ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ মে ২০২২, ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

তথ্যপ্রযুক্তি

এপিকটা অ্যাওয়ার্ডস: বাংলাদেশের ২ বিজয়, ২ মেরিট অ্যাওয়ার্ড

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৫০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০২১
এপিকটা অ্যাওয়ার্ডস: বাংলাদেশের ২ বিজয়, ২ মেরিট অ্যাওয়ার্ড

ঢাকা: বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর নেতৃত্বে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা এশিয়া প্যাসিফিক আইসিটি অ্যালায়েন্স (এপিকটা) অ্যাওয়ার্ডস প্রতিযোগিতায় ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে এই প্রথম অংশগ্রহণ করলো বাংলাদেশ।

কোভিড মহামারির কারণে একটু ভিন্ন মাত্রায় এবারের এপিকটা অ্যাওয়ার্ডস ২০২০-২১ ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে কয়েকটি ধাপে অনুষ্ঠিত হয়।

এবারে, ২টি ক্যাপসুল অতিক্রম করে প্রতিযোগিরা ফাইনাল রাউন্ডে উত্তীর্ণ হয়। বিচারকার্যের পুরো প্রক্রিয়াটি ১ সেপ্টেম্বর থেকে ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সম্পন্ন হয়। অবশেষে ১৫ ডিসেম্বর, বিজয়ী ঘোষণা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উক্ত অনুষ্ঠানটি সমাপ্ত হয়।

এপিকটা অ্যাওয়ার্ডস একটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রতিযোগিতা; যেখানে প্রতিবছরের ন্যায় এবারও অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ, ব্রুনেই দারুসসালাম, চীন, চীনা তাইপে, হংকং, ইন্দোনেশিয়া, জাপান, ম্যাকাও, মালয়েশিয়া, মিয়ানমার, পাকিস্তান, সিঙ্গাপুর, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম এবং নেপালসহ ১৭টি অর্থনীতি অঞ্চলের সদস্যরা অংশ নেয়। বেসিস ২০১৭ সালে এপিকটা অ্যাওয়ার্ডস বাংলাদেশে আয়োজন করে।

এবছর বাংলাদেশ থেকে ২টি বিজয়ী এবং ২টি মেরিট অ্যাওয়ার্ড জিতে নেয় প্রতিযোগীরা। পাবলিক সেক্টর ও ডিজিটাল গভর্নমেন্ট ক্যাটাগরি থেকে বিজয়ী হয়েছে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি), রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট ক্যাটাগরি থেকে বিজয়ী হয়েছে ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি (আইইউটি)। এছাড়াও টারশিয়ারি স্টুডেন্ট ক্যাটাগরি থেকে মেরিট অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স (আইডিইবি) এবং সিনিয়র স্টুডেন্ট ক্যাটাগরি থেকে মেরিট অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে ঝিনাইদহ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট।

এবারের এপিকটা অ্যাওয়ার্ডস ২০২০-২১ এ বেসিসের সদস্য কোম্পানি, সরকারি প্রতিষ্ঠান এবং স্টুডেন্টদের মধ্যে থেকে আগ্রহী প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে কয়েক ধাপে যাচাই বাছাইয়ের মাধ্যমে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে মোট ৪০টি প্রজেক্টকে এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে নির্বাচন করা হয়।

প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ থেকে বিচারক হিসেবে বেসিস নির্বাহী পরিষদের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর, সিনিয়ার সহ-সভাপতি ফারহানা এ রহমান, সহ-সভাপতি (প্রশাসন) শোয়েব আহমেদ মাসুদ, সহ-সভাপতি মুশফিকুর রহমান, পরিচালক রাশাদ কবিরসহ মোট ৫ জন অংশ নেন। বাংলাদেশ থেকে ইকোনমি কোঅর্ডিনেটরের দায়িত্ব পালন করেন রাশেদ কামাল। এছাড়াও বেসিস সচিবালয় থেকে পুরো কার্যক্রমের সমন্বয়ে যুক্ত ছিলেন যুগ্ম-সচিব (রিসার্চ ফেলো) ইনামুল হাফিজ লতিফী এবং ট্রেড ফ্যাসিলিটেশন বিভাগের সহকারী ব্যবস্থাপক নাদিয়া তাবাসসুম।

এবছর এপিকটা অ্যাওয়ার্ডস মালয়েশিয়াতে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ সময়: ০০৫০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০২১
এমআইএইচ/এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa