ঢাকা, বুধবার, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ আগস্ট ২০২২, ১১ মহররম ১৪৪৪

জাতীয় পার্টি

আগামী নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-৪ আসনে জাপার প্রার্থী মিছবাহ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৮
আগামী নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-৪ আসনে জাপার প্রার্থী মিছবাহ বর্তমান সংসদ সদস্য (এমপি) পীর ফজলুর রহমান মিছবাহকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ঘোষণা করছেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ছবি/বাংলানিউজ

সুনামগঞ্জ: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-৪ আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য (এমপি) পীর ফজলুর রহমান মিছবাহকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ঘোষণা করেছেন দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

নির্বাচনকে সামনে রেখে রোববার (১৬ সেপ্টেম্বর)দুপুরে সুনামগঞ্জ শহরের জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সুনামগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টি (জাপা) আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেওয়ার সময় এ ঘোষণা দেন তিনি। এরশাদ জেলা জার্তীয় পার্টির সম্মেলন উপলক্ষে প্রাক নির্বাচনী সফরে সুনামগঞ্জ এসেছেন।

ক্ষমতার শুধু পালা বদল হচ্ছে। কিন্তু তা আর মানুষ চায় না। মানুষ পরিবর্তন চায়। মুক্তি চায়। জাতীয় পার্টির মাধ্যমে এ পরিবর্তন সম্ভব। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর তাদের প্রায় ছয় হাজার নেতাকর্মীর মামলা তুলে নিয়েছে। যখন ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসে তারাও নিজেদের নেতাকর্মীর প্রায় পাঁচ হাজার মামলা তুলে নেয়। জাতীয় পার্টি এ রকম ক্ষমতার পালা বদল চায় না। জাতীয় পার্টি দলীয় করণে বিশ্বাস করে না, যোগ করেন এরশাদ।

তিনি আরও বলেন, আমরা যদি ক্ষমতায় আসতে পারি, কোনো দলীয়করণ করা হবে না। এখন প্রতিদিন গুম-খুন হচ্ছে, এর কোনো শেষ নেই। জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় এলে গুম-খুন হবে না। আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহমেদ বলেছেন যে আওয়ামী লীগ ক্ষমতা থেকে সরে গেলে এক লাখ মানুষ মারা যাবে। জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে একটি লাশও পড়বে না। আমরা ক্ষমতায় গেলে প্রাদেশিক সরকার গঠন করে দেশ পরিচালনা করা হবে। একক ব্যক্তির হাতে কোনো ক্ষমতা দেওয়া হবে না।

আমরা যখন ক্ষমতায় ছিলাম তখন যেভাবে উপজেলা পরিষদ গঠন করেছিলাম ঠিক সেভাবে আবার করবো। ২৭ বছর আগে আমি যখন ক্ষমতায় ছিলাম তখন সুনামগঞ্জকে মহকুমা থেকে জেলায় উন্নীত করেছি। আমি আপনাদের কাছে লাঙ্গলে ভোট চাই। আমি আপনাদের সুনামগঞ্জে লাঙ্গলের প্রথম প্রার্থী ঘোষণা করছি। আর তিনি হলেন বর্তমান এমপি পীর ফজলুর রহমান মিছবাহ। তাকে আপনারা ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন সেই আশা করছি, যোগ করেন তিনি।

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, অতীতে আমি যখন নির্বাচন করেছিলাম তখন সিলেট থেকে আটটি আসন পেয়েছিলাম। এবার আরও বেশি চাই। লাঙ্গল আপনাদের মার্কা, আমি আশাবাদি এ আসনে আপনারা মিছবাহকে বিপুল ভোটে জয়ী করবেন। আমি ভেবেছিলাম এমন প্রখর রোদে তেমন লোক সমাগম হবে না। কিন্তু এ বড় মাঠ কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে। আপনাদের উপস্থিতি আমাকে অনুপ্রাণিত করেছে।  

এ জনসভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেন, আমাদের নেতা এরশাদ সব সময় দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করেছেন। লাঙ্গল আপনাদের প্রতীক। আপনারা লাঙ্গলের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন। আমাদের নেতা যখন জেলে ছিলেন তখন আন্দোলন হয়েছে। কিন্তু কাউকে জেলে যেতে হয়নি। শান্তিপূর্ণ আন্দোলন হয়েছে। মানুষ পরির্বতন চায়,
উন্নয়ন চায়। আমরা ক্ষমতায় এলে উন্নয়ন হবে। আপনাদের যেসব আত্মীয়স্বজন লন্ডনে আছেন তারা সেখান থেকে দেশের উন্নয়ন দেখে দেশে চলে আসতে চাইবেন। তাই আমরা মনে করি জাতীয় পার্টির বিকল্প নেই।

জেলা জার্তীয় পার্টির আহ্বায়ক ও সুনামগঞ্জ-সদর বিশ্বম্ভপুর আসনের সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিছবাহর সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ এমপি, সিলেট-২ আসনের সংসদ সদস্য এহিয়া চৌধুরী, সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল মজিদ প্রমুখ।

সভা পরিচালনা করেন জাতীয় পার্টির সাবেক প্রচার সম্পাদক গোলাম হোসেন অভি। জনসভার আগে সুনামগঞ্জ সদর ও বিশ্বম্ভপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে জাতীয় পার্টির হাজার হাজার নেতাকর্মী এসে জড়ো হন সরকারি জুবিলী উচ্চ
বিদ্যালয় মাঠে।

এরশাদের আগমন উপলক্ষে সুনামগঞ্জ-৪ আসনের পাশাপাশি অন্য আসনগুলোর নেতারাও ব্যানার-ফেস্টুন টানিয়ে দলের চেয়ারম্যানের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করেছেন।  

 

 

বাংলাদেশ  সময়:  ১৬১৭ ঘন্টা, সেপ্টেম্বর ১৬,  ২০১৮
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa