ঢাকা, বুধবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৯ মে ২০২৪, ২০ জিলকদ ১৪৪৫

মালয়েশিয়া

প্রবাসীদের প্রয়োজন সঠিক বিনিয়োগ: ফারজানা মজুমদার

মাজেদুল নয়ন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪৭ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০১৪
প্রবাসীদের প্রয়োজন সঠিক বিনিয়োগ: ফারজানা মজুমদার ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: মালয়েশিয়াসহ পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা প্রবাসীরা জীবনের একটি বড় অংশ ব্যয় করেন প্রবাসে। অর্থ উপার্জনের ব্যস্ততায় কাটিয়ে দেন অনেক সময়।

তবে দেশে ফেরার পর বেশিরভাগ সময়েই কিছু করতে পারেন না। দেশের পরিবেশ পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেয়া কঠিন হয়ে পড়ে। আবার সারাজীবন অর্থ উপার্জন করলেও শেষ কালে এসে দেখা যায়, প্রাপ্তির যোগফল শূন্য।

এমন অভিমত গ্লোবাল এয়ার ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফারজানা মজুমদার এর। সম্প্রতি প্রবাসীদের আয়, ব্যয় ও বিনিয়োগের বিভিন্ন দিক নিয়ে বাংলানিউজের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

আগামী সেপ্টেম্বর মাসের ৬ ও ৭ তারিখ কুয়ালালামপরের মার্দেকা স্কয়ার মিলনায়তনে বাংলাদেশি রেমিট্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট ফেয়ার-২০১৪ আয়োজন করছে তার প্রতিষ্ঠান।

বাংলানিউজের সঙ্গে আলাপে, প্রবাসীরা যেন সঠিক খাতে বিনিয়োগ করতে পারেন, সে বিষয়টিতে গুরুত্ব দেয়ার কথা বলেন ফারজানা।

তিনি বলেন, দেশে অর্থ পাঠিয়ে পরিবারের ব্যয়ভার বহন করলেও পরিকল্পনা থাকে না প্রবাসীদের। তাই থাকে না সঞ্চয়। আবার হয়তো অনেকে ব্যাংকেই শুধু অর্থ জমা করেন।

তিনি বলেন, প্রবাসী ব্যবসায়ী, চাকরিজীবী বা শ্রমিক সবাই কিন্তু একসময় দেশে ফেরার তাগিদ অনুভব করেন। আমি এমন অনেককেই দেখেছি, যারা দেশে ফেরার পর আর অন্য কাজ করতে পারছেন না। ফলে ব্যাংকে জমা অর্থ ভেঙ্গেই চলতে হচ্ছে। আর এর ফলে খুব দ্রুতই আবার দেউলিয়া অবস্থার সৃষ্টি হয়। আর এ কারণেই প্রবাসীদের সঠিক খাতে বিনিয়োগ করতে হবে। যেন শেষ বয়সে এসে নিজেকে অবাঞ্ছিত মনে না হয়।

ফারজানা বলেন, আমাদের অনেক প্রবাসী রয়েছেন, যাদের পরিবার ঢাকায় বাসা ভাড়া করে থাকছেন। দেখা গেছে, বছরের পর বছর বিদেশি অর্থে বিলাসবহুল বাসা ভাড়া করে থাকছে পরিবারটি। কিন্তু উপার্জনকারী লোকটি যখন দেশে ফিরছেন, তখন দেখা যাচ্ছে ওই ভাড়া বাসাতেই থাকছেন। এক সময় বাসা ভাড়া পরিশোধেরও অবস্থা নেই। কারণ, ব্যাংকের জমানো অর্থও এক সময় ব্যয় হয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, অথচ একটি প্লট বা ফ্ল্যাট নিয়ে উপযুক্ত বিনিয়োগ করতে পারেন। দেশে আসার পর নিজের একটি সম্পদ হিসেবে থাকবে সেটি। আর থাকার জন্যে চিন্তা করতে হবে না। এটা হতে পারে প্রবাসীদের জন্যে নিশ্চিন্ত বিনিয়োগ।

কুয়ালালামপুরের বাংলাদেশি রেমিট্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট ফেয়ারের অন্যতম লক্ষ্য থাকবে সঠিক খাতে প্রবাসীদের বিনিয়োগ নিশ্চিত করা। আর এ কারণে বিভিন্ন আবাসন প্রতিষ্ঠানও অংশ নিচ্ছে মালয়েশিয়ার মেলায়।

তিনি জানান, অনেকগুলো হাউজিং কোম্পানির মতো পারটেক্স গ্রুপের ‘সুবর্ণভূমি হাউজিং’ প্রকল্প অংশ নিচ্ছে মেলায়। চাহিদা অনুযায়ী সাধ আর সাধ্যের মধ্যে স্বপ্নের একখণ্ড জমি পাওয়ার সুব্যবস্থা পাবে প্রবাসীরা।   সূবর্ণ ভূমি হাউজিং লিমিটেডের পূর্বাচল ‘সুবর্ণভূমি হাউজিং’ আবাসন প্রকল্প রুচিশীল প্রবাসীদের আকর্ষণ করবে।

একজন প্রবাসী দেশে এসে সব নাগরিক সুবিধা ভোগ করার ইচ্ছে পোষণ করেন। আর সুবর্ণ হাউজিংয়ে আন্তর্জাতিক মানের একাধিক মসজিদ, মাদ্রাসা, মন্দির, গির্জা, বাংলা ও ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, হাসপাতাল, ক্লিনিক, অত্যাধুনিক শপিং সেন্টার ও মার্কেট, কাঁচাবাজার, ব্যাংক বীমা, কমিউনিটি সেন্টার রয়েছে। বিনোদনের জন্যে রয়েছে খেলার মাঠ, পার্ক, ক্লাব, জিমনেশিয়াম, কনভেনশন সেন্টার ও লেক। এছাড়াও ফিলিং স্টেশন, কমন পার্কিং, রেস্টুরেন্ট, হোটেল ট্রেড সেন্টার, ঈদগাহ, কবরস্থানের সুবিধাও রয়েছে।

ফারজানা বলেন, মেলায় এ ধরনের আবাসিক কোম্পানিগুলোতে প্লট বা ফ্ল্যাটের বুকিং দিয়ে নিশ্চিত বিনিয়োগ করতে পারেন প্রবাসীরা।

বাংলাদেশ সময়: ১২১২ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মালয়েশিয়া এর সর্বশেষ