ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ বৈশাখ ১৪৩১, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস-বিদ্যুৎ সরবরাহের চেষ্টা চলছে: প্রতিমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৪০ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৬, ২০২২
কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস-বিদ্যুৎ সরবরাহের চেষ্টা চলছে: প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা: শিল্প কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস-বিদ্যুৎ সরবরাহের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বুধবার (২৬ অক্টোবর) বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-বিডাতে ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের সঙ্গে মত বিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, শিল্প কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস-বিদ্যুৎ সরবরাহের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। বৈশ্বিক এই সমস্যা সম্মিলিতভাবে সমাধান করা আবশ্যক। ব্যবসায়ীদের সাশ্রয়ী মূল্যে গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে। আগামীতে অগ্রাধিকার দিয়ে শিল্পের প্রসারে কাজ করা হবে। পরিকল্পিত এলাকায় শিল্প-কারখানা স্থাপন করলে এককভাবে গ্যাস-বিদ্যুৎ সরবরাহে সুবিধা পাওয়া যেত। কিন্তু বিচ্ছিন্নভাবে যত্রতত্র শিল্প-কারখানা স্থাপন কারায় এই সুবিধা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি বলেন, গাজীপুর-আশুলিয়া-নারায়ণগঞ্জে গ্যাস চাপ সমস্যার দ্রুত সমাধান করা হবে। ক্যাপটিভ পাওয়ারে ১৭% ও শিল্পে ১৮% গ্যাস দেওয়া হচ্ছে। ব্লান্ডেড গ্যাসের মূল্য ২৮.৪২ টাকা প্রতি ঘনমিটার, অথচ গড় বিক্রয় মূল্য ১১.৯১ টাকা/ঘনমিটার। শিল্পের প্রসারের জন্যই কম মূল্যে গ্যাস বিক্রি করা হচ্ছে। ব্যবসায়ীদের বিদ্যমান উদ্বেগ দ্রুত লাঘব করা হবে।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, কোভিড পরিস্থিতি আমাদের পরিকল্পনা মতো আগাতে দেয়নি। জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহ শিল্প-কারখানায় বাড়াতে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে।

এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন ব্যবসায়ীদের সমস্যা যথাযথভাবে চিহ্নিত করার জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বর্তমান সমস্যা বৈশ্বিক। গ্যাসের মূল্য বাড়িয়ে হলেও আমরা নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস ও বিদ্যুৎ চাই। কর কাঠামো পুনর্গঠন করলে মূল্য সমন্বয় সহনীয় থাকবে।

মত বিনিময় সভায় বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, বিটিএমই, বাংলাদেশ প্লাস্টিক দ্রব্য প্রস্তুতকারক সমিতি, বাংলাদেশ রি-রোলিং মিলস অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ স্টিল মিলস অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ সিমেন্ট ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ পেপার মিলস অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ সিরামিক ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোটার্স অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ইকনোমিক জোন ইনভেস্টোরস অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ স্মল অ্যান্ড ক্যাপটিভ পাওয়ার প্রডিউসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪০ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৬, ২০২২
আরকেআর/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।