ঢাকা, বুধবার, ৪ কার্তিক ১৪২৮, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আন্তর্জাতিক

দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে লিবিয়ার ১০০ কোটি ডলার সমমানের ক্ষতিপূরণ দাবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৫২৪ ঘণ্টা, আগস্ট ৫, ২০১০
দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে লিবিয়ার ১০০ কোটি ডলার সমমানের ক্ষতিপূরণ দাবি

সিউল: দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে ১শ’ কোটি ডলার সমমানের ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে লিবিয়া। সিউলের বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগের কূটনৈতিক সমাধানের অংশ হিসেবে এ ক্ষতিপূরণ দাবি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এতথ্য জানা যায়।

লিবিয়ার চাহিদা পূরণ করা না হলে উত্তর আফ্রিকার দেশগুলোতে দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যবসায়ীক কার্যকলাপের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকীও দেওয়া হয়। দক্ষিণ কোরিয়ার জংঅ্যাং ডেইলি পত্রিকা এসংবাদ প্রকাশ করেছে।

সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়া লিবিয়ার সঙ্গে প্রায় ৯শ’ কোটি ডলারেরও বেশি অর্থমূল্যের অবকাঠামো নির্মাণ চুক্তিতে আবদ্ধ হয়েছে। ইন্টারন্যাশনাল কণ্ট্রাকট্ররস অ্যাসোসিয়েশন অফ কোরিয়া এ তথ্য জানায়। প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ত্রিপলী দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে অপরিশোধিত অবকাঠামো নির্মাণ কাজের ব্যয়ভার বহনের দাবি জানিয়েছে। এর পরিমাণ ১শ’ কোটি ডলারের সমান বলে সংবাদপত্রটি থেকে জানা যায়।

এদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার সিনমান সংবাদপত্র বৃহস্পতিবার জানায়, লিবিয়া দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে বিনা মূল্যে ১ হাজার কিলোমিটার হাইওয়ে নির্মাণ করে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে। এই নির্মাণ কাজের আর্থিক ব্যয় ১শ’ কোটি ডলারের সমান।

তবে এ সংবাদ নাকচ করে দিয়ে দক্ষিণের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয় মিয়াং-হ্যাওয়ান বলেন এধরনের সংবাদ সমস্যাটির কূটনৈতিক সমাধান ব্যাহত করছে। তাঁর মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বৃহস্পতিবার বলেন লিবিয়ার পক্ষ থেকে, “কোনো ধরনের চাহিদা বা অনুরোধের কথা বলা হয়নি। ”

এর আগে, লিবিয়ার শাসক মোয়ামের গাদ্দাফি, তার পরিবার ও সরকারী আমলাদের সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহের অভিযোগে জুনে দক্ষিণ কোরিয়ার এক গুপ্তচরকে বহিষ্কারের পর দেশ দুটির মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।

একইসঙ্গে দক্ষিণের এক খ্রিষ্টান যাজককে লিবিয়াতে গ্রেপ্তার ও দেশটির গনমাধ্যমে তা প্রচারের পর এ সমস্যা আরও তীব্রতর হয়।

গত মাসে এসব সমস্যা সমাধানের জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিনিধিদের সঙ্গে ত্রিপলিতে আলোচনাকালে লিবিয়া ১শ’ কোটি ডলার সমমানের এ দাবি জানায় বলে জংঅ্যাং ডেইলি পত্রিকা সূত্রে জানা যায়।

একইসঙ্গে লিবিয়া দেশটিতে দক্ষিণ কোরিয়ার গুপ্তচরেরা যে সব লিবিয়ান নাগরিকের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে তার একটি তালিকাও দাবি করেছে বলেও সংবাদপত্রটি জানায়।

অন্যান্য দাবির পাশাপাশি গুপ্তচরবৃত্তির জন্য দক্ষিণ কোরিয়াকে লিখিতভাবে ক্ষমা প্রার্থনার জন্য লিবিয়া চাপের মধ্যে রেখেছে বলে জানায় ত্রিপলি।

উল্লেখ্য, ১৯৮০ সালে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের অংশ হিসেবে সিউল ও ত্রিপলী একটি দৃঢ় দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক সম্পর্ক তৈরি করে। একইসঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার কোম্পানি ১৯৭৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত লিবিয়ায় প্রায় ৩শ’ নির্মাণ প্রকল্পে কাজ করেছে যার সর্বমোট আর্থিক মূল্য সাড়ে তিন হাজার কোটি মার্কিন ডলার।

বাংলাদেশ স্থানীয় সময়: ১৫৫৮ ঘণ্টা, আগস্ট ০৫, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa