ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ মে ২০২২, ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

তথ্যপ্রযুক্তি

সমন্বিত কাজ করে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে নেতৃত্ব দেওয়া সম্ভব

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০২১
সমন্বিত কাজ করে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে নেতৃত্ব দেওয়া সম্ভব

ঢাকা: চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে বিশ্বকে নেতৃত্ব দিতে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতকে আরও স্মার্ট করার ওপর জোর দিচ্ছে আওয়ামী লীগ। দলের সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও তথ্যপ্রযুক্তি খাত একসঙ্গে কাজ করলে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে নেতৃত্ব দেওয়া সম্ভব হবে।

বুধবার (২৯ ডিসেম্বর) ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের (আইইবি) মিলনায়তনে এক সেমিনারে বক্তারা এ মতামত ব্যক্ত করেন। আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটি ‘পাওয়ার, এনার্জি অ্যান্ড ডিপ লার্নিং অ্যাপ্লিকেশনস ফর ফোরআইআর ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক এই সেমিনারের আয়োজন করে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ২০২২ আইইইই প্রেসিডেন্ট (ইলেক্ট) এবং যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়া টেক ইউনিভার্সিটির জোসেফ আর লরিং অধ্যাপক ড. সাইফুর রহমান। সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হোসেন মনসুর। উপ-কমিটির সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মো. রনক আহসানের সঞ্চালনায় সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী।

স্বাগত বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর। আলোচক হিসেবে ছিলেন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম ও ২০২২ আইইইই ডব্লিউআইই কমিটি চেয়ার-ইলেক্ট এবং বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. সেলিয়া শাহনাজ।

সেমিনারে প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বলেন, আমাদের এখন টেকসই উন্নয়ন ও ব্লু -ইকোনমিতে জোর দিতে হবে। বঙ্গোপসাগরে ইউরেনিয়াম পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। নবীন গবেষকরা গবেষণা করে বের করবেন, আমরা এই ইউরেনিয়াম কীভাবে কাজে লাগাবো। স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের জনসংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে, খাদ্য উৎপাদন সক্ষমতা তিনগুণ হয়েছে। কৃষি, স্বাস্থ্য, শিক্ষাসহ সব ক্ষেত্রে প্রযুক্তি ব্যবহার হচ্ছে। এভাবেই বঙ্গবন্ধুকন্যার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

মূল প্রবন্ধে অধ্যাপক ড. সাইফুর রহমান বলেন, পাওয়ার ও এনার্জি পলিসি প্রণয়নের সময় পাঁচটি বিষয়ের দিকে বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখতে হবে। যন্ত্র ও মানুষের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে, শক্তি সংরক্ষণ করতে হবে, অপচয় রোধ করতে হবে, ক্রস বর্ডার এনার্জি শেয়ারিং করতে হবে, নবায়নযোগ্য শক্তি যেমন সৌরবিদ্যুৎ এবং জলবিদ্যুৎ ও পারমাণবিক শক্তির ওপর জোর দিতে হবে।

স্বাগত বক্তব্যে আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর বলেন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে আমাদের প্রচুর সম্পদ আছে, সুযোগও আছে। তথ্যপ্রযুক্তিতেও আমাদের অসাধারণ উন্নতি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ও তার সুযোগ্য আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নেতৃত্বে টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়ন নিশ্চিত করে শুধু ইকোনমিক ও পলিটিক্যাল ডিপ্লোমেসি নয়, সায়েন্স ডিপ্লোমেসি ও টেকনোলজিক্যাল ডিপ্লোমেসিতেও আগামী দিনে বাংলাদেশ বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০২১
এসকে/এনএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa