ঢাকা, শনিবার, ১৭ চৈত্র ১৪২৯, ০১ এপ্রিল ২০২৩, ০৯ রমজান ১৪৪৪

রাজনীতি

না.গঞ্জ জেলা বিএনপির ১০ ইউনিটে কমিটি সেপ্টেম্বরে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৫৯ ঘণ্টা, আগস্ট ৩০, ২০২১
না.গঞ্জ জেলা বিএনপির ১০ ইউনিটে কমিটি সেপ্টেম্বরে

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির অধীনে থাকা পাঁচটি থানা ও পাঁচটি পৌরসভা ইউনিটের কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া প্রায় চূড়ান্ত করা হয়েছে। জেলার শীর্ষ নেতারা মিলে ইতোমধ্যে কমিটিগুলোর প্রতিটি পদের জন্য একাধিক নাম প্রস্তুত করেছেন।

তবে, এর মধ্যে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির সঙ্গে জড়িত, নিষ্ক্রিয় নেতাদের নাম প্রস্তাবের পাশাপাশি স্বজনপ্রীতির অভিযোগ উঠেছে দায়িত্বশীল নেতাদের বিরুদ্ধে।  

২০২১ সালের ১ জানুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকারকে আহ্বায়ক করে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ৪১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। সেই কমিটির সদস্য সচিব করা হয় অধ্যাপক মামুন মাহমুদকে।

এরই ধারাবাহিকতায় রূপগঞ্জ, আড়াইহাজার, সোনারগাঁ, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এবং সোনারগাঁ, কাঞ্চন, তারাব, আড়াইহাজার ও গোপালদী পৌর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠনের কাজ চলমান রয়েছে। প্রতিটি থানায় কমিটি গঠনের লক্ষ্যে উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছিল। সেই কমিটির সদস্যরা কারা কারা পদে আসতে পারেন তাদের নাম প্রস্তাব করেছেন।  

এদিকে দলীয় একাধিক সূত্র জানায়, প্রতিটি থানা, উপজেলা ও পৌর কমিটিতে নিজের লোক বসাতে মরিয়া জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মামুন মাহমুদ। ঘনিষ্ঠদের পদে বসাতে যোগ্যসহ ত্যাগী ও রাজপথের নেতাদের নাম বাদ দেওয়ার চেষ্টা করেছেন তিনি। এছাড়া রূপগঞ্জ থানা বিএনপির কমিটিতে প্রবীণ ও প্রকাশ্যে নৌকায় ভোট দেওয়া এক নেতার নাম প্রস্তাব করা হয়েছে।  

জানা যায়, রূপগঞ্জ থানা বিএনপির সদস্য সচিব হিসেবে বাসির উদ্দিন বাচ্চুর নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। তার দুই ভাই লুৎফর ও মানসুর রূপগঞ্জ ইউনিয়নের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিনের পক্ষে নির্বাচনী কাজ করা থেকে শুরু করে তার সঙ্গে কাজ করেন। ২০১৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় বাসির উদ্দিন বাচ্চু তার ভোটকেন্দ্র রূপগঞ্জের জনতা হাইস্কুলের বুথে গিয়ে প্রকাশ্যে নৌকার ভোট দেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তিনি জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ও রূপগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি।  

সোনারগাঁ থানা বিএনপির সদস্য সচিব হিসেবে প্রস্তাব করা হয়েছে মোশারফের নাম। তিনি মামুন মাহমুদের ঘনিষ্ঠ বন্ধু এবং উপজেলায় নিষ্ক্রিয়। এ ঘটনায় কেন্দ্রীয় নেতাসহ বিএনপির উচ্চ পর্যায়গুলোতে উপজেলা বিএনপি ও সব অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা চিঠি দিয়েছেন তাদের আলাদা আলাদা সংগঠনের প্যাডে।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, জেলার আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকারকে পাশ কাটিয়ে নিজের লোক দিয়ে কমিটি করতে যাচ্ছেন সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদ। এজন্য নিজের মতো করে সার্চ কমিটি গঠন করেছেন। যে সার্চ কমিটি কোনো থানা বা উপজেলায় না গিয়ে ঘরে বসে আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব পদের জন্য নামের তালিকা করেছে। এ কারণে স্থানীয় নেতাদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

গত ১৫ বছর ধরে দলীয় কোন কর্মসূচিতে ইউসুফ মেম্বারকে দেখেনি নেতাকর্মীরা। বর্তমানে তিনি আড়াইহাজারে থাকেনও না। অথচ মামুন মাহমুদের সুপারিশে সার্চ কমিটি তাকে আড়াইহাজার উপজেলায় আহ্বায়ক হিসেবে নাম প্রস্তাব করেছেন। এছাড়া সদস্য সচিব পদে সরকারি দলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতায় অভিযুক্ত জুয়েলের নাম দেওয়া হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানান, করোনার কারণে দীর্ঘদিন স্থগিত থাকার পর আমরা এখন সংগঠন গুছানোর কাজ করছি। নারায়ণগঞ্জসহ মেয়াদোত্তীর্ণ থানা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের কমিটির কাজ দ্রুত শেষ করতে নির্দেশনা রয়েছে।  

বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ জানান, কমিটিগুলোতে ত্যাগী, পরীক্ষিতদের মূল্যায়ন হবে। সব কর্মসূচিতে সক্রিয়ভাবে অংশ নেওয়াসহ আন্দোলন-সংগ্রামে যারা রাজপথে ছিলেন নেতৃত্ব তাদের হাতে যাবে। যারা দলের প্রতি ও রাজনীতিতে সক্রিয় নন, কর্মসূচিতে অনীহা প্রদর্শন করেন তাদের পদের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ ধরনের নিষ্ক্রিয়দের পদায়ন করা হবে না।

এছাড়া লিখিত অভিযোগে জানানো হয়, কখনও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের নাম ব্যবহার করে, কখনও নিজের ক্ষমতায় আড়াইহাজারের তিনটি ইউনিট, রূপগঞ্জ ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জে সদস্য সচিব মামুন মাহমুদ তার পছন্দের লোক বসাতে কাজ করছেন। এক্ষেত্রে নিষ্ক্রিয় হলেও তাদের তিনি পদ দিতে উঠেপড়ে লেগেছেন।  

জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার জানান, বিতর্কিত ও নিষ্ক্রিয়দের দিয়ে কোনো কমিটি করা হবে না। দলের জন্য যাদের দীর্ঘদিনের ত্যাগ, শ্রম আর লড়াই-সংগ্রাম ছিল তাদের নিয়েই কমিটি গঠন করা হবে। কোনো ধরনের বিচ্ছিন্ন কিংবা অগোছালো সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে না। সেপ্টেম্বরের যে কোনদিন একসঙ্গে জেলার সাতটি থানা কমিটিসহ ১০ ইউনিট কমিটি ঘোষণা করা হবে।

এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদ জানান, অভিযোগ সঠিক নয়। কমিটিতে কোনো প্রভাব বিস্তার করছি না। উপ-কমিটি নেতাদের নাম প্রস্তাব করেছেন, আমরা সে নাম নিয়েই কাজ করছি।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫৫ ঘণ্টা, আগস্ট ৩০, ২০২১
এমআরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa