ঢাকা, বুধবার, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

প্রবাসে বাংলাদেশ

‘প্রবাস প্রজন্ম জাপান’ সম্মাননা পাচ্ছেন খুরশীদ আলম

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩০, ২০১৬
‘প্রবাস প্রজন্ম জাপান’ সম্মাননা পাচ্ছেন খুরশীদ আলম মো. খুরশীদ আলম

জাপান: ৮ম প্রবাস প্রজন্ম জাপান সম্মাননা-২০১৬ দেওয়া হচ্ছে সঙ্গীত ব্যক্তিত্ব মো. খুরশীদ আলমকে।

আগামী ০১ মে টোকিওতে এক জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনের মধ্য দিয়ে তার হাতে এ সম্মাননা তুলে দেওয়া হবে।



প্রবাস প্রজন্মের পক্ষ থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পে প্লে-ব্যাক শিল্পী হিসেবে দীর্ঘ চার দশকের বেশি সময় ধরে অবদান রাখার জন্য তাকে এ সম্মাননা দেওয়া হচ্ছে। এ উপলক্ষে প্রবাস প্রজন্ম জাপান আয়োজিত এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ছাড়াও জাপান-বাংলা উভয় দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থাকবেন।

জাপানে বেড়ে ওঠা প্রবাসী শিশু-কিশোরদের বাংলাদেশের সাহিত্য, সংস্কৃতি, ভাষা, ইতিহাস ও ঐতিহ্যের সঙ্গে সম্পৃক্ত রেখে তাদের মননে দেশ, মাটি ও মানুষের নিরবিচ্ছিন্ন সুরধারা সঞ্চারের লক্ষ্যে ২০০৭ সালে যাত্রা শুরু করে ‘প্রবাস প্রজন্ম জাপান’। সেই থেকে নিয়মিতভাবে প্রতিবছর প্রবাস প্রজন্ম বার্ষিক আয়োজনের মাধ্যমে শিশু-কিশোরদের উৎসাহ দিতে বাংলাদেশের স্বনামধন্য ব্যক্তিদের সম্মাননা দিয়ে আসছে।

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পের অন্যতম জনপ্রিয় গায়ক খুরশীদ আলম ১৯৬৯ সালে বাংলা চলচ্চিত্র ‘আগন্তুক’ ছায়াছবিতে ‘বন্দি পাখির মতো’ গানটি দিয়ে প্লে-ব্যাক জগতে যাত্রা শুরু করেন। দীর্ঘ চার দশকের বেশি সময় তিনি বাংলা চলচ্চিত্রে প্রায় তিন হাজারের বেশি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন।

খুরশীদ আলমের কণ্ঠে জনপ্রিয় গানগুলির মধ্যে ‘যদি বউ সাজো গো (ওয়াদা), মা গো মা, ওগো মা (সমাধি), চুপি চুপি বলো কেউ জেনে যাবে (নিশান), ধীরে ধীরে চল ঘোড়া (পাপমুক্তি), চুমকী চলেছে একা পথে (দোস্ত-দুশমন), বাপের চোখের মনি নয়, মায়ের সোনার খনি নয় (জোকার), আমার সাধ না মিটিলো, আশা না পুরিলো (চাপা ডাঙ্গার বউ) উল্লেখযোগ্য।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩০, ২০১৬
এসএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa