ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ৩০ জুন ২০২২, ০০ জিলহজ ১৪৪৩

তথ্যপ্রযুক্তি

গ্রামীণফোন-এটুআইর উদ্যোগে রংপুর বিভাগের শিক্ষকদের স্বীকৃতি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৯ ঘণ্টা, অক্টোবর ৪, ২০২১
গ্রামীণফোন-এটুআইর উদ্যোগে রংপুর বিভাগের শিক্ষকদের স্বীকৃতি

ঢাকা: এটুআই ও গ্রামীণফোনের যৌথ উদ্যোগে রংপুর বিভাগের সক্রিয় জেলা আইসিটিফোরই অ্যাম্বাসেডর শিক্ষকদের নিয়ে আয়োজন করা হয়েছে শিক্ষক সম্মাননা ২০২১: সঙ্কটে নেতৃত্ব সম্মাননা অনুষ্ঠান।

দেশের শিক্ষকদের জন্য তৈরি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম এটুআইর ‘শিক্ষক বাতায়ন’ শিক্ষকদের অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমসহ শিক্ষকদের প্রযুক্তির ব্যবহার ও ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করতে নানাবিধ উদ্যোগ নিয়ে এটুআই ও গ্রামীণফোন যৌথভাবে কাজ করছে।

ইতোমধ্যে শহর ও গ্রামাঞ্চলের শিক্ষকদের পাঠদান পদ্ধতিতে প্রযুক্তির ব্যবহারের ব্যবধান কমে এসেছে।  

করোনার এই সময়ে শিক্ষকরা বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে এমনকি প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে অনলাইন স্কুল চালু করে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন। করোনার এই সময়ে শিক্ষকদের এই নেতৃত্বের জন্য দেশব্যাপী সক্রিয় জেলা আইসিটিফোরই অ্যাম্বাসেডর শিক্ষকদের সম্মাননা জানানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার (১ অক্টোবর) রংপুরে শীতল কমিউনিটি সেন্টারে বিভাগীয় সক্রিয় প্রায় ২০০ জন জেলা আইসিটিফোরই অ্যাম্বাসেডর শিক্ষকদের নিয়ে শিক্ষক সম্মাননা ২০২১: সঙ্কটে নেতৃত্ব আয়োজন করা হয় বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায় গ্রামীণফোন।  

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ হাসিবুর রশিদ, বিভাগীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা, রংপুর বিভাগের মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষার উপ-পরিচালকসহ গ্রামীণফোন ও এটুআইর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা।

অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের চিফ বিজনেস অফিসার কাজী মাহবুব হাসান বলেন, করোনাকালে স্কুল-কলেজসমূহ দীর্ঘকাল ধরে বন্ধ থাকার কারণে শিক্ষার্থীদের মধ্যে যে শঙ্কা ও মানসিক চাপ তৈরি হয়েছে, তা কমাতে এবং তাদের ঘরবন্দি সময়টাকে কাজে লাগাতে আমাদের শিক্ষকরা অনলাইন ও অফলাইনে গত প্রায় দুই বছর ধরে যে ভূমিকা পালন করে চলেছেন তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে। এটুআই শিক্ষক বাতায়ন এই কঠিন সময়ে খুবই গুরুত্বর্পূণ ভূমিকা পালন করছে এবং এই উদ্যোগে গ্রামীণফোন পার্টনার হতে পেরে খুবই সম্মানিত বোধ করছে।     

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ করিম উদ্দিন পাবলিক পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খুরশীদুজ্জামান আহমেদ বলেন, আমাদের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র নিয়মিত ক্লাসে না আসতে পারার কারণে তাদের পড়াশোনা বা ক্যারিয়ারের দৌড়ে পিছিয়ে যাবে, এটি মেনে নেওয়া কঠিন ছিল। তাই যেটুকু সুযোগ হাতে ছিল, তাকে কাজে লাগিয়ে চেষ্টা করেছি সরকারের নির্দেশনা ও পাঠ্যসূচি অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার। গ্রামীণফোন ও এটুআইয়ের কাছ থেকে সম্মাননা পেয়ে আমি অত্যন্ত গর্বিত।  

এখন পর্যন্ত এটুআইর শিক্ষক বাতায়নে প্রায় ৬ লাখ শিক্ষক নিবন্ধন করেছেন, যাদের মধ্যে প্রায় ২৫০০ জন শিক্ষককে তাদের অসাধারণ উপস্থাপনা, উদ্ভাবনী কার্যক্রম ও শিক্ষা বিষয়ক ডিজিটাল কনটেন্ট ডেভেলপমেন্টের জন্য আইসিটিফোরই অ্যাম্বাসেডরের মর্যাদা দেওয়া হয়েছে। করোনা মহামারির কারণে যে দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ ছিল, সে সময়ে এই শিক্ষকরা অনলাইনে শিক্ষার্থীদের শেখার প্রক্রিয়ার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার সুযোগ করে দেন।  

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ০৪, ২০২১
এমআইএইচ/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa