ঢাকা, শনিবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৮ মে ২০২২, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩

আইন ও আদালত

তাহসানের জামিন শুনানিতে যা বললেন হাইকোর্ট

স্পেশাল  করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২০, ২০২২
তাহসানের জামিন শুনানিতে যা বললেন হাইকোর্ট তাহসান খান

ঢাকা: যে কোনো কোম্পানির অ্যাম্বাসেডর হওয়ার আগে সেলিব্রেটিদের নিজেদের অবস্থানের প্রতি খেয়াল রাখা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। কারণ সেলিব্রেটিদের যুবসমাজ আইডল মনে করে, মডেল মনে করে, আদর্শ মনে করে।

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রতারণামূলক কর্মকাণ্ডে সহযোগিতা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগের মামলায় অভিনেতা ও গায়ক তাহসান খানের আগাম জামিন শুনানিতে এমন মন্তব্য করেন উচ্চ আদালত।

শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন  ও বিচারপতি খিজির হায়াতের ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ তাকে ৬ সপ্তাহের জামিন দেন।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সানজিদা খানম।  রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মহিউদ্দিন দেওয়ান।

শুনানিতে আদালত বলেন, “আপনাদেরকে (তাহসান) দেখলে তো মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ে। এ দেশে মাশরাফি যখন কোনো ব্র্যান্ডের অ্যাম্বাসেডর হন, যাদের নাম দেখতেছি এরা যদি অ্যাম্বাসেডর হন, তার ভেতরে জিনিস থাকুক আর না থাকুক কিছু কিছু লোক আছে পাগলের মতো দৌড়বে। আপনারা সেই গুডউইলটাকে পুঁজি করলেন। আপনারা দেখলেনও না। যারা এখানে অ্যাম্বাসেডর হয়েছেন তাদের জন্যই তো কোটি কোটি টাকা দেশের গচ্ছা গেলো!”

তখন আইনজীবী বলেন, “মাই লর্ড আমি (তাহসান) নিজেও লুজার। এই মামলা হওয়ার আগে আমি কন্ট্রাক্ট ক্যানসেল করেছি। আমি কিছুই ছিলাম না। ”

আদালত বলেন, “বিশ্বাস করেন এটা দুঃখজনক। ওনাদের দায়িত্ব অনেক বেশি। সেলিব্রেটিদের দায়িত্ব অনেক বেশি। শচীন টেন্ডুলকারের একটা ঘটনা বলি। শচীন টেন্ডুলকারকে জার্মানির একটা কোম্পানি গাড়ির বিজ্ঞাপনের জন্য নিল। বিজ্ঞাপনের পর টাকা (অ্যাড মানি) দিল। তারপর একটা গাড়ি গিফট করলো। সেই গাড়িটা যখন দেশে আসলো, রেজিস্ট্রেশন করার জন্য টাকা দিতে হচ্ছে। তখন তিনি বললেন, এই গাড়ি আমি নেবো না। আপনারা গাড়িটা ফিরিয়ে নিয়ে যান। পরে কোম্পানি ট্যাক্স দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে দিল। দেখেন তার দায়িত্ব পালন কেমন ছিল। যে আমি দেশের টাকায় রেজিস্ট্রেশন করবো না। ”

আইনজীবী সানজিদা খানম বলেন, “আমার শুধু তিন মাসের কন্ট্রাক্ট ছিল”।

আদালত বলেন, “এটাই বলছি, কন্ট্রাক্টগুলো যদি আপনারা না দেখে করেন, আপনাদের দেখে তো যুবসমাজ কীভাবে হুমড়ি খেয়ে পড়ে। ”

তখন আইনজীবী বলেন, “মামলার আগে কন্ট্রাক্ট বাতিল হয়েছে। দায়বদ্ধতা থেকে রিজাইন করেছে এবং সেটা এক্সসেপ্ট হয়েছে। ”

এ সময় আদালত বলেন, “আপনাদের যে অবস্থান সেটার প্রতি খেয়াল রাখা উচিত। সাধারণ মানুষ আপনাদের আইডল মনে করে, মডেল মনে করে, আদর্শ মনে করে। তারা ভুলক্রুটি করে না। মিথ্যা বলতে পারে না। ”

এর আগে গত ১৩ ডিসেম্বর এ মামলায় অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও শবনম ফারিয়াকে আগাম জামিন দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।

গত বছরের ৪ ডিসেম্বর রাজধানীর ধানমন্ডি থানায় সাদ স্যাম রহমান নামে ইভ্যালির এক গ্রাহক তাহসান খান, রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও শবনম ফারিয়াসহ নয়জনের নামে মামলা দায়ের করেছিলেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, প্রতারণামূলকভাবে গ্রাহকদের টাকা আত্মসাৎ ও সহায়তা করা হয়েছে। আত্মসাৎ করা টাকার পরিমাণ ৩ লাখ ১৮ হাজার টাকা, যা উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকরাম আলী মিয়া তখন বাংলানিউজকে বলেছিলেন, সাদ স্যাম রহমান নামে ইভ্যালির এক গ্রাহক ১১ ডিসেম্বর ধানমন্ডি থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় ইভ্যালির এমডি মোহাম্মদ রাসেল, চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন, জনপ্রিয় তারকা তাহসান খান, রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও শবনম ফারিয়াসহ নয়জনকে আসামি করা হয়েছে।

এই মামলায় ইভ্যালির এমডি মোহাম্মদ রাসেল ও চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। বাকিদের বিষয়ে তদন্ত চলছে।

মামলায় বাদী কী অভিযোগ করেছেন জানতে চাইলে ওসি বলেন, মামলার আসামিরা বাদীর ৩ লাখ ১৮ হাজার টাকা আত্মসাৎ ও এ কাজে সাহায্য করেছেন। নিজের ওই টাকা এখনো উদ্ধার করতে পারেননি ভুক্তভোগী। তাই বাধ্য হয়ে থানায় মামলাটি করেছেন ভুক্তভোগী সাদ স্যাম।

জানা যায়, আলোচিত-সমালোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে গায়ক-অভিনেতা তাহসান খান শুভেচ্ছাদূত হিসেবে যুক্ত ছিলেন। আর রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ‘ইভ্যালি’র ‘ফেস অব ইভ্যালি লাইফস্টাইল’ শুভেচ্ছাদূত হিসেবে যুক্ত ছিলেন। আর প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা হিসেবে যোগ দেন অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া। তবে তবে গত জুনে বড় অঙ্কের বেতনে ইভ্যালির প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা হিসেবে যোগ দেওয়া শবনম ফারিয়ার বেতনের অধিকাংশ বকেয়া।

অন্যদিকে, ১০ মার্চ ইভ্যালির ‘ফেইস অব ইভ্যালি’ (শুভেচ্ছাদূত) ঘোষণা করা হয় তাহসানকে। তিনি শুভেচ্ছাদূত হওয়ার পরের মাস থেকে প্রতিষ্ঠানটি বিতর্কিত কর্মকাণ্ড ও গ্রাহকের পণ্য সময়মতো পৌঁছে না দিতে পারায় তোপের মুখে পড়ে। সবদিক বিবেচনা করে মে মাসের মাঝামাঝি সময় ইভ্যালি থেকে স্বেচ্ছায় সরে যান তাহসান। একই পথে হাঁটেন রাফিয়াত রশিদ মিথিলা।

আরও পড়ুন:
ইভ্যালি কাণ্ড: হাইকোর্টে তাহসানের আগাম জামিন

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২০, ২০২২
ইএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa