ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

তথ্যপ্রযুক্তি

তথ্য-প্রযুক্তিগত দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই: পলক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১
তথ্য-প্রযুক্তিগত দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই: পলক

ঢাকা: তরুণ ও যুব সমাজকে ভবিষ্যতের উপযোগী করে গড়ে তোলার জন্য তথ্য-প্রযুক্তিগত দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই। তরুণ ও যুব সমাজই উন্নয়নের মূল চালিকা শক্তি।

সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) অনলাইনে হুয়াওয়ে আয়োজিত ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার-২০২১’ এর উদ্বোধনকালে এ মন্তব্য করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।  

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হুয়াওয়ের প্রশংসা করে পলক বলেন, শিক্ষার্থীদের আইসিটি মেধা বিকাশে হুয়াওয়ের ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার’ ভবিষ্যৎ উপযোগী প্রযুক্তিগত দক্ষতা বিকাশেই নয়, পাশাপাশি একটি ইকোসিস্টেম গড়ে তোলার মাধ্যমে এই খাতে দক্ষ ব্যক্তিদের কাজের সুযোগ করে দিচ্ছে।  

আইসিটি খাতে সরকারের গৃহিত নানান পদক্ষেপ তুলে ধরে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রযুক্তি নিয়ে বর্তমান সরকার কর্তৃক এ পর্যন্ত গৃহীতি ও বাস্তবায়িত প্রতিটি পদক্ষেপেই দেশের গণতন্ত্রায়ণ নিশ্চিত করেছে। সরকারি সেবা কার্যক্রম সহজ ও সাবলীল করতেই যুগপৎভাবে ব্যবহৃত হয়েছে এ ডিজিটাল প্রযুক্তি।  

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এবং তার আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা ও ডিজিটাল বাংলাদেশের আর্কিটেক্ট সজীব ওয়াজেদের নির্দেশনায় আমরা ইতোমধ্যেই প্রায় ১ হাজার ২৩২টি সরকারি সেবা ডিজিটালাইজড করেছি। আমরা ২০২১ সালের মধ্যে আরও প্রায় ৮০০টি পরিষেবা ডিজিটাইজ করার জন্য কাজ করছি। জনগণ যাতে আরও সহজে এবং সাবলীলভাবে সেবা পায়, সেজন্য আমরা এ ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছি।  

জুনাইদ আহমেদ পলক আরও বলেন, আমরা জাতীয় হেল্পলাইন ৩৩৩ চালু করেছি। এই হেল্পলাইন আমাদের ডিজিটাইজেশন নীতিতে অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করেছে। স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে আমরা একটি জাতীয় ওয়েব পোর্টাল চালু করেছি। এ পোর্টালটিতে ৫১ হাজার ৫১২ হাজারেরও বেশি সমন্বিত ওয়েবসাইট রয়েছে। যাতে বাংলাদেশের নাগরিকরা পাবলিক অফিস, মন্ত্রণালয় এবং অন্যান্য বিভাগের তথ্য সহজে পেতে পারে।  

অনুষ্ঠানে অন্যের মধ্যে ভার্চ্যুয়ালি বক্তব্য রাখেন আহসান উল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ফজলি ইলাহী, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো রফিকুল ইসলাম শেখ, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের প্রধান ও অধ্যাপক, ড মোহাম্মদ রুবাইয়াত তানভীর হোসেন, হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মি ঝাং ঝেংজুন।

উল্লেখ্য, বিশ্বব্যাপী এসটিইএম (বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, প্রকৌশলবিদ্যা ও গণিত) এবং নন-এসটিইএম বিষয়ে মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য হুয়াওয়ের ফ্ল্যাগশিপ সিএসআর (করপোরেট সোশ্যাল রেসপন্সিবিলিটি) প্রোগ্রাম ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার’ স্থানীয় শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশ, জ্ঞান প্রদান এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাত সম্পর্কে আরও জানাশোনা ও আগ্রহ তৈরিতে কাজ করে। ২০১৪ সালে বাংলাদেশে চালু হওয়া এ প্রোগ্রামটি বিশ্বে প্রায় দশ বছর ধরে মেধা বিকাশে কাজ করে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০১০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১
এসএইচএস/এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa