ঢাকা, বুধবার, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ইসলাম

মক্কার আকাশে কোরআনের প্রথম আয়াতের লেজার শো

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৪৯ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২
মক্কার আকাশে কোরআনের প্রথম আয়াতের লেজার শো

ঢাকা: সৌদি আরবের মক্কা নগরীতে লেজার লাইটের সাহায্যে কোরআনের প্রথম আয়াত প্রদর্শন করা হয়েছে। লেজার শোটি কাবা শরিফ থেকে চার কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে জাবাল আল-নুর পাহাড়ের ওপর স্থাপন করা হয়।

সেখানকার হেরা গুহায় অবস্থানকালে মহানবীর (সা.) কাছে সর্বপ্রথম কোরআনের আয়াত নিয়ে আসেন ফেরেশতা জিবরাইল (আ.)। সূত্র: আরব নিউজ

মক্কা ইতিহাস কেন্দ্রের পরিচালক ড. ফাওয়াজ আল-দাহাস বলেছেন, সাধারণভাবে মুসলমানদের কাছে জাবাল আল-নুরের একটি ঐতিহাসিক মূল্য রয়েছে। এটি মক্কার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক ও প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান। ইতিহাসে এটি হেরা পর্বত হিসেবে পরিচিত ছিল। তবে পবিত্র কোরআনের প্রথম আয়াত নাজিলের পরে সারা পৃথিবীতে যে আলো বিচ্ছুরিত হয়েছিল, তার পরিপ্রেক্ষিতে এর নামকরণ করা হয়েছে জাবাল আল-নুর বা আলোর পর্বত।
আল-দাহাস আরও বলেন, মক্কাকে বিশ্বের অন্যান্য শহর থেকে যেটি আলাদা করে তা হলো- এটি একটি উন্মুক্ত জাদুঘর। এর সমস্ত পর্বত, উপত্যকা, পাথর এবং কবরস্থানগুলো একেকটি অনন্য ইতিহাসের প্রতিনিধিত্ব করে, যা নবী (সা.)এবং তার সম্মানিত সঙ্গীদের অমর গল্প বলে।

জাবাল আল-নুর এলাকার বাসিন্দা আবদুল্লাহ আল-আজহারী বলেন, জাবাল আল-নুরে লেজার লাইটে পবিত্র কোরআনের প্রথম নাজিলকৃত আয়াতটি (ইকরা বিসমি রাব্বিকাল্লাজি খালাক) একটি আধ্যাত্মিক মাত্রা দিয়েছে, মর্যাদা ও শ্রদ্ধা যোগ করেছে। সৌদি আরবের ভিশন ২০৩০ এর লক্ষ্য হলো দর্শনার্থীদের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক অভিজ্ঞতাকে সমৃদ্ধ করা, বিশেষ করে মুসলিমদের জন্য ঐতিহাসিক গুরুত্ব বহনকারী স্থানগুলোতে।  

লেজার শোটি উপস্থাপন করে সাময়া ইনভেস্টমেন্ট কোং। তারা মক্কায় দুটি সাংস্কৃতিক প্রকল্পও তৈরি করছে, সেগুলো হলো-জাবাল আল-নুরে মিউজিয়াম অফ রিভেলেশন এবং মিউজিয়াম অফ মাইগ্রেশন।  

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa