ঢাকা, বুধবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৯ মে ২০২৪, ২০ জিলকদ ১৪৪৫

অফবিট

বার্ধক্যকে পরাস্ত ১১৭ বছরে পা দিলেন মারিয়া

অফবিট ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২১ ঘণ্টা, মার্চ ৫, ২০২৪
বার্ধক্যকে পরাস্ত ১১৭ বছরে পা দিলেন মারিয়া

১৯০৭ সালে সান ফ্রান্সিসকোতে জন্মগ্রহণকারী বিশ্বের প্রবীণতম জীবিত ব্যক্তি মারিয়া ব্রানিয়াস মোরেরা সোমবার তার ১১৭তম জন্মদিন উদযাপন করেছেন। বিজ্ঞানীরা তাকে নিয়ে এখন গবেষণায় আগ্রহী।

তারা ভাবছেন, বার্ধক্যকে পরাস্ত করার উত্তর তার কাছে থাকতে পারে।

মারিয়া আট বছর বয়স থেকে স্পেনের কাতালোনিয়ায় বসবাস করছেন এবং গত ২৩ বছর একই নার্সিং হোমে কাটিয়েছেন। গত বছরের জানুয়ারিতে ১১৮ বছর বয়সে বেঁচে থাকা ফরাসি নান লুসিল র‌্যান্ডনের মৃত্যুর পর তিনিই এখন সবচেয়ে বয়স্ক জীবিত ব্যক্তি।  

এত বছর বয়সেও মারিয়া সোশ্যাল মিডিয়ায় সক্রিয়। এক্স-এ নিয়মিত তিনি নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন। সোমবার এক পোস্টে তিনি লেখেন, ‘শুভ সকাল, বিশ্ব। আজ আমার বয়স ১১৭ বছর। আমি এতদূর এসেছি। ’

মারিয়ার স্বাস্থ্য এখনও অসাধারণ। ছোটখাটো কিছু অসুস্থতা ছাড়া তিনি দিব্যি জীবন যাপন করছেন। বিজ্ঞানীরা তার এই স্বাস্থ্যের গোপন রহস্য উন্মোচন করার জন্য তার জেনেটিক্স অধ্যয়ন করতে আগ্রহী।  

মারিয়া বৈজ্ঞানিক পরীক্ষায় অংশ নিতে রাজি হয়েছেন, তার ৮০ বছর বয়সী মেয়ের সাথে তুলনা করার জন্য লালা, রক্ত এবং মূত্রের নমুনা সরবরাহ করেছেন।

গবেষকরা আশা করছেন, এই গবেষণাগুলি অ্যান্টি-এজিং ড্রাগগুলিতে অগ্রগতি এবং বয়স-সম্পর্কিত রোগগুলির বিরুদ্ধে লড়াই করবে।

দীর্ঘ জীবনে মারিয়া ১৯১৮ সালের মহামারি, বিশ্বযুদ্ধ এবং স্পেনের গৃহযুদ্ধসহ উল্লেখযোগ্য ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী।

১৯৩১ সালে কাতালান ডাক্তার জোয়ান মোরেটকে বিয়ে করে মারিয়া তার স্বামী এবং তাদের একমাত্র ছেলেকে ছাড়িয়ে গেছেন, যিনি এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় মারা যান।

মারিয়া কোভিড-১৯ থেকেও বেঁচে গেছেন, যদিও তাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছিল।  

বাংলাদেশ সময়: ২১১৬ ঘণ্টা, মার্চ ০৫, ২০২৪
নিউজ ডেস্ক

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।