ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ফুটবল

ফুটবলকে বাঁচাতেই সুপার লিগ: পেরেস

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২২ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২১
ফুটবলকে বাঁচাতেই সুপার লিগ: পেরেস

ঘোষণার পর থেকেই তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে ইউরোপিয়ান সুপার লিগ। কিন্তু কোনো সমালোচনাকেই পাত্তা দিচ্ছেন না ফ্লোরেন্তিনো পেরেস।

বরং রিয়াল মাদ্রিদ প্রেসিডেন্টের দাবি, ফুটবলকে বাঁচাতেই সুপার লিগের আবির্ভাব।

রোববার দিনগত রাতে ২০ দলের ইউরোপিয়ান সুপার লিগের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন পেরেস। তিনি আবার নতুন এই টুর্নামেন্টের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্টও। তীব্র সমালচনার মধ্যেও তিনি নতুন এই টুর্নামেন্টের পক্ষে জোর বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন।  

সোমবার স্প্যানিশ সংবামাধ্যম ‘এল চিরিঙ্গুইতো’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পেরেস বলেন, ‘উয়েফা অন্য এক ফরম্যাট নিয়ে কাজ করেছে, যা প্রথমত আমি বুঝতে পারিনি এবং দ্বিতীয়ত, ফুটবলকে বাঁচানোর মতো প্রয়োজনীয় অর্থ সেখান থেকে আসবে না। ’

তিনি আরও বলেন, ‘যখন আমি ফুটবলকে বাঁচানোর কথা বলি, এর মানে আমি সবাইকে বাঁচানোর ব্যাপারেই বলছি, যাতে কমপক্ষে আগামী ২০ বছর আমরা শান্তিতে বাঁচতে পারি। পরিস্থিতি বেশ নাটকীয়। আমাদের বিশ্বাস এই ফরম্যাট (সুপার লিগ) ফুটবলকে বাঁচাতে পারে, যেমন পঞ্চাশের দশকে ইউরোপা লিগ ফুটবলকে বাঁচিয়েছিল। ’

কেন সুপার লিগ?

সুপার লিগ আয়োজনের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে পেরেস করোনা মহামারিতে ক্লাবগুলোর আয় কমে যাওয়ার দিকে ইঙ্গিত করেন।

তিনি বলেন, ‘যে ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে, ইংল্যান্ড, ইতালি ও স্পেনের বড় ক্লাবগুলোকে এর সমাধান খুঁজে বের করতেই হতো। ইউরোপিয়ান ক্লাব অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, তারা ৫ বিলিয়ন ইউরো লোকসান গুনেছে। রিয়াল মাদ্রিদে আমাদের বাজেট ছিল ৮০০ মিলিয়ন ইউরো, কিন্তু আমরা ৭০০ মিলিয়ন ইউরোয় শেষ করেছি। এই বছর ৯০০ মিলিয়ন ইউরোর জায়গায় ৬০০ মিলিয়ন ইউরো সম্ভব কি না জানি না। দুই মৌসুমে রিয়াল ৪০০ মিলিয়ন ইউরো লোকসান করেছে। ’

লোকসান সামলানোর উপায় হিসেবে সুপার লিগের উদ্যোগ, এমনটাই জানালেন পেরেস। তিনি বলেন, ‘যখন টিভি স্বত্ব ছাড়া আর কোনো আয় না থাকে, তখন আয় বাড়ানোর সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে বিশ্বের ফুটবলভক্তদের উপভোগের জন্য আরও বেশি বেশি আকর্ষণীয় ম্যাচ আয়োজন করা। এজন্য আমরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হলাম যে, চ্যাম্পিয়নস লিগের বদলে আমরা সুপার লিগ আয়োজন করব এবং এতে আমরা আমাদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারব। ’

খেলার প্রতি দর্শকদের আকর্ষণ বাড়াতেও নতুন টুর্নামেন্ট বেশ কাজে দেবে বলে মনে করে রিয়াল প্রেসিডেন্ট, ‘অনেক ম্যাচ আছে যেগুলো দর্শক আকর্ষণ করতে পারে না। বার্সেলোনা-ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ম্যাচ অবশ্যই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড বনাম কোনো দুর্বল দলের ম্যাচের চেয়ে বেশি আকর্ষণীয়। পুরো বিশ্ব কি চায়? সারা বিশ্বেই আমাদের সমর্থক আছে এবং এটাই অর্থ আয়ের পথ, অন্য টুর্নামেন্ট এমনটা পারে না আর এই অর্থ সবার। এটা একটা পিরামিডের মতো। শীর্ষে থাকাদের অর্থ আছে… কিন্তু এটা যদি না আসে তাহলে সব শেষ। ’

সুপার লিগ কবে শুরু হবে?

এখন পর্যন্ত বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ, জুভেন্টাস, আর্সেনাল, চেলসি, লিভারপুল, ম্যানচেস্টার সিটি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এবং টটেনহ্যামসহ ১২টি ক্লাব সুপার লিগে খেলার ব্যাপারে রাজি হয়েছে। পেরেস জানিয়েছেন, সম্ভব হলে খুব শিগগিরই টুর্নামেন্ট শুরু হবে। এর আগে উয়েফা ও ফিফার সঙ্গে কথা বলবেন আয়োজকরা। তবে দুই শীর্ষ সংস্থাই নতুন টুর্নামেন্টের ব্যাপারে নাখোশ। কিন্তু এর কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না তিনি।

উয়েফার হুমকির জোর কতটা?

উয়েফা প্রেসিডেন্ট অ্যালেকজান্ডার সেফেরিন বলেছেন, শুধু অর্থকড়ির কাছে তিনি ফুটবলকে বিক্রি হতে দেবেন না। তার মতে, সুপার লিগ হচ্ছে ফুটবলভক্তদের মুখে থুতু ছিটানোর মতো ব্যাপার। তিনি এমনকি হুমকিস্বরূপ বলে দিয়েছেন, যে সব খেলোয়াড় সুপার লিগে খেলবে তাদের বিশ্বকাপ ও ইউরোতে নিষিদ্ধ করা হবে।

তবে উয়েফা প্রধানের হুমকিকে গুরুত্ব দিচ্ছেন না পেরেস। সুপার লিগ চেয়ারম্যান বলেন, ‘খেলোয়াড়দের শান্ত থাকা উচিত, কারণ হুমকিতে কাজ হবে না। কিন্তু যারা একচেটিয়াভাবে উয়েফা চালায় তাদের অবশ্যই আরও স্বচ্ছ হতে হবে। উয়েফার ইমেজ ভালো নয়। তারা এমন একটা ফরম্যাট (নতুন চ্যাম্পিয়নস লিগ) উপস্থাপন করেছে, যা কেউ বুঝে না এবং ২০২৪ সালে এটা বাস্তবায়ন করতে চায়। কিন্তু ২০২৪ সাল পর্যন্ত আমরা বাঁচব না! অনেক ক্লাব আছে যারা শত শত মিলিয়ন খুইয়েছে। ’

বাংলাদেশ সময়: ১৬২২ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২১
এমএইচএম/এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa