে আছে বলে জানান আনোয়ারুল হক হেলাল। তিনি বলেন, ‘সিনিয়র সাফের খেলা ২০ জুন থেকে হবে তা নির্ধারিত হয়েছে। তবে ভেন্যু এখনও ঠিক হয়নি। সেটা আমাদের আগামী ১৪ তারিখ ইসি মিটিংয়ে নির্ধারিত হবে। ’

‘আমরা মার্কেটিং এবং মিডিয়া রাইটসে জন্য টেন্ডার দিয়েছিলাম। সেখানে একটাই টেন্ডার জমা পড়েছে। ইসি মিটিংয়ে এটা পাস হলে ভেন্যু নির্ধারিত হবে। তাদের শর্ত হচ্ছে এবারের সাফ ভারতে আয়োজন করার। ২৫ সালের আগামী সাফ হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে খেলাতে হবে। সবাই যদি এটায় অনুমোদন দেয় তবে ভারতে আয়োজিত হবে। যদি সবাই অনুমোদন না দেয় তাহলে আমাদের বিকল্প ভাবতে হবে। ’

বাংলাদেশ সময়: ২০৫২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৭, ২০২৩
এআর/আরইউ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।