ঢাকা, বুধবার, ৪ কার্তিক ১৪২৮, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সাক্ষাৎকার

যানজট নিরসনে বাস টার্মিনাল করবেন ফুলবাড়িয়ার কিবরিয়া

এম আব্দুল্লাহ আল মামুন খান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯২১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০১৬
যানজট নিরসনে বাস টার্মিনাল করবেন ফুলবাড়িয়ার কিবরিয়া ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া পৌরসভার বাসিন্দাদের নিত্য সঙ্গী যানজট। তাই যানজট নিরসনকে অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করার অঙ্গীকার করেছেন ফুলবাড়িয়া পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র মো. গোলাম কিবরিয়া।



যানজট দূর করার লক্ষ্যে পৌর এলাকায় একটি বাস টার্মিনাল নির্মাণ করতে চান তিনি।

জলাবদ্ধতা, মাদক, সামাজিক অনাচার দূর করার পাশাপাশি বর্জ্য ব্যবস্থাপনা আধুনিকিকরণ ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন করে নাগরিক জীবনে আনতে চান আমূল পরিবর্তন। এসব কাজ সফলতার সঙ্গে সম্পন্ন করতে দল-মত নির্বিশেষে সবার সহযোগিতা দ্বিতীয়বারের মতো ভোটে নির্বাচিত এ মেয়র।

বাংলানিউজের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে নিজের আগামী দিনের কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরেন তিনি।

২০০১ সালের গোড়ার দিকে পথচলা শুরু হয় প্রায় ১৬ বর্গ কিলোমিটারের ফুলবাড়িয়া পৌরসভার। প্রথমে ‘গ’ শ্রেণির পৌরসভা হলেও এখন ‘খ’ শ্রেণিতে উন্নীত হয়েছে। গ্রামীণ পরিমণ্ডলের এ পৌরসভায় ১৮ কিলোমিটারের মতো ড্রেনেজ ব্যবস্থা রয়েছে। যা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল।

২০০৮ সালের নির্বাচনে প্রথমবারের মতো মেয়র নির্বাচিত হন মো. গোলাম কিবরিয়া। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে অংশ নিয়ে আবারো মেয়র নির্বাচিত হন তিনি।

এ নির্বাচনে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী চান মাহমুদের (প্রতীক-জগ) চার হাজার ৯৮ ভোটের বিপরীতে কিবরিয়া পান সাত হাজার ৭৯৫ ভোট।

মেয়র পদে থাকা অবস্থায়ই ভেতরে ভেতরে দ্বিতীয়বার নির্বাচনের প্রস্তুতি নেন তিনি।

কিন্তু এবারই প্রথম দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচন হওয়ায় ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন দরকার ছিল তার। যা ছিল অন্যতম চ্যালেঞ্জ। শেষ পর্যন্ত তিনিই পান নৌকা প্রতীক।

গোলাম কিবরিয়ার কথায়, গত সাত বছর পৌর এলাকার উন্নয়নে কাজ করেছি। জনমত আমার পক্ষেই ছিল। উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতাদের নির্দেশনায়ই নির্বাচন করেছি।

দলীয় প্রতীক পাওয়ায় নির্বাচনী বৈতরণী পার হওয়া সহজ হয়েছে বলেও মনে করেন তিনি। বলেন, নির্বাচনে জয়ী হতে দলীয় প্রতীকই মূখ্য ভূমিকা রেখেছে। পাশাপাশি নিজের ইমেজও ভোটারদের আকৃষ্ট করতে সহায়ক হয়েছে।

বর্ষাকালে জলাবদ্ধতার কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হয় এখানকার বাসিন্দাদের। এছাড়া যানজট পৌরবাসীর নিত্যসঙ্গী। প্রথম মেয়াদে যানজট নিরসনে চেষ্টা করেও সফল হতে পারেননি তিনি। এবার এসব সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নেওয়া হবে বলেও জানান মেয়র কিবরিয়া।

নির্বাচনী প্রতিশ্রুতির বিষয়ে তিনি বলেন, যানজটমুক্ত ফুলবাড়িয়া পৌরসভা গড়তে প্রয়োজন বাস টার্মিনাল। আর এজন্য প্রয়োজন জমি। কিন্তু এখানে সরকারি খাসজমি নেই। ফলে বাস টার্মিনাল করতে ব্যক্তি মালিকানা জমি লিজ নিতে হবে। জমি লিজ নিতে পারলেই সেখানে নির্মাণ করা হবে পৌর বাস টার্মিনাল। আর এটাই হবে আমার অন্যতম প্রধান কাজ। শিগগিরই এটি করতে চাই আমি।  

এছাড়া পৌরসভার আট নম্বর ওয়ার্ডের কেন্দ্রীয় গোরস্থান থেকে ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স রাস্তা নির্মাণ, পৌরভবনের সঙ্গে একটি সংযোগ ব্রিজ আর পৌর এলাকায় ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নকে প্রধান্য দেওয়া হবে বলেও   জানান তিনি।  

১৯৭৩ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পৌরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম পাড়া এলাকার ব্যবসায়ী মোবারক আলী সরকার ও গৃহিণী সালেহা বেগম দম্পতির ঘর আলো করে জন্ম নেন মো. গোলাম কিবরিয়া। পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে তিনি সবার ছোট।

ছাত্রলীগের রাজনীতির মাধ্যমে শুরু হয় তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার। ১৯৯০-৯১ সালে হন উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য। ২০০৪ সালে তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পান। এখনো আছেন এ পদে।

যেসব এলাকায় কম ভোট পেয়েছেন, সেইসব এলাকায় নিজের উন্নয়নের কৌশল স্পষ্ট করে বলেন, কাজ দিয়েই ওইসব এলাকার ভোটারদের মন জয় করতে চাই। নিজের জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও তাদের জন্য কাজ করবো।

পরের নির্বাচন নিয়ে চিন্তা করার চেয়ে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিই আগে বাস্তবায়ন করতে চান তিনি।

দলবাজির ঊর্ধ্বে রেখে পৌর ভবনকে নাগরিকদের প্রকৃত সেবাকেন্দ্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন মেয়র গোলাম কিবরিয়া। বলেন, দলীয় প্রভাবমুক্ত পৌর ভবন উপহার দেবো। দল-মত নির্বিশেষে ভোটাররা আমাকে ভোট দিয়েছেন। তাই সবার নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করবো।

বাংলাদেশ সময়: ০৯২২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০১৬
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa