ঢাকা, শুক্রবার, ৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ আগস্ট ২০২২, ২০ মহররম ১৪৪৪

ফুটবল

সুপার ক্লাব ওয়ার্ল্ডকাপ ঘিরে বিতর্ক

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭৩৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৪, ২০১৭
সুপার ক্লাব ওয়ার্ল্ডকাপ ঘিরে বিতর্ক ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বকাপের আগের বছর কনফেডারেশনস কাপের পরিবর্তে বড় পরিসরে সুপার ক্লাব ওয়ার্ল্ডকাপ আয়োজনে চোখ রাখছে ফিফা। কিন্তু ফুটবলে নতুন বিপ্লব ঘটাতে সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থার এই প্রচেষ্টায় আপত্তি জানিয়েছে দক্ষিণ আমেরিকা। ইউরোপের সঙ্গে বৈষম্যের শিকারের প্রশ্ন তুলে সমতার দাবি তাদের।

কনফেডারেশনস কাপে ফিফার ছয়টি কনফেডারেশন থেকে ৮টি দেশ অংশ নেয়। দেশের খেলা আর থাকছে না।

এটিকে ক্লাব পর্যায়ে ছড়িয়ে দিতে চায় ফিফা। অর্থাৎ, বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানিই রাশিয়ার মাটিতে সবশেষ কনফেডারেশনস কাপ (২০১৭) বিজয়ী।

জমজমাট সুপার ক্লাব ওয়ার্ল্ডকাপে ২৪টি ক্লাব প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। ইউরোপ থেকে ১২টি, দক্ষিণ আমেরিকা থেকে প্রতিনিধিত্ব করবে ৫টি, উত্তর আমেরিকার ২, আফ্রিকার ২, এশিয়ার ২ ও ওসেনিয়া অঞ্চল থেকে ১টি।

বিশ্বের সব তারকা খেলোয়াড়দের ক্লাব ক্যারিয়ার ইউরোপকেন্দ্রিক। ইউরোপিয়ান শীর্ষ লিগগুলোর জনপ্রিয়তা অন্য সবার থেকে আলাদা। বলা হচ্ছে, ফিফা অধীনে এই বিশেষ ইভেন্টে ইউরোপের ক্লাব বাড়ানোটা স্পন্সরের দিকটাও জড়িত থাকতে পারে।

ব্রাজিলিয়ান সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে স্প্যানিশ জনপ্রিয় ক্রীড়া দৈনিক ‘মার্কা’ বলছে, দলের সংখ্যা নিয়ে সন্তুষ্ট নয় দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবল কনফেডারেশন (কনমেবল)। ইউরোপের তুলনায় সমতা আনার দাবি করছে তারা। মূলত, ইউরোপিয়ান ক্লাবগুলোর সংখ্যা বৃদ্ধি নিয়েই নাখোশ কনমেবল।

সূত্রমতে, চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর আগে ফিফার কাছে একটা মিটিং করার প্রস্তাব দিয়েছে দক্ষিণ আমেরিকা। তাদের বিশ্বাস, কনমেবল ছয়টি টিমের অংশগ্রহণ অর্জন করতে পারে যদি সেখানে ওসেনিয়ার সেরা টিমের বিপক্ষে প্লে-অফ থাকে।

কনফেডারেশনস কাপের মতোই চার বছর অন্তর মাঠে গড়াবে সুপার ক্লাব ওয়ার্ল্ড কাপ। সব ঠিক থাকলে ২০২১ সালে প্রথম আসরের পর্দা উঠবে। পরের বছর কাতার বিশ্বকাপ।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩৩ ঘণ্টা, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৭
এমআরএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa