ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১৮ মহররম ১৪৪৬

জাতীয়

নাটোরে পদ্মা চরে দেখা মিলল রাসেলস ভাইপারের, আতঙ্ক

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১২৩ ঘণ্টা, জুন ২৩, ২০২৪
নাটোরে পদ্মা চরে দেখা মিলল রাসেলস ভাইপারের, আতঙ্ক

নাটোর: নাটোরের লালপুরে পদ্মার চরে একটি বাদামের জমিতে চারটি বাচ্চাসহ বিষধর রাসেলস ভাইপার (চন্দ্রবোড়া) সাপের দেখা মিলেছে। এসময় এসব সাপকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছেন স্থানীয় কৃষকরা।

 

তবে এ ঘটনায় চরাঞ্চলসহ লালপুর উপজেলায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

শনিবার (২২জুন) দুপুর আড়াইটার সময় উপজেলার বিলমাড়িয়া ইউনিয়নের নসাড়া চরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, আজ সকাল থেকে ওই চরে ৭/৮ জন কৃষক বাদাম ওঠানোর কাজ করছিলেন। এসময় তারা ওই বাদামের জমিতে একটি বড় ও তিনটি বাচ্চা সাপ দেখতে পেয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। পরে তারা এগুলোকে পিটিয়ে মেরে ফেলেন এবং জানতে পারেন এগুলো বিষধর রাসেলস ভাইপার সাপ। এ নিয়ে পদ্মা নদীর চরাঞ্চল তীরবর্তী বসবাস করা মানুষ আতঙ্কে রয়েছেন বলে জানান তারা।

লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বাংলানিউজকে বলেন, প্রথম দিকে বিষয়টি গুজব বলেই জানতাম। তবে বিষয়টি যেহেতু সারা দেশ ব্যাপী স্পর্শকাতর। তাই পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। তবে এনিয়ে আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

এবিষয়ে রাজশাহী বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এস.এম. সাজজাদ হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার জন্য রাসেলস ভাইপার আমাদের রক্ষা করতে হবে। এটা বিষাক্ত সাপ। এনিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকতে হবে। জমিতে কাজ করার ক্ষেত্রে ফুলহাতা শার্ট, জিন্স প্যান্ট ও বুট জুতা পরিধানের পরামর্শ দেন তিনি।

লালপুর  উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. কেএম শাহাবুদ্দিন বলেন,  সাপে দংশন করলে দ্রুত হাসপাতালে নিতে হবে। আমাদের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পর্যাপ্ত অ্যান্টিভেনম রয়েছে। রাসেলস ভাইপার নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১১১৭ ঘণ্টা, জুন ২৩, ২০২৪
এসএএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।