ঢাকা, সোমবার, ৯ বৈশাখ ১৪৩১, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২ শাওয়াল ১৪৪৫

রাজনীতি

কায়সারের পক্ষে মাঠে বিএনপি নেতাকর্মীরা

কুসিক নির্বাচন: প্রচারণায় সরগরম ভোটের মাঠ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯১৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪
কুসিক নির্বাচন: প্রচারণায় সরগরম ভোটের মাঠ

কুমিল্লা: প্রতীক বরাদ্দের দ্বিতীয় দিনও মাঠ চষে বেড়িয়েছেন কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) উপ-নির্বাচনের মেয়র প্রার্থীরা। শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকেই ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যান প্রার্থীরা।

বিকেলে বিভিন্ন জায়গায় উঠান বৈঠক করেন তারা।

রাজগঞ্জ, চকবাজার, কান্দিরপাড়ের খন্দকার হক ম্যানশন ও সাত্তার খান কমপ্লেক্সে গণসংযোগ করেন সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু। তিনি এবার টেবিল ঘড়ি প্রতীকে নির্বাচন করছেন। গণসংযোগ চলাকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সাক্কু বলেন, গত নির্বাচনে আমাকে হারানো হয়েছিল। একটি সাত বছরের শিশুও এ কথা বলে দিতে পারবে। গতবার যে ফল দিতে আধাঘণ্টা লাগার কথা, সেখানে আড়াই ঘণ্টা সময় লাগিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। এবার আমরা তার পুনরাবৃত্তি চাই না।

তিনি বলেন, আমার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করে যেতে চাই। কুমিল্লা সিটির মানুষ আমাকে সে সুযোগ করে দেবে বলে আশা রাখি।

এমপি বাহার কন্যা, কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. তাহসিন বাহার সূচনা বাস প্রতীকে নির্বাচন করছেন। তিনি নগরের ১ ও ৪ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন। এ সময় জনগণের উদ্দেশ্যে সূচনা বলেন, আমার বাবাকে আপনার বারবার মূল্যায়ন করেছেন। চাচা আরফানুল হক রিফাতকেও আপনারা বিজয়ী করেছিলেন। এবার আমাকেও আপনাদের সেবা করার সুযোগ করে দেবেন।

প্রচারণার দ্বিতীয় দিন নগরীর ১৬, ১৭ ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা নূর-উর-রহমান মাহমুদ তানিম। তিনি হাতি প্রতীকে নির্বাচন করছেন। তানিম বলেন, কুমিল্লার মানুষ গত ৪০ বছর ধরে আমাকে চেনে। এবার সঠিক মূল্যায়নের সুযোগ এসেছে। নগরীকে বদলে দিতে সঠিক ব্যক্তিকে খুঁজে নেবে কুমিল্লার মানুষ।  

আগের মতো এবারও ঘোড়া প্রতীকে নির্বাচন করছেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সভাপতি নিজাম উদ্দিন কায়সার। প্রচারণার দ্বিতীয় দিনে বিএনপি নেতাকর্মীদের মাঠে দেখা গেছে। আগের নির্বাচনে সরাসরি কাজ করতে না পারলেও এবার অনেকেই প্রকাশ্যে নেমেছেন। নগরের বাদুড়তলা, কান্দিরপাড়, মনোহরপুর, রাজগঞ্জ, চকবাজার ও পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড এলাকায় গণসংযোগ করেন কায়সার।

কায়সার বলেন, আমাকে দল বহিষ্কার করেছে। দলের সাথে আমার নির্বাচনের কোনো যোগসূত্র নেই। কুমিল্লার মানুষ জিম্মি। এখানে দলের কোনো প্রশ্ন নেই। এবারের নির্বাচন কুমিল্লার মানুষের জিম্মি দশা থেকে মুক্তির নির্বাচন। তাই দলমত নির্বিশেষে মাঠে নেমেছি। এর আগের নির্বাচনে অনেকে গোপনে সমর্থন দিয়েছে। কিন্তু এবার প্রকাশ্যে আমার পক্ষে কাজ করছে। নিজ দায়িত্বে মানুষ ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে নিজেরাই কাজ করছে। মানুষ একটা সুন্দর নগরীর জন্য শেষ চেষ্টা করে যাচ্ছে।

২০২২ সালের কুসিকের তৃতীয় নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন নৌকা প্রতীকের আরফানুল হক রিফাত। ২০২৩ সালের ১৩ ডিসেম্বর চিকিৎসা চলাকালীন তার মৃত্যু হয়। যে কারণে কুমিল্লা সিটিতে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মোট ১০৫টি ভোটকেন্দ্রের ৬৪০টি কক্ষে ভোট নেওয়া হবে। নির্বাচন ৯ মার্চ ইভিএমে অনুষ্ঠিত হবে। এবার ২ লাখ ৪২ হাজার ৪৫৮ জন ভোটার নিজ নিজ অধিকার প্রয়োগ করবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪
এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।