ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ৩০ জুন ২০২২, ২৯ জিলকদ ১৪৪৩

আইন ও আদালত

ধানের শীষের প্রার্থী পাশার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬৩৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৮
ধানের শীষের প্রার্থী পাশার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী

সিলেট: সুনামগঞ্জ-৩ (জগন্নাথপুর-দক্ষিণ সুনামগঞ্জ) আসনের ২০ দলীয় জোট প্রার্থী অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরীর বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাত মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাত মামলায় মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) সিলেটের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালত এই পরোয়ানা জারি করেন।  

শাহীনুর পাশা চৌধুরী জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব।

ওই আদালতের পিপি মাহফুজুর রহমান বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, তার বিরুদ্ধে যুক্তরাজ্যপ্রবাসী এক ব্যবসায়ীর সঙ্গে প্রতারণা করে আবাসন ব্যবসার নামে ৩২ লাখ ২০ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে। ওই মামলায় মঙ্গলবার সিলেটের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক এই পরোয়ানা জারি করেন।

তিনি বলেন, শাহীনুর পাশাকে গ্রেফতারে সিলেট কোতোয়ালি ও তার সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর থানায় গ্রেফতারি পরোয়ানা পাঠানো হয়েছে।

আদালত সূত্র জানায়, যুক্তরাজ্য প্রবাসী ঢাকার বনানীর বাসিন্দা মোহাম্মদ আলী তালুকদার মামলার বাদী হয়ে গত ১৩ ডিসেম্বর আদালতে প্রতারণার অভিযোগ এনে মামলা করেন।

অভিযোগে জানা গেছে, ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী শাহীনুর পাশার সঙ্গে যুক্তরাজ্যে পরিচয় হয় বাদীর। তিনি সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের পাশে তার ‘মাতৃভূমি হাউজিং ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড’ কোম্পানির আবাসন প্রকল্প দেখিয়ে ৩০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করান এবং বাদীকে প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক হওয়ার প্রস্তাব দেন। ২০১২ সালের ৪ নভেম্বর থেকে কয়েক দফায় ৩২ লাখ ২০ হাজার টাকা দেন। আর শাহীনুর পাশা বাদীর অজ্ঞাতসারে প্রকল্পটি বিক্রি করেন। পরবর্তীতে বার বার যোগাযোগ করা হলেও টাকা দেননি পাশা।

এ বছরে টাকা পরিশোধের জন্য ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের পাঁচ লাখ টাকার একটি চেক দেন। ওই ব্যাংকের পৃথক আরও তিনটি চেকসহ মোট ২০ লাখ টাকার চেক দিলেও টাকা উত্তোলনে ঢাকাস্থ গুলশান শাখার ব্র্যাক ব্যাংকে চেক জমা দিলে ডিজঅনার হয়।

অথচ গত ২২ অক্টোবর শাহীনুর পাশা তার পরিচিত এই মামলার সাক্ষীর উপস্থিতিতে পাওনা টাকার কথা অস্বীকার করেন। এ কারণে তিনি মামলা দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে জানতে শাহীনুর পাশা চৌধুরীর মোবাইলে যোগাযোগ করা হলেও মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

২০০৫ সালের ২০ জুলাই সুনামগঞ্জ-৩ আসন থেকে উপ-নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম নেতা শাহীনুর পাশা চৌধুরী। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগের প্রার্থী এম এ মান্নানের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজয় বরণ করেন তিনি।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলের প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ প্রতীকে সুনামগঞ্জ-৩ আসনে এমপি প্রার্থী হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে আছেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান।

বাংলাদেশ সময়: ০১৩৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৮
এনইউ/আরআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa