ঢাকা, শনিবার, ৮ মাঘ ১৪২৮, ২২ জানুয়ারি ২০২২, ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

আইন ও আদালত

‘তদন্তে ব্যর্থতায় দুই তরুণী ন্যায়বিচার বঞ্চিত’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৩৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ১১, ২০২১
‘তদন্তে ব্যর্থতায় দুই তরুণী ন্যায়বিচার বঞ্চিত’

ঢাকা: দুর্বল তদন্ত প্রতিবেদনের কারণে আপন জুয়েলার্সের কর্ণধার দিলদার হোসেনের ছেলে সাফাত আহমেদসহ পাঁচ আসামি খালাস পেয়েছেন। এমন অভিযোগ করেছে মামলার বাদীপক্ষ।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় বাদীপক্ষের আইনজীবী ফারুক আহাম্মদ বলেন, ‘ট্রাইব্যুনালের রায়ে এটা প্রমাণিত হয়েছে যে, মামলাটি মিথ্যা নয়। মিথ্যা হলে ট্রাইব্যুনাল ভিকটিম বাদীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১৭ ধারায় প্রসিকিউশন দাখিলের নির্দেশ দিতেন। ঘটনার অনেক দিন পর মেডিক্যাল হওয়ায় সেখানে স্বভাবিকভাবে ধর্ষণের আলামত আসবে না। তাই এ মামলায় পারিপার্শিক সাক্ষী ও আসামিদের স্বীকারোক্তিই ভরসা ছিল। মূলত সঠিক তদন্ত না হওয়ায় আজ দুই ভুক্তভোগী ন্যায়বিচার বঞ্চিত হলেন, যার কারণে আদালত তদন্তকারী কর্মকর্তাকে ভর্ৎসনা করেছেন। ’ 

রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘এই মামলার রায়ের পর একজন ভিকটিমের মায়ের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। তিনি রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে জানতে তারা চেয়েছিলেন। আমি উচ্চ আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছি। ’

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আফরোজা ফারহানা আহমেদ অরেঞ্জ বলেন, ‘আমরা রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে চেষ্টা করেছি। অভিযোগ প্রমাণে আমাদের কোনো গাফিলতি ছিল না। তারপরও আদালত আসামিদের খালাসের আদেশ দিয়েছেন। এ রায়ে আমরা সংক্ষুদ্ধ। ’

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ১১, ২০২১
কেআই/জেএইচটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa