ঢাকা, শনিবার, ৭ বৈশাখ ১৪৩১, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১০ শাওয়াল ১৪৪৫

লাইফস্টাইল

অনন্য রুচিশীল ব্যক্তিত্ব বঙ্গবন্ধু 

শারমীনা ইসলাম, লাইফস্টাইল এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৩৩ ঘণ্টা, মার্চ ১৭, ২০২১
অনন্য রুচিশীল ব্যক্তিত্ব বঙ্গবন্ধু  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান

বিশ্বের বুকে নতুন দেশের মানচিত্র গড়ে দিয়েছেন, মুক্তির স্বাদ আর স্বাধীনতার সম্মান এনে দিয়েছেন আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু।  
আজ থেকে শতবর্ষ আগে বাংলার বন্ধু, বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা শেখ মুজিবের জন্ম হয়।

তিনি এসেছিলেন বলেই আজ বাংলাদেশি হিসেবে নিজেদের পরিচয় দিতে পারি আমরা।  

পুরো জীবনটাই তিনি কাটিয়ে দিয়েছেন সাধারণ মানুষকে ভালোবেসে, তাদের ভালো থাকার জন্য ত্যাগ করেছেন নিজের সব স্বার্থ। মানুষের অধিকার আদায়ে মাঠে থেকেছেন, জেল খেটেছেন কত না নির্যাতন সয়েছেন হাসি মুখে।  

একটা সময় ঘুরেও দাঁড়িয়েছেন, ডাক দিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ-স্বাধীনতার সংগ্রামের। যার একটি ডাকে সারা দেশের লোক এক হয়ে নিজের জীবন তুচ্ছ করে যুদ্ধে যোগ দিয়ে দেশকে স্বাধীন করে আনে। তিনি তো অনন্য এক নেতা।  

সারা বিশ্বে প্রতিটি বাঙালির হৃদয়ে শেখ মুজিব রয়েছেন ভালোবাসা আর শ্রদ্ধার সর্বোচ্চ স্থানে। নতুন প্রজন্মের অনেকেই জানতে চান কেমন ছিলেন সেই নেতা, কেমন ছিল তার ব্যক্তি জীবন, যার এক ডাকে লাখো মানুষ জীবন দিতেও ভাবেনি একটিবার! 

কালজয়ী নেতৃত্বে তিনি ছিলেন পাহাড়ের মতো অবিচল, কিন্তু ব্যক্তিজীবনে মুজিব ছিলেন সাদামাটা-সাধারণ একজন প্রিয়তম স্বামী আর স্নেহশীল পিতা।  
বঙ্গবন্ধুর জীবন যাপনে দেখা যায়, তিনি ছিলেন পরিপাটি ও ফ্যাশন সচেতন। এখন থেকে ৫০ বছরের বেশি সময় আগে তিনি যেসব পোশাক পরেছেন, এখনো মানুষ সেই পোশাক পরতে চায়। রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে হালের জনপ্রিয় মডেল অনেকেই মুজিব কোট পরছেন।  

মহাত্মা গান্ধীর খাদি কাপড়ের ধূতি ও চাদর, চেগুয়েভারার মিলিটারি কোট ও ক্যাপের স্টাইলসহ বিশ্বে যেসব রাজনৈতিক নেতার ব্যক্তিত্ব ও পোশাক-পরিচ্ছদ আজও আমাদের মনের ভেতরে গেঁথে রয়েছে তাদের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর মুজিব কোট অন্যতম। পায়জামা-পাঞ্জাবির সঙ্গে কালো কোট, মোটা ফ্রেমের চশমা হাতে বাঁ ঠোঁটে পাইপ—এমন ব্যক্তিত্ব বিশ্ব রাজনীতিতে বিরল।  

সাধারণত তিনি শার্ট, প্যান্ট, পাজামা, পাঞ্জাবি, শেরওয়ানি, কোট, টাই ও মুজিব কোট পরতেন। অনুষঙ্গ হিসেবে থাকতো  জুতা, স্যান্ডেল, চশমা ও পাইপ। পায়ের জুতা থেকে শুরু করে গায়ের সাদা পাঞ্জাবি ও কালো কোটেও ছিল রুচির ছোঁয়া। তবে দেশের বাইরে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সম্মেলনে ফিটিং স্যুট, প্রিন্স কোট, সাফারি স্যুটও পরতে দেখা গেছে বঙ্গবন্ধুকে।  

জানা যায়, বঙ্গবন্ধু প্রথমে যে মুজিব কোটটি পরেছিলেন, সেটি ছিল দেশি খাদি কাপড়ের তৈরি। একজন নেতা কতটা দেশপ্রেমিক হলে পোশাকের মধ্যেও দেশপ্রেম ধারণ করতেন, তার প্রমাণ আমাদের গর্ব শেখ মুজিবুর রহমান। তার কোটে ছয়টি বোতাম ব্যবহার হতো। এই ছয়টি বোতাম ব্যবহার করার কারণ হলো ১৯৬৬ সালের ছয় দফা আন্দোলনের প্রতীক।  


সাদা পাঞ্জাবি আর কালো কোট, এভাবে সাদা-কালোর কম্বিনেশন ছিল বঙ্গবন্ধুর পোশাকে। সাদা শান্তি ও পবিত্রতার প্রতীক আর কালো মুজিব কোট ছিল প্রতিবাদের প্রতীক।  
শেখ মুজিবের বঙ্গবন্ধু ও জাতির পিতা হয়ে ওঠার সংগ্রামে সব সময় পাশে থেকে সাহস জুগিয়েছেন, তার অবর্তমানে একহাতে সংসার-সন্তান সামলেছেন জাতির পিতার সহধর্মিণী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব।

শেখ মুজিবের হাঁটা-চলা, তার কথা বলা সব কিছুতেই বেরিয়ে এসেছে তার অনন্য রুচিশীল ব্যক্তিত্ব।  


বাংলাদেশ সময়: ০৯২৭ ঘণ্টা, মার্চ ১৭, ২০২১
এসআইএস
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।