ঢাকা, বুধবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

ঝুঁকিতে চনপাড়া-ডেমরা সেতু

শাকিল আহমেদ, স্টাফ ফটো করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০৫৭ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৬, ২০২১
ঝুঁকিতে চনপাড়া-ডেমরা সেতু ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: বালু নদীর উপর 'চনপাড়া-ডেমরা' সেতুটি ১৯৯২ সালে এক কোটি ১০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়। এই সেতুর উদ্দেশ্যই ছিল নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের সঙ্গে ডেমরার সংযোগ স্থাপন করা।

এই সেতুর নিচ দিয়ে নিয়মিত চলাচল করে শতাধিক বাল্কহেড। এছাড়া হাজার হাজার নৌযানও চলে এই পথে। চলাচলের সময় সেতুটির সঙ্গে জোরে ধাক্কা লাগে বাল্কহেডের উপরের অংশের। এতে পুরো সেতুটি যেমন কেঁপে ওঠে, তেমনি এ ধাক্কার শব্দে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন স্থানীয়রাও।  

অন্যদিকে সেতুটির উপর দিয়ে নিয়মিত চলাচল করে ছোট বড় হাজারও যানবাহন। সেতুটির প্রস্থ কম হওয়ায় একসঙ্গে দুটো গাড়ি পারপার হতে অসুবিধা হয়। তাই অনেক সময় ঘণ্টার পর ঘণ্টা জ্যাম লেগে থাকে এই পথে।

দেখা গেছে, সেতুটির খুঁটির নিচের ও উপরের অংশ অনেক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। সেতুটির উচ্চতা কম থাকায় প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে পারাপারের সময় বাল্কহেডের উপরের অংশ আটকে যায়। বাল্কহেডের ধাক্কায় সেতুটির পিলারের অনেক অংশ ভেঙে গেছে। এছাড়াও সেতুটির অনেক অংশ থেকে বালু খসে পড়ে রড বেরিয়ে গেছে।

শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) চনপাড়া থেকে ডেমরা যাওয়ার পথের সেতুটির এমন দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি করা হয়। এতে দেখা যায় একটি খালি বাল্কহেড সজোরে ধাক্কা দিয়ে সেতুটিতে কম্পন ধরিয়ে দেয়। স্থানীয়দের মতে, সেতুটি পুনর্নির্মাণ না করলে যেকোনো সময় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

স্থানীয় বাসিন্দা কবির হোসেন বাংলানিউজকে জানান, প্রতিদিনই বাল্কহেডের ধাক্কার শব্দ পাই। অনেক সময় বিকট শব্দে আতঙ্কিত হয়ে যাই। মনে হয় কখন জানি ভেঙে পড়ে পুরো সেতুটি। প্রত্যেকদিন অর্ধশতাধিক বার এমন ঘটনা ঘটে থাকে। এতে করে সেতুর পিলারগুলো নড়বড়ে হয়ে যাচ্ছে।

অটোরিকশাচালক নূর ইসলাম মিয়া জানান, প্রতিদিন সকালে এবং বিকেলে এই সেতুটির উপরে যানজট লেগেই থাকে। অনেক সময় আধা ঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টাও বসে থাকতে হয়।

স্থানীয়দের মতে, দ্রুত সময়ের মধ্যে এই সেতুটির সংস্কার না করলে যেকোনো সময়ে এখানে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। এতে প্রাণহানীর আশঙ্কা রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১০৪০ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৬, ২০২১
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa