ঢাকা, শনিবার, ৭ কার্তিক ১৪২৮, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

লাইফস্টাইল

বেইলী রোডে ঈদ শপিং

জেসমিন নাহার লাকি | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩৩৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৬, ২০১০
বেইলী রোডে ঈদ শপিং

ঈদের আর বেশি বাকি নেই। ঈদের কেনাকাটায় ব্যস্ত সবাই।

যারা এখনও কর্মব্যস্ততার মাঝে অবসর করে নিতে পারেননি, ভাবছেন কাজগুলো গুছিয়েই শপিংয়ে চলে যাবেন, তারা জেনে নিন বেইলী রোডের কয়েকটি ফ্যাশন হাউসের ঈদ কালেকশন সম্পর্কে

সাদাকালো
বরাবরের মতোই আছে শাড়ি, পাঞ্জাবি, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া এবং ছোটদের পোশাক। শাড়ির দাম পড়বে ৯০০ থেকে ১৫ হাজার টাকার মধ্যে। বড়দের জন্য পাঞ্জাবি ৬২০-২৫০০ টাকার মধ্যে। ছোটদের পাঞ্জাবি পাবেন ৩৮০-২৫০০ টাকার মধ্যে। ছেলেদের ফতুয়া ৫৫০-৬৮০ টাকা এবং মেয়েদের ফতুয়া ৫৫০-১৫৫০ টাকার মধ্যে। সালোয়ার-কামিজ পাবেন ১০০০-৪০০০ টাকার মধ্যে। এছাড়াও জুয়েলারি সামগ্রী যেমন মাটি বা সুতার তৈরি কানের দুল, নেকলেস সেট, গলার সেট, হাতের চুরি, ব্রেসলেট ইত্যাদি পাবেন ৫০-৬০০ টাকার মধ্যে।

কে ক্রাফট
কে ক্রাফটে সুতি শাড়ি পাবেন ৪৬৫-১১০০০ টাকার মধ্যে। সিল্কের দাম পড়বে ৩৫০০-৫০০০ টাকার মধ্যে। মসলিনের শাড়ি পাবেন ৩৫০০-১১০০০ টাকায়। মেয়েদের সালোয়ার-কামিজ ১২৫০-৫৫০০ টাকার মধ্যে।
ছেলেদের ফতুয়া পাবেন ৪৫০-১৫০০ টাকায়। মেয়েদের ফতুয়া ২৫০-১৫০০ টাকায়। পাঞ্জাবি ৭৫০-৫৫০০ টাকার মধ্যে।
ছোটদের পোশাকের দাম পড়বে ১৯০-১৫০০ টাকায়। জুয়েলারি সামগ্রী, যেমন- চুড়ি, মাটির সেট, কাঠের সেট, ঝুমকা, মেটাল, সেটান এবং রুপার সামগ্রীও পাওয়া যাবে। দাম পড়বে ১০ টাকা থেকে ৫৭০ টাকার মধ্যে।

দেশাল
ব্লকের শাড়ি ৫০০-৯০০ টাকায়। জামদানি শাড়ির দাম পড়বে ৩,০০০ থেকে ১৩,০০০ টাকা। ফতুয়া ৩৫০-৫০০ টাকা, পাঞ্জাবি ৫০০-৭৫০ টাকা। জুয়েলারির মধ্যে আছে বালা, দুল, হাঁসুলি। দাম ৫০-৬০০ টাকা। দেশালে এই প্রথম স্যান্ডেলের কালেকশন এসেছে। আপনি আপনার পছন্দমতো স্যান্ডেল কিনতে পারবেন ৭৫০-১৫২০ টাকার মধ্যে।

অঞ্জন’স
অঞ্জন’সের শাড়ির মধ্যে এন্ডিকটন পাবেন ৪৫০০-২০,০০০ টাকায়, মসলিন পাবেন ৪৫০০-৩০,০০০ টাকায়।
হাফ সিল্ক পাবেন ২০০০-৫০০০ টাকায়। টাঙ্গাইলের কটন পাবেন ৭০০-২০০০ টাকায় আর এন্ডিসিল্ক পাবেন ২০,০০০ টাকায়। এসব শাড়িতে ব্লক, স্ক্রিন প্রিন্ট, এমব্রয়ডারি, হাতের কাজ এবং কারচুপির কাজ করা আছে।
পাঞ্জাবির কালেকশনগুলোতেও আছে বৈচিত্র্য। সুতি পাঞ্জাবি পাবেন ৫৬০-১৫,০০০ টাকায়, এন্ডিকটন পাবেন ১২০০-২০০০ টাকায়, সিল্ক পাবেন ১৮০০-২০০০ টাকায়, এন্ডিসিল্ক পাবেন ১৯০০-৩০০০ টাকায়। বাচ্চাদের পাঞ্জাবির মধ্যে কটন পাবেন ৩৫০-৮৫০ টাকায় আর এন্ডিকটন পাবেন ৯০০-১২০০ টাকায়। মেয়েদের ফতুয়া জয়সিল্কের কাপড়ে ১২০০-১৩০০ টাকা, এন্ডিকটন ৯০০-১২০০ টাকা, কটন ৩৫০-১২০০ টাকা।

ছেলেদের ফতুয়া জয়সিল্কে ১২০০-১৩০০ টাকা, এন্ডিকটন ৯০০-১২০০ টাকা, কটন ৩৫০০-৭৫০ টাকা। সালোয়ার-কামিজ পাবেন জয়সিল্ক, মসলিন, এন্ডিসিল্ক, এন্ডিকটন, সিল্ক কটন, সিল্ক এবং কটন কাপড়ে। জয়সিল্কের দাম ৪২৫০ টাকা, মসলিন ৫০০০-৬০০০ টাকা। এন্ডিসিল্ক ৪৫০০-৬০০০ টাকা, এন্ডিকটন ২৫০০-৪০০০ টাকা, সিল্ককটন ১৮০০-২২০০ টাকা, কটন ১০৫০-২৫০০ টাকা এবং সিল্ক ৫০০০-৬০০০ টাকা। বাচ্চাদের ফতুয়ার দাম পড়বে ২৫০-৩০০ টাকা এবং সালোয়ার-কামিজের দাম পড়বে ৮৫০-১৩০০ টাকার মধ্যে। অঞ্জন’সেও এই প্রথম স্যান্ডেলের কালেকশন পাওয়া যাবে, দাম ৭২০ টাকা (শুধু ছেলেদের জন্য)। জুয়েলারির মধ্যে নতুন কালেকশন আছে। রুপার বালা ১১৩৫ টাকা, কানের দুল ২১৫-৮৪০ টাকা, পায়েল ১১৫-১১৫০ টাকা, গোল্ড প্লেটেড পায়েল ৭০০-১৫০০ টাকা।

রঙ
রঙের পোশাকে রয়েছে এবার উজ্জ্বল রঙের সাথে হালকা ও গাঢ় অ্যাশের সমাহার। সুতি শাড়ির দাম ৪৫০-৩০০০ টাকা, মার্সেলাইজ কটন ৭৫০-৩০০০ টাকা, কাতান ১০ হাজার টাকা, এন্ডি সিল্ক ১০ হাজার টাকা। জামদানির দাম পড়বে ১০ হাজার থেকে ২৫ হাজার টাকা এবং মসলিন ১০ হাজার থেকে ১৫ হাজার টাকা। এ বছরই প্রথমবারের মতো রঙের শাড়িতে রিবন ওয়ার্ক করা হয়েছে। বাচ্চাদের স্কার্ট পাবেন ৭০০-১০০০ টাকায়, ফতুয়া ১০০০ টাকা এবং টপস ৩৫০-১০০ টাকা, ফ্রক ৪০০-১৩০০ টাকা, শার্ট ১০০০ টাকা এবং টি শার্ট ১৮০-২৫০ টাকায়।
মেটাল, রুপা কিংবা গোল্ড প্লেটেড জুয়েলারি পাবেন ৫০-১০০০ টাকায়। স্যান্ডেলের দাম পড়বে ১০০০ টাকা।

অন্যমেলা
মসলিনের সালোয়ার-কামিজ পাবেন ৪৪৪৫-৫৭৭৫ টাকা, বলাকা সিল্কের দাম পড়বে ৪৪৪৫-৫০০০ টাকা, এন্ডিকটন ৩০০০-৪০০০ টাকা, এন্ডিসিল্ক ২৯৯৫-৪৯৯৫ টাকা।

শাড়ি পাবেন বলাকা সিল্ক, ৬০০০-১২,২৫৫ টাকা টাকা, মসলিন ৭,৭৭৫-১২৪৪৫ টাকা, এন্ডিসিল্ক ২,৪০০-২৯৯৫ টাকা, খাদি মসলিন ৩৭৭৫ টাকা, কটন ১৪০০-১৬০০ টাকা, বিন্দিকাতান, ২৪০০-২৭০০ টাকা। পাঞ্জাবি পাবেন এন্ডিকটনে, দাম ১৩৮৫-১৪৮৫ টাকা, এন্ডিসিল্ক ১৭৮৫-১৮৮৫ টাকা, ন্যাচারাল এন্ডি এবং ইয়ান্ডাই পাবেন ১৩৮৫-১৪৮৫ টাকায়। জয়সিল্কের পাঞ্জাবি পাবেন ১৪০০-১৮৮৫ টাকায়।

ধুপিয়ান সিল্ক পাবেন ২৯৯৫-৪৫৫৫ টাকায়। ছেলেদের ফতুয়া পাবেন ৩৮৫-১০৮৫ টাকায় এবং মেয়েদের ফতুয়া পাবেন ৬৮৫-১১৮৫ টাকায়। ফতুয়াগুলো হবে সুতি, সিল্ক এবং জয়সিল্কের কাপড়ে।  

বাংলাদেশ স্থানীয় সময় ২৩১০, সেপ্টেম্বর ০৬, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa