ঢাকা, রবিবার, ১ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

তারার ফুল

বলিউড টপচার্ট

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২৪ ঘণ্টা, জুলাই ২, ২০১৪
বলিউড টপচার্ট

শীর্ষ ৫
১. এক ভিলেন (রিতেশ দেশমুখ, শ্রদ্ধা কাপুর, সিদ্ধার্থ মালহোত্রা)
২. হামশাকালস (সাইফ আলি খান, বিপাশা বসু, রিতেশ দেশমুখ, এশা গুপ্তা, তামান্না ভাটিয়া, রাম কাপুর)
৩. হলিডে : অ্যা সোলজার ইজ নেভার অফ ডিউটি (অক্ষয় কুমার, সোনাক্ষী সিনহা)
৪. ফাগলি (জিমি শেরগিল, মোহিত মারওয়া, কিয়ারা আদভানি, বিজেন্দ্র সিং, আরফি লাম্বা)
৫. ফিল্মিস্তান (শারিব হাশমি, কুমুদ মিশ্র, মনোজ বকশী)

এক ভিলেন
একজন রাজনীতিবিদের হয়ে কাজ করে গুরু। তার অন্ধকার অতীত তাকে রাতে ঘুমাতে দেয় না।

আয়শার প্রেমে পড়ার পর সে জীবনধারা বদলানোর সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু তার প্রেমিকার জীবনে বিভীষিকা হয়ে আসে এক মানসিক বিকারগ্রস্ত মানুষ। ফলে আবার পুরনো জীবনে ফিরে যেতে বাধ্য হয় গুরু। সেই আক্রমণকারীর পরিচয় যত তার কাছে উন্মোচিত হতে থাকে ততই তার বিশ্বাস বদলাতে থাকে।

হলিউড টপচার্ট
শীর্ষ ১০
১. ট্রান্সফরমার্স : এজ অব এক্সটিংকশন (মার্ক ওয়ালবার্গ, নিকোলা পেল্‌জ, স্ট্যানলি টুসি, কেলসি গ্র্যামার, জন গুডম্যান, ব্রেন্টন থোয়াইটস, সোফিয়া মাইলস)
২. ২২ জাম্প স্ট্রিট (শেনিং টেটাম, জোনা হিল, আইস কিউব)
৩. হাউ টু ট্রেইন ইউর ড্রাগন ২ (অ্যানিমেটেড ছবি)
৪. থিংক লাইক অ্যা ম্যান ঠু (মাইকেল ইয়ালি, জেরি ফেরারা, মেগান গুড, রেজিনা হল, কেভিন হার্ট, গ্যাব্রিয়েল ইউনিয়ন)
৫. মেলফিসেন্ট (অ্যাঞ্জেলিনা জোলি, এলে ফ্যানিং, জুনো টেম্পল, স্যাম রিলে)
৬. জার্সি বয়েজ (ক্রিস্টোফার ওয়াকেন, জেরেমি লুক, জোয়ি রুশো, ভিনসেন্ট পিয়াজ্জা)
৭. এজ অব টুমরো (টম ক্রুজ, এমিলি ব্লান্ট, বিল প্যাক্সটন)
৮. দ্য ফল্ট ইন আওয়ার স্টারস (শেলিন উডলি, অ্যানসেল এলগর্ট, উইলেম ড্যাফো, লরা ডার্ন)
৯. এক্স-মেন : ডেজ অব ফিউচার পাস্ট (মাইকেল ফাসবেন্ডার, জেমস ম্যাকাভয়, জেনিফার লরেন্স, নিকোলা হল্ট, আয়ান ম্যাকেলেন, প্যাট্রিক স্টুয়ার্ট, হিউ জ্যাকম্যান, আনা প্যাকুইন, এলেন পেজ, হ্যালি বেরি)
১০. শেফ (জন ফ্যাব্রিউ, রবার্ট ডাউনি জুনিয়র, স্কারলেট জোহানসন, ডাস্টিন হফম্যান, সোফিয়া ভারজারা)

ট্রান্সফরমার্স : এজ অব এক্সটিংকশন
টিনএজার মেয়ে টেসাকে নিয়ে কেড ইগারের আবাস টেক্সাসের প্রত্যন্ত গ্রামে। একদিন হঠাৎ বাবা কেড কিনে নিয়ে আসেন বাড়িতে ঢাউস এক ট্রাক। দেখতে শুনতে মরচে পড়া এমন একটা দশা যন্ত্রদানবকে দেখে মেয়ে উপহাসই করে বসে। পুরো বিষয়টিকে অর্থ অপচয় ছাড়া কিছুই মনে হয় না তার। কিন্তু গাড়িটাকে ঠিকঠাক করতে গিয়ে কেড আলামত পেতে থাকেন একের পর এক। ক্রমশ তিনি বুঝতে থাকেন, এটা কোনো সাধারণ গাড়ি নয়। এটা নিশ্চয়ই সাইবাট্রন থেকে আসা কারও ধ্বংসাবশেষ। কিন্তু কোনো এক কারণে এর প্রাণের স্পন্দন খুঁজে পান না শেষমেশ। কিন্তু কিভাবে যেন মার্কিন মুলুকে ততদিনে নিষিদ্ধ হয়ে যাওয়া ট্রান্সফরমারদের ওই বাড়িতে আগমনের বিষয়টা টের পেয়ে যায় প্রশাসন। গোয়েন্দা বাহিনীর অতর্কিত আক্রমণে হতভম্ব পরিবারটির চোখের সামনে আবারও নিজ রূপে আবির্ভাব ঘটে অপটিমাস প্রাইমের। অন্যদিকে মানুষের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়ে বসে ট্রান্সফরমারদের অটোবটের জগৎ। দ্বন্দ্বে পড়ে যায় অপটিমাস প্রাইম। সে কি নিজ গোত্রের মৃত্যু ঠেকাতে মানুষের বিরুদ্ধে লড়বে? নাকি শেষমেশ স্বজাতির দলে ভিড়ে মানুষকেই পৃথিবীছাড়া করবে?

বাংলাদেশ সময় :  ১৯২৫ ঘণ্টা, জুলাই ০২, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa