ঢাকা, রবিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২২ মে ২০২২, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩

ফুটবল

সাফজয়ী নারী ফুটবল দলকে সংবর্ধনা দিল বসুন্ধরা গ্রুপ 

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০০৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২১
সাফজয়ী নারী ফুটবল দলকে সংবর্ধনা দিল বসুন্ধরা গ্রুপ  ছবি: রাজিন চৌধুরী

ঢাকা: সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপ বিজয়ী নারী ফুটবল দলকে সংবর্ধনা দিয়েছে দেশের শীর্ষ শিল্প গোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপ। বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার (আইসিসিবি) জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে চ্যাম্পিয়ন মেয়েদের সংবর্ধনা দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের চেয়ারম্যান সায়েম সোবহান আনভীর।

সায়েম সোবহান আনভীর সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ নারী চ্যাম্পিয়নশিপজয়ী দলের ফুটবলার, কর্মকর্তা এবং বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে (বাফুফে) অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ‘আমি বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে ঘোষণা দিচ্ছি, আমরা নারী ফুটবলারদের পাশে দাঁড়াবো। ’ 

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগের বক্তব্যের প্রেক্ষিতে বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, ‘আমার শুনে খুব দুঃখ লাগলো আপনাদের (বাফুফে) ৩০ হাজার টাকার জন্য দুশ্চিন্তা করতে হয়। এখন লাখ টাকা দিয়েও টিম পরিচালনা করা যায় না। টিম চালানোর জন্য এখন কোটি কোটি টাকা দরকার। ’ 

ক্রীড়াঙ্গনে বসুন্ধরা গ্রুপের অবদানের পিছনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উৎসাহের কথা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর উৎসাহ পেয়েই আমরা ক্রীড়াঙ্গনে (স্পোর্টস) মনোযোগী হয়েছি। প্রধানমন্ত্রী একদিন ডেকে বলেছিলেন, তোমরা স্পোর্টসে আসো। প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় আসার পরে আমরা একটার পর একটা টিমে এসেছি। আমি শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের চেয়ারম্যান, আমার ছোট ভাই সাফওয়ান সোবহান শেখ জামালের প্রেসিডেন্ট। বসুন্ধরা কিংস আমাদের ক্লাব। এছাড়াও বিভিন্ন স্পোর্টস কার্যক্রম রয়েছে আমাদের। কারণ, তরুণদের বিনোদনের একমাত্র উপায় হচ্ছে স্পোর্টস। ’

প্রধানমন্ত্রী আরও বেশি উৎসাহ দিলে বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার আশাবাদও ব্যক্ত করেন সায়েম সোবহান আনভীর। প্রধানমন্ত্রীর সাহসী নেতৃত্বের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশের জন্ম দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। দেশকে শক্ত হাতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা। ’

সাফজয়ী মেয়েদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্যে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সহ-সভাপতি, বসুন্ধরা গ্রুপের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও বসুন্ধরা কিংসের সভাপতি ইমরুল হাসান বলেন, ‘বিজয়ের মাসে আরেকটি বিজয় অর্জন করায় বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৯ নারী ফুটবল দলের প্রতিটি সদস্য, কোচ ও অফিসিয়াল স্টাফদের বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা। সাফল্য আসবেই। সাফল্য আসার মানে দায়িত্বটা আরও বেড়ে যাওয়া। সাফল্যকে ধরে রাখতে হবে। এজন্য বসুন্ধরা গ্রুপ আপনাদের সঙ্গে আছে। ভবিষ্যতেও থাকবে। বসুন্ধরা গ্রুপ দেশের ক্রীড়াঙ্গন নিয়ে কাজ করছে। শুধু ফুটবল নয়, ক্রিকেটসহ অনেক কিছুতে অংশগ্রহন করেছে। ’

নারী ফুটবলারদের সংবর্ধনা দেওয়ায় বসুন্ধরা গ্রুপকে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য দেন বাফুফের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও ফিফা কাউন্সিল মেম্বার মাহফুজা আক্তার কিরণ, বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ, বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৯ নারী ফুটবল দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর পল স্মলি এবং ক্রীড়া লেখক ইকরামুজ্জামান।  

ক্রীড়াঙ্গনে বসুন্ধরা গ্রুপের অবদানের কথা উল্লেখ করে বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ বলেন, ‘বসুন্ধরা গ্রুপ সব সময়ই খেলাধুলার উন্নয়নে ভুমিকা রেখে চলেছে। আশা করি ভবিষ্যতেও আমাদের পাশে থাকবে। ’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের ভাইস চেয়ারম্যান নঈম নিজাম। তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পূর্তির এই বছরে বিজয়ের মাসে সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী চ্যাম্পিয়নশিপ জয় করাটা আমাদের সবচেয়ে বড় সাফল্য। ’ তবে এখানেই শেষ নয়, তিনি আশা করেন মেয়েরা এবার এশিয়ান পর্যায়েও সফলতা নিয়ে আসবে। বিশ্বকাপে খেলার স্বপ্ন মেয়েরাই পূরণ করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন নঈম নিজাম। তিনি বলেন, ‘ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী থেকে উঠে আসা নারী ফুটবলারদের হাত ধরেই স্বপ্নের পথে ছুটবে বাংলাদেশ। ’

ক্রীড়াঙ্গনে বসুন্ধরা গ্রুপের অবদানের কথা উল্লেখ করে নঈম নিজাম আরও বলেন, ‘বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান স্বাধীনতার আগে খেলাধুলার সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি হকি খেলতেন। তার বড় ভাই আবদুস সাদেক একমাত্র বাঙালি খেলোয়াড় হিসেবে পাকিস্তান জাতীয় দলে হকি খেলেছেন। বর্তমানে চেয়ারম্যান মহোদয়ের ছেলেরাও ক্রীড়াঙ্গনকে এগিয়ে নিতে বড় ভূমিকা রেখে চলেছেন। ’ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা, মিডিয়া হাউজ প্রতিষ্ঠা এবং ক্রীড়াঙ্গনে নানা কর্মকান্ডের মাধ্যমে বসুন্ধরা গ্রুপ দেশকে এগিয়ে নিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের পরিচালক ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের ভাইস চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক মিলন বক্তব্য দিতে গিয়ে চ্যাম্পিয়ন মেয়েদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ‘বসুন্ধরা গ্রুপ ছয় থেকে সাতশত কোটি টাকা ব্যয় করে কমপ্লেক্স করে দিয়েছে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রকে। এছাড়া আড়াইশ বিঘা জমিতে তৈরী করছে বৃহত্তম ক্রীড়া কমপ্লেক্স। খেলাধুলায় নবজাগরণ নিয়ে আসছে দেশের শীর্ষ এ শিল্প প্রতিষ্ঠান। ’

অনুষ্ঠানে দলের ফুটবলার ও অফিশিয়াল প্রত্যেকের হাতে ক্রেস্টের পাশাপাশি তুলে দেওয়া হয় এক লক্ষ টাকার আর্থিক পুরস্কার।

একনজরে সংবর্ধনা পাওয়া নারী দলের সদস্যরা হলেন: রূপনা চাকমা, ইয়াসমিন আক্তার, ইতি, আঁখি খাতুন, শামসুন্নাহার সিনিয়র, অনাই মোগিনি, নাসরিন আক্তার, নিলুফা ইয়াসমিন, আফরিদা, উন্নতি, কোহাতি (অনু), মারিয়া মান্ডা, মনিকা চাকমা, সোহাগি কিসকো, শাহেদা রিপা, ঋতুপর্না, মার্জিয়া আক্তার, স্বপ্না, তহুরা খাতুন, অনুচিঙ মোগিনি, হালিমা, শামসুন্নাহার জুনিয়র ও রেহেনা আক্তার।

কোচিং স্টাফ: জাকির হোসেন, আমিরুল ইসলাম বাবু, পল থমাস স্মলি, গোলাম রব্বানী ছোটন, মাহবুবুর রহমান লিটু, মাহমুদা আক্তার, তৃষ্ণা চাকমা, মোহাম্মদ সেলিম, সাঈদ হাসান ও লাইজু ইয়াসমিন লিপা।

বাংলাদেশ সময়: ২০০৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২১
এসই/আরইউ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa