ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ফুটবল

বসুন্ধরা কিংসকে কাজী সালাউদ্দিনের ধন্যবাদ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৫৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৯, ২০২২
বসুন্ধরা কিংসকে কাজী সালাউদ্দিনের ধন্যবাদ

কম্বোডিয়া ও নেপালের বিপক্ষে ফিফা প্রীতি ম্যাচ সামনে রেখে জাতীয় দলের চলমান অনুশীলন ক্যাম্প পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন।  

শুক্রবার বিকেল বাফুফে সভাপতি জামাল ভূঁইয়াদের অনুশীলন দেখেছেন এবং খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বলেছেন।

পরিদর্শনকালে জামালদের কাছে ভালো ফলাফলের প্রত্যাশার কথা জানিয়েছেন বাফুফে সভাপতি। ফুটবলে অবদান রাখার কারণে বসুন্ধরা কিংসকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সালাউদ্দিন।

বাফুফে আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়েছিল সভাপতি ও জাতীয় দল কমিটির সদস্যবৃন্দ আজ অনুশীলন দেখতে আসবেন। সভাপতি নির্ধারিত সময়ের আগেই এসেছেন। জাতীয় দল কমিটির কেউ আজ আসেননি। অনুশীলন শুরু হওয়ার কিছু সময় পর বাফুফে সভাপতিকে সঙ্গ দিয়েছেন সহ-সভাপতি ও বসুন্ধরা কিংসের সভাপতি ইমরুল হাসান।  

কাজী সালাউদ্দিন জাতীয় দলে ক্লাবের অবদানের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘আবাহনী ও বসুন্ধরা এই দুই ক্লাবের কথা বিশেষভাবে বলতে হয়। তারা ফুটবলের জন্য কাজ করছে। অন্য ক্লাবগুলোও করছে কিন্তু এই দুই ক্লাবের প্রভাব বেশি। ’ 

শীর্ষ দুই ক্লাবের অবদান থাকলেও তাদের আরও কাজের জায়গা রয়েছে বলে মনে করেন বাফুফে কর্তা, ‘দুই ক্লাবেরই আরও কাজের জায়গা রয়েছে। বিশেষ করে আমার ক্লাবের (তার খেলোয়াড়ি জীবনের ক্লাব আবাহনী) আরও কিছু করার আছে। ’

চলতি বছরে বলার মতো সাফল্য নেই বাংলাদেশ  জাতীয় ফুটবল দলের। এখন পর্যন্ত ছয়টি ম্যাচ খেলেছে লাল-সুবজের প্রতিনিধিরা। যার মধ্যে চারটি হার ও দুটিতে ড্র করেছে কোচ হ্যাভিয়ের ক্যাবরেরার দল। চলতি মাসে শেষ সপ্তাহে দুটি ম্যাচে ইতিবাচক ফলাফল চান বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন সভাপতি কাজী সালাউদ্দীন।  

এবার কড়া বার্তা দিয়ে সভাপতি বলেন, ‘তোমরা যা করছ তোমাদের পরীক্ষার সুযোগ নাই আর। তোমাদের এবার ভালো কিছু করতেই হবে। ’

তিনি আরও বলেন, ‘এবার কিন্তু আমি এসে বলি নাই, ভালো করবা। এবার ভিন্ন মেসেজ দেওয়া হয়েছে, তোমাদের করতেই হবে। না হলে আমরা চার বছর অপেক্ষা করব, তরুণ ফুটবলারদের উঠিয়ে আনব। ’ 

অনুশীলন শুরুর আগে ফুটবলারদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন কাজী সালাউদ্দিন। কথা বলেছেন নানা বিষয় নিয়ে। নিজের ক্যারিয়ারের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, 'তোমরা পেশাদার ফুটবলার, তোমাদের পেশাদারের মত আচরণ করতে হবে, এবং দেশের হয়ে তোমরা খেলছ। যে কাজই করো না কেন,  দেশের হয়ে খেলার চেয়ে বড় আর কোনো সম্মান নেই। আমি ১৬ বছর বয়স থেকে খেলছি, যত খেলাই খেলি না কেন দেশের হয়ে খেলাটা অনেক সম্মানের কারণ এটা দিয়েই মানুষের সান্নিধ্যে পৌছানো যায়। ’
 
কাজী সালাউদ্দিনের বিশ্বাস ক্লাবগুলো যদি আরো পেশাদার, ফুটবলীয় কাঠামোয় উন্নতি আনে এবং অনূর্ধ্ব-১৮ লিগে অংশ নেয় তবে দেশের ফুটবলে পরিবর্তন আসবেই। বয়সভিত্তিক দল ও নারী দলের উদাহরণ টেনে এনে বাফুফে সভাপতি বলেন, ‘অনূর্ধ্ব-১৭ আর মেয়েদের দল ভালো করছে কেন? এদেরকে আমরা একদম প্রাথমিক পর্যায় থেকে শুরু করেছি। দুটোই ফেডারেশনের দল। আমরা এবিসিডি শিখিয়ে আনছি। ’

তিনি আরও বলেন, ‘জাতীয় দলের ক্ষেত্রে হয় কি, এরা এবিসি শিখে অন্য ক্লাবের সঙ্গে থাকে। আমরা যখন নেই তখন ওরা গ্রাজুয়েশন পরীক্ষা দিতে আসে। তাই প্রস্তুতি আমাদের মতো হয় না। তবে ক্লাবগুলো যদি উন্নত হয়ে যায়, যদি ক্লাবের অনূর্ধ্ব-১৮ খেলে এবং কিছু কিছু পেশাদার আচরণ আসে তাহলে সম্ভব। আগের থেকে তো অনেক পরিবর্তন এসেছে। পরিবর্তন আসবেই। ’

এদিকে ম্যাচ ফিক্সিংয়ে ব্যাপারে জিরো টরালেন্স বাফুফে। এটা স্মরণ করিয়ে সাবেক এই ফুটবলার বলেন,যাদের শাস্তি দেওয়া হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে প্রমাণ পাওয়া গেছে। কমিটি যাকে দোষী পেয়েছে তাকেই শাস্তি দিয়েছে। আমাকে তো আমাদের বিবেককে কৈফিয়ত দিতে হবে। বেশিরভাগ দলেরই ফিন্যান্সিয়াল স্ট্রাকচার নাই যে কারণে তারা ফেল করেছে। দুটো ক্লাবের স্ট্রাকচার আছে, আবাহনী-বসুন্ধরা। কম বেশি তারা করছে। এর মধ্যেও গলদ আছে। বিশেষ করে আমার ক্লাব (আবাহনী)। ’

সাইফ যুব দলের ম্যানেজার জাহাঙ্গীর ফিক্সিং কাণ্ডে আজীবন নিষিদ্ধ হয়েছেন। এ বিষয়ে তিনি আরও বলেন ‘ওনার ক্ষমতা আছে (জাহাঙ্গীর, উত্তর বারিধারা), যেখানে ইচ্ছা যাক। যেটা করা হয়েছে সেটা সঠিক সিদ্ধান্ত। আপনার ব্যক্তিগত প্রশ্ন থাকলে ডিসিপ্লিন কমিটির সঙ্গে আলোচনায় বসুন। জাহাঙ্গীর সাহেব আমাদের শত্রু না। ’

বাংলাদেশ সময়: ২১৫৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০৯, ২০২২
এআর/এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa