ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৮ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মূল্যায়ন একমাত্র প্রধানমন্ত্রী করেন: শিক্ষামন্ত্রী

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১, ২০২৩
বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মূল্যায়ন একমাত্র প্রধানমন্ত্রী করেন: শিক্ষামন্ত্রী

চাঁদপুর: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান দিয়েছেন। বর্তমানে তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ও মূল্যায়ন করছেন।

শুক্রবার (০১ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় চাঁদপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মিলনায়তনে সদর ও হাইমচর উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ঘর ছোট হতে পারে আপনাদের মন ছোট নয়। আপনাদের মনের ভেতরে একটা করে সমগ্র বাংলাদেশ রয়েছে। দেশ আমাদের মা, এই মায়ের সম্মান রক্ষা করতে জাতির পিতার ডাকে এক কথায় যুদ্ধে চলে গেছেন। নিজের পরিবারের কথা এক ফোঁটাও ভাবেন নাই। চোখের সামনে নিজ সহযোদ্ধাদের হারিয়েও থেমে জান নি। আজকে আপনাদের সেই ত্যাগের কারণে এই স্বাধীন বাংলাদেশ। বর্তমান সরকার বীর মুক্তিযোদ্ধারা ভাতা, চিকিৎসাসহ সব ধরনের সুবিধা দিয়েছেন।

দীপু মনি বলেন, জাতির পিতাকে হত্যার পর সবকিছু নিষিদ্ধ হয়ে গিয়েছিল। ৭৫ এর পরে অসংখ্য মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যা করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু কন্যা ক্ষমতায় এসে প্রথম পাঁচ বছরের অসংখ্য উন্নয়ন করেছেন। ২০০৯ সালে যখন বঙ্গবন্ধুর কন্যা আবারও সরকার গঠন করলেন, একে একে যুদ্ধাপরাধীসহ বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার কার্যক্রম শুরু করেন। গত ১৫ বছরের সবার সহযোগিতায় দেশ পরিচালনার দায়িত্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশ এখন বদলে গেছে। এখন মাছ, ধান উৎপাদনে বিশ্বে আমরা একটা বিশেষ জায়গায় এসেছি। একজন নেতা ঠিক থাকলে যে দেশ ঠিক জায়গায় যায় শেখ হাসিনা তারই প্রমাণ।

সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা লে. (অব.) এম এ ওয়াদুদ।

মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল সদর উপজেলার আহ্বায়ক সুমন সরকার জয়ের সঞ্চালনায় মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে বক্তব্য  দেন, হাইমচর উপজেলা ডেপুটি কমান্ডার হাফেজ আহমেদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান মিয়াজী ও হাইমচর উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল মিজি প্রমুখ।

চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মো. জিল্লুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান ভুঁইয়া, জেলা জজ কোর্টের পিপি অ্যাড. রনজিত রায় চৌধুরী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃণাল সাহা, মহসিন পাঠান, কেন্দ্রীয় যুব লীগের সদস্য ও  মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড কাউন্সিল চাঁদপুর জেলা আহ্বায়ক জাফর ইকবাল মুন্না, জেলা যুব লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুলসহ চাঁদপুর সদর ও হাইমচর উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধারা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ২২৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০১, ২০২৩
এসএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।