ঢাকা, শনিবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

পল্লী বিদ্যুতের উন্নয়ন ব্যয় সাড়ে ৯ হাজার কোটি টাকা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪২ ঘণ্টা, জুলাই ১১, ২০১৫
পল্লী বিদ্যুতের উন্নয়ন ব্যয় সাড়ে ৯ হাজার কোটি টাকা ফাইল ফটো

ঢাকা: বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের ‘পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণ প্রকল্পের’ আওতায় লাইন সংস্কার ও পুল কিনতে ব্যয় হবে প্রায় সাড়ে নয় হাজার কোটি টাকা।
 
এ বিষয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির জন্য একটি সারসংক্ষেপ প্রস্তুত করেছে বিদ্যু‍ৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়।

রোববারের (১২ জুলাই) সভায় এটি উত্থাপন হতে পারে।
 
যেসব প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য উত্থাপন করা হবে সেগুলো হলো- খুলনা বিভাগের ৯টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অধীনে ৬ হাজার ৫ কিলোমিটার এলাকায় ৫ হাজার ৬শ’ কিলোমিটার নতুন বৈদ্যুতিক লাইন ও নির্মাণ এবং ৯শ’ কিলোমিটার হালনাগাদ। এছাড়াও ২৮ হাজার ৫শ’ ৬৩টি পুল ক্রয় করা হবে। এতে ব্যয় হবে ৯শ’ ৯৫ কোটি ৩০ লাখ টাকা।
 
চট্টগ্রাম-সিলেট বিভাগের ১৭টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অধীনে ১০ হাজার ৫শ’ কিলোমিটার এলাকা। এই এলাকায় নতুন বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ, হালনাগাদ ও উন্নয়নের জন্য অ্যালুমিনিয়াম কনডাক্টর স্টিল রেইনফোর্সড বার ক্রয় করা হবে। এতে ব্যয় হবে এক হাজার ৬শ’ ৮৭ কোটি ৩০ লাখ টাকা।
 
একই এলাকায় ৯ হাজার ৫শ’ ৫০ কিলোমিটার নতুন লাইন নির্মাণ, ৯শ’ ৫০ কিলোমিটার হালনাগাদ ও ৪৫টি ৩৩/১১কেভি উপকেন্দ্রের নির্মাণ বা ক্ষমতা বৃদ্ধি করা হবে। এতে ব্যয় করা হবে এক হাজার ৬শ’ ৮৭ কোটি ৩০ লাখ টাকা।
 
ঢাকা বিভাগের ২২টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আওতাধীন ৮ হাজার ৯শ’ ৪০ কিলোমিটার নতুন লাইন নির্মাণ, এক হাজার ৬০ কিলোমিটার সংস্কার। এছাড়া ৫০টি ৩৩/১১ কেভি উপকেন্দ্র নির্মাণ বা ক্ষমতা বৃদ্ধি করা হবে। এতে ব্যয় করা হবে এক হাজার ৬শ’ ৪৫ কোটি ৩৭ লাখ টাকা।
 
রাজশাহী-রংপুর বিভাগের ১৮টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আওতাধীন ৭ হাজার ৭শ’ কিলোমিটার নতুন লাইন, ৮শ’ কিলোমিটার সংস্কার, ও ৪৩ হাজার পুল ক্রয় করা হবে। এছাড়াও ৪২টি ৩৩/১১ কেভি উপকেন্দ্র নির্মাণ বা ক্ষমতা বৃদ্ধি কর‍া হবে। এতে ব্যয় করা হবে এক হাজার ৩শ’ ৮৫ কোটি ২০ লাখ টাকা।
 
চট্টগ্রাম-সিলেট বিভাগীয় কার্যক্রম-২ এর আওতায় অ্যালুমিনিয়াম কনডাক্টর স্টিল রেইনফোর্সড বার ক্রয় করতে ব্যয় হবে এক হাজার ৬শ’ ৪৫ কোটি ৩০ লাখ টাকা।
 
এসব প্রকল্পের বাস্তবায়নের কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে ২০১৮ সালের ৩০ জুনের মধ্যে। কাজ শেষে বিদ্যুতের সুবিধা পাবেন প্রায় ২৫ লাখ গ্রাহক।

বাংলাদেশ সময়: ২২৪২ ঘণ্টা, জুলাই ১১, ২০১৫
এসই/জেডএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।