ঢাকা, সোমবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

অন্যান্য দল

সিপিবির সমাবেশে হামলাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি চাই

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৪১২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২, ২০১৯
সিপিবির সমাবেশে হামলাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি চাই মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম/ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সমাবেশে ২০০১ সালের ২০ জানুয়ারি বোমা হামলায় জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি করেছেন সংগঠনটির বর্তমান সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম।

সিপিবির সমাবেশে বোমা হামলার ঘটনায় ১৯ বছর পর এ মামলার রায়ের জন্য আগামী বছরের ২০ জানুয়ারি (সোমবার) দিন ধার্য করেছেন আদালত।

শনিবার (১ ডিসেম্বর) রাতে এ মামলার রায়ের দিন ধার্য হওয়ার পর বাংলানিউজকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে সিপিবি সভাপতি এ দাবি করেন।

সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, উদীচীর সমাবেশে বোমা হামলার মধ্য দিয়ে এদেশে বড় ধরনের বোমা হামলার সূচনা হয়। এরপর পল্টনে সিপিবি’র সমাবেশে বোমা হামলা করা হয়। রমনার বটমূলে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানেও বোমা হামলা করা হয়। দেশের কমিউনিস্ট এবং বাম ধারার সংগঠনগুলোর ওপর বোমা হামলার মাধ্যমেই দেশে বোমা হামলার সূত্রপাত হয়। সেই সময়ে আমরা এসব বোমা হামলার সুষ্ঠু তদন্ত করে বিচারের দাবি জানিয়েছিলাম। কমিউনিস্ট পার্টির সমাবেশে হামলার পর আমরা তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর কাছে গিয়ে বলেছিলাম, অতি দ্রুত এই হামলাকারীদের গ্রেফতার করে বিচার করুন, নাহলে ভবিষ্যতে এটা ভয়াবহ বিপদ ডেকে আনবে।  

তৎকালীন সরকারের সমালোচনা করে সেলিম বলেন, বোমা হামলার পর সরকার এসব ঘটনার বিচারে চরম গাফিলতি করেছে। সময়ক্ষেপণের কারণে এসব অপরাধীদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। এমনকি সন্দেহজনক ব্যক্তিদের ছবি এবং ভিডিও প্রদান করা সত্ত্বেও তাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। হামলাকারী কয়েকজনের নাম দেশের জনপ্রিয় একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশ হয়ে যায়। সে সময় বোমা হামলাকারীরা একটা চায়ের দোকানে বসে চা খাচ্ছিল, এমন সময় কেউ একজন এসে হামলাকারীদের পত্রিকায় নাম প্রকাশের বিষয়ে জানালে, তারা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। এরপরেও অনুসন্ধান করে তাদেরকে গ্রেফতার করা সম্ভব ছিল কিন্তু এসব ক্ষেত্রে সরকার গাফিলতি করেছে।

দেশের অন্যান্য বোমা হামলা প্রসঙ্গে সিপিবি সভাপতি বলেন, এরপর ধারাবাহিকভাবে দেশে একের পর এক বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। যেমন শেখ হাসিনার ওপর ২১ শে আগস্টের গ্রেনেড হামলা, সিনেমা হলে বোমা হামলা, এছাড়াও আওয়ামী লীগের আরও কয়েকটি সমাবেশে বোমা হামলা, দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলা এসব একই সূত্রে গাঁথা।

বোমা হামলার ঘটনায় বিএনপির সমালোচনা করে তিনি আরও বলেন, বিএনপি সরকারের আমলে সিপিবি’র মহা সমাবেশে বোমা হামলার ঘটনায় চূড়ান্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। আমরা সিপিবি’র পক্ষ থেকে এর তীব্র প্রতিবাদ করি। যার ফলে মামলাটির কার্যক্রম আবার শুরু হয়।

বোমা হামলাকারীদের বিষয়ে উল্লেখ করে সেলিম বলেন, সিপিবি’র সমাবেশে বোমা হামলাকারীদের অনেকে এখন এর জীবিত নেই। দেশের স্বার্থে স্বাভাবিকভাবে এটাই কাম্য যে এই মামলায় আমরা যেসব সাক্ষী প্রমাণ হাজির করেছি, সেই অনুযায়ী এই বোমা হামলার সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি।

রাজধানীর পল্টন ময়দানে ২০০১ সালের ২০ জানুয়ারি সিপিবির মহাসমাবেশে দুর্বৃত্তদের বোমা হামলায় ৫ জন নিহত এবং ২০ জন আহত হন।

বাংলাদেশ সময়: ২৩১১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১, ২০১৯
আরকেআর/এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa