ঢাকা, রবিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২২ মে ২০২২, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩

তথ্যপ্রযুক্তি

স্বাস্থ্যসেবায় সহযোগিতার আশ্বাস ইনটেল প্রধানের

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৫৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০২১
স্বাস্থ্যসেবায় সহযোগিতার আশ্বাস ইনটেল প্রধানের

ঢাকা: আধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগ ও ব্যবহার করে স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে বাংলাদেশকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ইনটেল কর্পোরেশন।

আইসিটি বিভাগের আইডিয়া প্রকল্পের মিনি কনফারেন্স কক্ষে সোমবার (১৩ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠিত বৈঠকে সংস্থাটির বোর্ড অব ডিরেক্টরসের চেয়ারম্যান ড. ওমর ইশরাক তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে সাক্ষাতকালে এই আশ্বাস দিয়েছেন।

বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) আইসিটি বিভাগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, প্রতিমন্ত্রী আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্স (এআই) এবং মেশিন লার্নিংয়ের মতো অত্যাধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগ ও ব্যবহার করে মানুষের ভোগান্তি ও অর্থ ব্যয় হ্রাসসহ স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে ড. ওমর ইশরাকের কাছে সহযোগিতা চান। এ সময় ইনটেল চেয়ারম্যান আধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগ ও ব্যবহার করে স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী ড. ওমর ইশরাকের কাছে গত ১২ বছরে ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রগতির সামগ্রিক চিত্র তুলে ধরে বলেন, সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশে ডিজিটাল অর্থনীতির বিকাশ ঘটিয়েছে। দেশের আইসিটি রপ্তানি বর্তমানে ১ দশমিক ৩ বিলিয়ন ডলার। আমাদের লক্ষ্য ২০২৫ সালে তা ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করা। দুই হাজারের মতো সেবা ডিজিটাইজড করে তাতে মানুষের প্রবেশগম্যতা নিশ্চিত করা হয়েছে। ফলে মানুষকে এখন আর সেবার পেছনে ছুটতে হয় না, সেবাই পৌঁছে গেছে মানুষের দোরগোড়ায়।

পলক বলেন, করোনা মহামারির সময়ে তথ্যপ্রযুক্তিই আমাদের প্রায় সব কিছুকে সচল রাখে। অফিস-আদালত, ব্যবসা-বাণিজ্যের কার্যক্রম ভার্চ্যুয়ালি সম্পন্ন করা হয়। ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ‘সুরক্ষা’ প্লাটফর্ম চালু করে ভ্যাকসিন কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করা হয়। এ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৭ কোটি মানুষ এ প্লাটফর্মে নিবন্ধন করে।

আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্স (এআই), মেশিন লার্নিংয়ের মতো অত্যাধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগ ও ব্যবহার করে মানুষের ভোগান্তি ও অর্থ ব্যয় হ্রাসসহ স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে ড. ওমর ইশরাকের সহযোগিতা কামনা করে পলক বলেন, এমন একটি উদ্যোগের বাস্তবায়নে দেশের ১৮ হাজার কমিউনিটি হেলথ ক্লিনিক ও ৮ হাজার ডিজিটাল সেন্টার কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে।

ড. ওমর ইশরাক অত্যাধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগ ও ব্যবহার করে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে আইসিটি বিভাগের সঙ্গে কাজ করতে নিজের আগ্রহের কথা জানিয়ে বলেন, স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে তিনটি বিষয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। রোগীর তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ, মান সম্মত নির্দেশিকা প্রণয়ন এবং নির্দেশিকার সঙ্গে মানুষের যোগসূত্র স্থাপন।

তিনি আধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগ ও ব্যবহার করে স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন এবং একটি স্টান্ডার্ড নির্দেশিকা প্রণয়নে আইসিটি বিভাগকে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

এ সময় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, জাতীয় ডেটা সেন্টারের পরিচালক তারেক এম বরকতউল্লাহ, এলআইসিটি প্রকল্পের আইটি-আইটিইএস পলিসি এডভাইজার সামি আহমেদ, মেডট্রনিক বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি ফারুক আলম, আইডিয়া প্রকল্প পরিচালক মো. আবদুর রাকিব উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ইনটেল কর্পোরেশনে যোগদানের আগে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ড. ওমর ইশরাক যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মেডট্রনিকের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫২ ঘণ্টা, ১৫ ডিসেম্বর,২০২১
এমআইএইচ/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa