ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ কার্তিক ১৪২৮, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

অলিম্পিক

অলিম্পিক মিশনে দেশসেরা অ্যাথলেটদের পারফরমেন্স

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২১২ ঘণ্টা, আগস্ট ১৫, ২০১৬
অলিম্পিক মিশনে দেশসেরা অ্যাথলেটদের পারফরমেন্স

ঢাকা: ক্রীড়া বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ আসর অলিম্পিক। বরাবরের মতো এবারের রিও অলিম্পিকে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন দেশ সেরা অ্যাথলেটরা।

লাল-সবুজের হয়ে এবার সাত প্রতিযোগী ব্রাজিল মিশনে যান।

এবারের আসরে বাংলাদেশের হয়ে একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে গলফার সিদ্দিকুর রহমান ওয়াইল্ড কার্ড ছাড়া খেলার সুযোগ পান। অলিম্পিকে বাংলাদেশের অন্যরা ছিলেন দেশসেরা সাঁতারু মাহফিজুর রহমান সাগর ও সোনিয়া আক্তার টুম্পা। শ্যুটিংয়ে কমনওয়েলথ গেমসের রূপাজয়ী আবদুল্লাহ হেল বাকি। আরচ্যারিতে ছিলেন শ্যামলী রায়। স্প্রিন্টের ট্র্যাকে নেমেছিলেন দেশের দ্রুততম মানব-মানবী মেজবাহ আহমেদ ও শিরিন আক্তার।

লাল-সবুজের প্রতিনিধি হিসেবে ব্রাজিল যাওয়া দেশসেরা অ্যাথলেটদের ইভেন্ট শেষ। তাদের পারফর্মগুলো নিচে তুলে ধরা হলো:

গলফে ৫৮তম সিদ্দিকুর:
বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ অ্যাথলেট হিসেবে যোগ্যতার শতভাগ প্রমাণ রেখে সরাসরি রিও অলিম্পিকে অংশ নেন সিদ্দিকুর রহমান। প্রথমবারের মতো অলিম্পিকে অংশ নিয়ে ৬০ জনের মধ্যে ৫৮তম হয়েছেন দেশের সেরা এই গলফার। চার রাউন্ড মিলিয়ে পারের চেয়ে ১১ শট বেশি খেলে রিও অলিম্পিক শেষ করেন এশিয়ান ট্যুরের দুটি শিরোপা জেতা এই গলফার।

প্রথম রাউন্ডে যুগ্মভাবে ৫৬তম স্থানে ছিলেন বাংলাদেশের সেরা এই গলফার। প্রথম রাউন্ডের তুলনায় দ্বিতীয় রাউন্ডে কিছুটা ভালো করেন সিদ্দিকুর। তিন জনের সঙ্গে যৌথভাবে ৪৬তম স্থানে ছিলেন তিনি। এরপর তৃতীয় রাউন্ড শেষে ৫৫তম স্থানে থাকেন বাংলাদেশের এই গলফার। চতুর্থ বা শেষ রাউন্ডে ৫৮তম স্থানে থেকে অলিম্পিক আসর শেষ করতে হয় তাকে।

অলিম্পিকে ৬৯তম সোনিয়া:
রিও অলিম্পিকে মেয়েদের ৫০ মিটার ফ্রি-স্টাইল থেকে বাদ পড়েন বাংলাদেশের সেরা মহিলা সাঁতারু সোনিয়া আক্তার। হিট থেকেই বাদ পড়েন তিনি। ফলে, মূল পর্বে যাওয়া হয়নি বাংলাদেশের এই নারী সাঁতারুর।

সব মিলিয়ে হিটে ৮৮ জনের মধ্যে ৬৯তম হয়েছেন বাংলাদেশের এই সাঁতারু। মেয়েদের ৫০ মিটার ফ্রি-স্টাইলে নিজের হিটে তৃতীয় হন সোনিয়া। তার টাইমিং ছিল ২৯.৯৯ সেকেন্ড।

সোনিয়ার হিটে প্রথম হন ২৯.১৯ সেকেন্ড নিয়ে পালাউ। আর দ্বিতীয় সাঁতারুর টাইমিং ছিল ২৯.৪৪। প্রথম ১৬জন চলে যান সেমিফাইনালে।

নিজের সেরা টাইমিং নিয়ে ৫৪তম সাগর:
রিও ডি জেনেইরো অলিম্পিকে বাংলাদেশের অন্য অ্যাথলেটদের থেকে ভালো করেছেন সাঁতারের ৫০ মিটার ফ্রি-স্টাইলে নামা দেশসেরা সাঁতারু মাহফিজুর রহমান সাগর। এই ইভেন্টে ২৩ দশমিক ৯২ সেকেন্ডে সাঁতার শেষ করে নিজের সেরা টাইমিং টপকে যান ২৩ বছর বয়সী এই সাঁতারু।

অলিম্পিক অ্যাকুয়াটিক সেন্টারে ৫০ মিটার ফ্রি-স্টাইলের ৫ নম্বর হিটে নামেন এসএ গেমসে সাতটি ব্রোঞ্জ জেতা সাগর। সেখানে ছিলেন আট সাঁতারু। তাদের মধ্যে পঞ্চম হন সাগর। ৫০ মিটার ফ্রি-স্টাইলে জাতীয় পর্যায়ে সাগরের সেরা টাইমিং ছিল ২৪ দশমিক ০২ সেকেন্ড। এবার রিওতে সেটিও টপকে যান তিনি।

১১টি হিটে মোট ৮৫ জন সাঁতারু অংশ নেন। তাদের মধ্যে ৫৪তম হয়েছেন সাগর। বাংলাদেশের সেরা এই সাঁতারুদের হিটে প্রথম হন সেনেগালের আবদুল খাদরি। তার টাইমিং ছিল ২৩.৬৬ সেকেন্ড। সাগর পেছনে ফেলেন ঘানা, কসোভো আর মঙ্গোলিয়ার তিন সাঁতারুকে। তবে, হিট থেকে সেমি-ফাইনালে উঠে ১৬ জন।

আগেভাগেই তিরন্দাজ শ্যামলীর বিদায়
রিও অলিম্পিকে মেয়েদের অ্যার্চারির ব্যক্তিগত ইভেন্টে এলিমিনেশন রাউন্ডে হেরে বিদায় ঘটে বাংলাদেশের তিরন্দাজ শ্যামলী রায়ের। মেক্সিকোর গাব্রিয়েলা বায়ার্দোর কাছে ৬-০ পয়েন্টে হারেন তিনি।

প্রথম সেটে শ্যামলী তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ২৮-২৭ স্কোরে হারেন। তবে পরের দুই সেটে ঘুরে দাঁড়াতে পারেননি। হেরে যান ২৮-২৩ ও ২৮-২৫ স্কোরে।

২০১৫ সালে ব্যাংককে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে গড়া ৬১৮ স্কোর গড়লেও এবারের অলিম্পিকে মেয়েদের ব্যক্তিগত ইভেন্টের র্যাঙ্কিং রাউন্ডে ৭২০-এর মধ্যে ৬০০ স্কোর করেন শ্যামলী। ফলে, অংশগ্রহণকারী ৬৪ জনের মধ্যে তিনি ৫৩তম হন।

এয়ার রাইফেলে ২৫তম আব্দুল্লাহ হেল বাকি:
অলিম্পিকের ১০ মিটার এয়ার রাইফেল ইভেন্টের বাছাইপর্বে ২৫তম হয়েছেন বাংলাদেশের শ্যুটার আবদুল্লাহ হেল আল বাকি। রিও ডি জেনিরোর অলিম্পিক শ্যুটিং রেঞ্জে বাকি স্কোর করেন ৬২১.২।
বাছাইপর্বের ছয় রাউন্ডের মধ্যে তৃতীয় রাউন্ডে এসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ স্কোর (১০৫.৪) করেন বাকি। সর্বনিম্ব স্কোর করেন (১০০.৬) পঞ্চম রাউন্ডে।
অলিম্পিকের আগে বাকির সেরা সাফল্য ২০১৪ গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসে রুপা জয়। সেই থেকে রিও অলিম্পিকের জন্য প্রস্তুতি নেন এই শ্যুটার।

৫০ জন প্রতিযোগীর এই ইভেন্টের ফাইনালে উঠেন শীর্ষ আটজন। ৬৩০.২ স্কোর গড়েন ইতালির শ্যুটার নিকোলো ক্যামপ্রিয়ানি। এশিয়ার একমাত্র প্রতিনিধি হিসেবে ফাইনালে উঠেন অভিনব ব্রিন্দ্রা। ভারতীয় এই শ্যুটার ৬২৫.৭ স্কোর করে সপ্তম হয়েছেন।

হতাশ করলেন দেশের দ্রুততম মানব:
বিশ্ব মঞ্চে বাংলাদেশের অ্যাথলেটরা কতটা পিছিয়ে সেটি আরেকবার প্রমাণ হলো। রিও অলিম্পিকে ১০০ মিটার স্প্রিন্টের হিটে আট জনের মধ্যে চতুর্থ হন বাংলাদেশের দ্রুততম মানব মেজবাহ আহমেদ।

দুই নম্বর হিটে দৌড়াতে নামা ছেলেদের ১০০ মিটারে প্রাক-বাছাই হিটে মেজবাহর টাইমিং ছিল ১১.৩৪। অথচ, গত এসএ গেমসে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে ১০.৭২ সেকেন্ড ছিল মেজবাহর সেরা টাইমিং।

মেজবাহ নিজের হিটে চতুর্থ হলেও ২৪ জনের প্রাক-বাছাই হিট থেকে ৮জন উঠেন মূল হিটে। সব মিলিয়ে ২৪ জনে ১৪তম মেজবাহ। এই হিটে ১০.৪৩ সেকেন্ড সময় নিয়ে প্রথম হন মালদ্বীপের সাইদ হাসান।

হতাশ করে হিটেই বাদ দ্রুততম মানবী শিরিন:
বাংলাদেশের দ্রুততম মানবী শিরিন আক্তারকে নিয়ে অলিম্পিক গেমসের ১০০ মিটার স্প্রিন্টে খুব একটা আশাবাদী ছিল না এদেশের ক্রীড়াপ্রেমীরাও। তারপরও ব্রাজিলের মাটিতে মেগা ইভেন্টে তিনি টাইমিং করেছেন ১২.৯৯ সেকেন্ড। গত এসএ গেমসে ১১.৯৯ সেকেন্ড সময় নিয়ে ১০০ মিটারের নিজের সেরা টাইমিং করেছিলেন শিরিন।

কিন্তু, অলিম্পিকে নিজের সেরাটা ছাড়িয়ে যেতে পারেননি তিনি। পুরো ১ সেকেন্ড বেশি সময় নিয়েছেন বাংলাদেশের এই দ্রুততম মানবী। ।

অলিম্পিক স্টেডিয়ামের ট্র্যাকে এক নম্বর হিটে অংশ নেন বাংলাদেশের সেরা এই দৌড়বিদ। হিটে বাদ পড়ার আগে মোট আটজনের মধ্যে পঞ্চম হয়েছেন শিরিন। ফলে, মূল হিটে যাওয়ার জন্য প্রাক-বাছাই হিট থেকেই বিদায় নিতে হয় তাকে।

২৪ জনের প্রাক-বাছাই হিটে শিরিন হন ১৭তম। প্রাক-বাছাইয়ের তিনটি হিট থেকে প্রথম দুজন করে মূল হিটে উঠেন। এ ছাড়া ভালো টাইমিং করায় মূল হিটে নেওয়া হয় আরও দু’জনকে। শিরিনের হিটে ১২.২৪ সেকেন্ড সময় নিয়ে মূল হিটে উঠেন সিয়েরা লিয়নের হাফসাতু কামারা। দ্বিতীয় হয়ে অটোমেটিক কোয়ালিফাই করেন ফিজির সিসিলা সিভুলা। তার টাইমিং ছিল ১২.৩৪ সেকেন্ড।

বাংলাদেশ সময়: ০২১০ ঘণ্টা, আগস্ট১৫, ২০১৬
এমআরপি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa