ঢাকা, রবিবার, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২১ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

আমিরাত থেকে ২১৮ কোটি টাকায় সফটওয়্যার কিনবে সরকার

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৪৫ ঘণ্টা, মার্চ ২৩, ২০২৩
আমিরাত থেকে ২১৮ কোটি টাকায় সফটওয়্যার কিনবে সরকার

ঢাকা: ন্যাশনাল সিঙ্গেল উইন্ডো বাস্তবায়ন এবং কাস্টমস আধুনিকায়ন ও জোরদারকরণের লক্ষ্যে সফটওয়্যার সলিউশন অ্যান্ড অটোমেটেড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ সফটওয়ার কিনবে সরকার। ২১৭ কোটি ৯৯ লাখ ২৩ হাজার ৪৯০ টাকায় এ সফটওয়্যার কেনা হবে সংযুক্ত আরব আমিরাতের কাছ থেকে।

বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। আজ অর্থনৈতিক বিষয়ে সপ্তম ও সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ১১তম সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদনের জন্য একটি ও ক্রয় কমিটির অনুমোদনের জন্য সাতটি প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়। ক্রয়ের প্রস্তাবনাগুলোর মধ্যে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের দুটি, কৃষি ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের একটি করে, অভ্যন্তরীণ সম্পদ-জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের একটি করে এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের একটি প্রস্তাবনা ছিল। ক্রয় কমিটির অনুমোদিত সাতটি প্রস্তাবে মোট অর্থের পরিমাণ ১ হাজার ২৯৬ কোটি ৭৫ লাখ ৮৩ হাজার ৭৬০ টাকা। মোট অর্থায়নের মধ্যে জিওবি থেকে ব্যয় হবে ৭১১ কোটি ২০ লাখ ৩৮ হাজার ২৫৮ টাকা এবং দেশীয় ব্যাংক, এডিবি ও বিশ্বব্যাংক ঋণ ৫৮৫ কোটি ৫৫ লাখ ৪৫ হাজার ৫০২ টাকা।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাঈদ মাহবুব খান সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের জাতীয় রাজস্ব বোর্ড কর্তৃক বাংলাদেশ আঞ্চলিক যোগাযোগ প্রকল্প-১ ন্যাশনাল সিঙ্গেল উইন্ডো বাস্তবায়ন এবং কাস্টমস আধুনিকায়ন ও জোরদারকরণ প্রকল্পের আওতায় সফটওয়্যার সলিউশন অ্যান্ড অটোমেটেড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সফটওয়ার কিনবে সরকার। সংযুক্ত আরব আমিরাতের ওয়েব ফন্টেইন গ্রুপ এফজেইডি-এলএলসি থেকে এ সফটওয়্যার কেনা হবে। এতে মোট ব্যয় হয় হবে ২১৭ কোটি ৯৯ লাখ ২৩ হাজার ৪৯০ টাকা।

ক্রয় কমিটির বৈঠকে অনুমোদিত অন্যান্য প্রস্তাবগুলো হলো- সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অধীন সড়ক এবং জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক মো. মাইনউদ্দিন (বাসি) লিমিটেড থেকে বরিশাল-ভোলা-লক্ষ্মীপুর সড়কের বরিশাল হতে ভোলা হয়ে লক্ষ্মীপুর পর্যন্ত যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্পের ভেরিয়েশন বাবদ অতিরিক্ত ১৫ কোটি ২১ লাখ ৬৬ হাজার ৫৩৬ টাকা ব্যয় বৃদ্ধির ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অধীন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের অপর এক প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে টেকনিকেল অ্যাসিস্ট্যান্স ফর রোড ট্রান্সপোর্ট কানেক্টিভিটি ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট প্রিপারেটরি ফ্যাসিলিটি প্রকল্পের আওতায় পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে যৌথভাবে অস্ট্রেলিয়ার এসএমইসি, জাপানের ওসিজি, কোরিয়ার দোহা ইঞ্জিনিয়ারিং এবং বাংলাদেশের ডিডিসি-কে ৪৪ কোটি ৪২ লাখ ২৬ হাজার ৬০০ টাকায় নিয়োগের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এর আগে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে একটি প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রস্তাবটি হলো- নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের অধীন চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক চট্টগ্রাম বন্দরের নিউমুরিং কন্টেইনার টার্মিনালসহ ওভারফ্লো কন্টেইনার ইয়ার্ড পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য আন্তর্জাতিক মানের বেসরকারি অপারেটর নিয়োগ প্রকল্পটি পিপিপি প্রকল্পের জন্য সংগ্রহ নির্দেশিকা ২০১৮ অনুযায়ী পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) ভিত্তিতে বাস্তবায়নের নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪৫ ঘণ্টা, মার্চ ২৩, ২০২৩
জিসিজি/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।