ঢাকা, রবিবার, ১ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আইন ও আদালত

সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে ট্রাইব্যুনাল সরাতে চিঠি

বাংলানিউজ টিম | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪০৮ ঘণ্টা, আগস্ট ২৩, ২০১৬
সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে ট্রাইব্যুনাল সরাতে চিঠি

ঢাকা: সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের চেম্বার ও এজলাস সংকটের কারণ দেখিয়ে আগামী ৩১ অক্টোবরের মধ্যে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে অন্যত্র সরিয়ে নিতে আইন মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন।

আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো এক চিঠিতে নির্দেশক্রমে এ অনুরোধ জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রার আবু সৈয়দ দিলজার হোসেন।

১৮ আগস্টের স্বাক্ষরিত চিঠিটি মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) দুপুরে আইন মন্ত্রণালয়ে পৌঁছে।

চিঠিতে বলা হয়, ‘সুপ্রিম কোর্টে পর্যাপ্ত স্থানাভাবে বিচারপতিদের প্রয়োজনীয় চেম্বার ও এজলাসের ব্যবস্থা করা সম্ভব হচ্ছে না। তাছাড়া স্থান সংকুলান না হওয়ার কারণে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক চেম্বার/অফিসের ব্যবস্থা করা যাচ্ছে না। ভবিষ্যতে বিষয়টি আরো প্রকট হবে বিধায় জরুরি ভিত্তিতে বিচারপতিদের চেম্বার ও এজলাস এবং কর্মকর্তা কর্মচারীদের অফিস ব্যবহারের নিমিত্তে প্রয়োজনীয় স্থানের ব্যবস্থা করা আবশ্যক’।

‘এ সমস্য দূরীকরণে পুরাতন হাইকোর্ট ভবন (ট্রাইব্যুনাল) সুপ্রিম কোর্টের বুঝে পাওয়া একান্ত অপরিহার্য’।

চিঠিতে আরো বলা হয়,‘বিষয়টি নিয়ে প্রধান বিচারপতি ও আইনমন্ত্রীর সঙ্গে মৌখিকভাবে আলোচনা হয়েছে’।

‘এমতাবস্থায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল স্থানান্তর  করত: আগামী ৩১ অক্টোবরের মধ্যে সুপ্রিম কোর্টের পুরাতন হাইকোর্ট ভবনটি (ট্রাইব্যুনাল) স্থানান্তরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো’।  

আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক বাংলানিউজকে জানান, ট্রাইব্যুনালের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জায়গার সংকুলান হচ্ছে না বলে চিঠি দেওয়া হয়েছে আইন মন্ত্রণালয়কে।

সচিব জানান, প্রধান বিচারপতির পক্ষে এ চিঠি দেওয়া হয়।

একাত্তরে সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের জন্য ২০১০ সালের ২৫ মার্চ বিচারপতি নিজামুল হককে চেয়ারম্যান, বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীর ও অবসরপ্রাপ্ত জেলা জজ একেএম জহির আহমেদকে সদস্য করে গঠন করা হয় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

এরপর আরও তিনজনকে যোগ করে প্রথম ট্রাইব্যুনালের বিচারক এটিএম ফজলে কবীরকে চেয়ারম্যান করে ২০১২ সালের ২৩ মার্চ দ্বিতীয় ট্রাইব্যুনাল গঠিত হয়। যদিও বর্তমানে একটি ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। অন্যটি নিষ্ক্রিয় রয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০৩ ঘণ্টা, আগস্ট ২৩, ২০১৬
এসএমএ/ইএস/এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa