ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

জেসমিনকে আটকের পর তার মোবাইলে প্রতারণার আলামত পায় র‍্যাব

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৩৯ ঘণ্টা, মার্চ ২৮, ২০২৩
জেসমিনকে আটকের পর তার মোবাইলে প্রতারণার আলামত পায় র‍্যাব

নওগাঁ: নওগাঁ শহর থেকে আটকের পর র‌্যাব হেফাজতে সুলতানা জেসমিন (৪৫) নামে ইউনিয়ন ভূমি অফিসের এক কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে।

র‍্যাবের দাবি, জেসমিনকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।  

র‍্যাব-৫ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল রিয়াজ শাহরিয়ার মোবাইল ফোনে বাংলানিউজকে জানান, সরকারের এক কর্মকর্তার পরিচয় ব্যবহার করে চাকরি দেওয়ার নাম করে মানুষের সঙ্গে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিতেন জেসমিন। এমন একটি অভিযোগের ভিত্তিতে গত ২২ মার্চ নওগাঁ শহরের মুক্তির মোড় এলাকা থেকে তাকে আটক করে র‍্যাব। যেহেতু নওগাঁতে র‍্যাবের কোনো ক্যাম্প নেই এজন্য প্রাথমিকভাবে গাড়িতেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছিল। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে র‍্যাব জেসমিনের মোবাইলটি চেক করতে চায়। মোবাইলটি রেখে দিলেও মোবাইলের পাসওয়ার্ড দিতে চাননি জেসমিন। এক পর্যায়ে মোবাইলের পাসওয়ার্ড দিলে তার মোবাইল থেকে প্রতারণার বেশ কিছু আলামত পায় র‍্যাব সদস্যরা।

তিনি জানান, মোবাইল পাওয়ার পর দেখা যায় গত দেড় বছরের তার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ১৯ লাখ ১০ হাজার টাকা জমা হয়েছে। তার মোবাইলে টাকা আসার মেসেজটি স্ক্রিনশট করে রেখেছেন তিনি। টাকাগুলো বিভিন্ন স্থান থেকে পাঠানো হয়েছে তার অ্যাকাউন্টে। পাশাপাশি কয়েকজন প্রতারকের সঙ্গে জেসমিনের এ অভিযোগ সংক্রান্ত কিছু মেসেজও পায় র‍্যাব। এরপর এ বিষয়গুলো নিয়ে যখন তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়, তখন তিনি কিছুটা অস্বস্তি বোধ করেন। জেসমিন বার বার বলছিলেন এসব বিষয়ে যেন তার ছেলেকে না বলা হয়। এক পর্যায়ে জেসমিন গাড়িতে বমি করে দেন। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে নওগাঁ সদর হাসপাতাল নেওয়া হয়। সেখানে তার চিকিৎসা চলাকালে জেসমিনের পরিবারকে খবর দেওয়া হয়। নওগাঁ হাসপাতালেই তার বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়।

এরপর উন্নত চিকিৎসার জন্য তার পরিবারের লোকজনসহ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। রাজশাহী হাসপাতালে তাকে আইসিইউতে রাখা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভর্তির দুদিন পর হার্ট অ্যাটাকজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়।  

জেসমিনকে নির্যাতন করা হয়েছে কিনা এ বিষয়ে জানতে চাইলে রিয়াজ শাহরিয়ার জানান, জেসমিন সরকারি চাকরি করেন এবং তিনি নারী। ফলে আমাদের নারী র‍্যাব সদস্য দ্বারা তাকে ধরা হয়েছে। এখানে কোনো প্রকার শারীরিকভাবে তাকে কিছু করা হয়নি। আমরা জাস্ট মৌখিকভাবে তাকে জিজ্ঞাসা করেছি।

এ ঘটনায় আরও কাউকে আটক করা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, আমরা কাজ করছি। এরইমধ্যে কিছু তথ্য আমাদের কাছে এসেছে। এটা নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি, ইনশাআল্লাহ আমরা পেয়ে যাব।

বাংলাদেশ সময়: ২২৩২ ঘণ্টা, মার্চ ২৮, ২০২৩
আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।