ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

তারার ফুল

নুসরাত ফারিয়ার সঙ্গে কিছুক্ষণ

‘দশে আট পেয়েছি’

সোমেশ্বর অলি, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪২৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৬
‘দশে আট পেয়েছি’ নুসরাত ফারিয়া/ ছবি: সোলায়মান হারুনী মৃদুল/ বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সৈকত নাসির পরিচালিত ‘হিরো ৪২০’ ছবির মাধ্যমে দ্বিতীয়বারের মতো রূপালি পর্দায় আসছেন নুসরাত ফারিয়া। কলকাতার পর আগামীকাল শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ঢাকাসহ দেশজুড়ে মুক্তি পাচ্ছে যৌথ প্রযোজনার ছবিটি।

‘হিরো ৪২০’ নিয়ে কী ভাবছেন নায়িকা নুসরাত ফারিয়া? পড়ুন তার সাক্ষাৎকার-

বাংলানিউজ: কলকাতায় কেমন চললো ‘হিরো ৪২০’? 
নুসরাত ফারিয়া: ওখানকার পত্রিকায় ছবিটি নিয়ে বিভিন্ন পর্যালোচনা লেখা হচ্ছে। একটার খবর আমি পেয়েছি। সেই লেখায় আমাকে দশে আট নম্বর দেওয়া হয়েছে। সাংবাদিকদের সঙ্গেও আমার ফোনে কথা হয়েছে। তারা খুব প্রশংসা করেছেন। তাছাড়া টুইটারেও দেখতে পাচ্ছি, অনেকে ইতিবাচক মন্তব্য করছেন। আমি মনে করি দেশের দর্শকদের কাছেও ভালো সাড়া ফেলবে ‘হিরো ৪২০’। সবাইকে প্রেক্ষাগৃহে এসে ছবিটি দেখার অনুরোধ করছি।  

বাংলানিউজ: এটি আপনার দ্বিতীয় ছবি। ‘আশিকী’র ভুলগুলো কী এ ছবিতে শুধরাতে পেরেছেন?
নুসরাত ফারিয়া: আমি চেষ্টা করেছি। পারিপার্শ্বিকতার কারণে অনেক সময় ইচ্ছে থাকার পরও সব মনের মতো হয় না। সীমাদ্ধতারও মুখোমুখি হতে হয়।

বাংলানিউজ: বড় বাজেটের ছবিতে সীমাবদ্ধতা কী থাকে?
নুসরাত ফারিয়া: তেমন কিছু না। তবে অনেক সময় দেশের বাইরে দৃশ্যধারণে গেলে সময় মেপে কাজ করা লাগে। অনেকটা সূর্যের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলতে হয়।

বাংলানিউজ: যৌথ প্রযোজনার ছবি নিয়ে বিতর্ক আছে। আপনি কী মনে করেন যে, যথাযথ নিয়ম মেনে ছবিগুলো তৈরি হচ্ছে?
নুসরাত ফারিয়া: সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সব ঠিক হয়ে যায়। এই প্রক্রিয়ার শুরুতে বেশ কিছু সমস্যা ছিলো। এখন অনেকটা কাটিয়ে ওঠা গেছে। যেমন ‘হিরো ৪২০’-এর বেলায় ১৯-২০ হতে পারে। ভবিষ্যতে এ ধরনের বিষয়গুলো ঠিক হয়ে যাবে বলে মনে করি।

বাংলানিউজ: প্রথম দুই ছবিতেই আপনার নায়ক ভিনদেশী। দেশের নায়কদের সঙ্গে কবে দেখা যাবে?
নুসরাত ফারিয়া: অারিফিন শুভ আর আমি নতুন একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছি। এটা হবে আমার চতুর্থ ছবি। ‘প্রেমী ও প্রেমী’ নামের ছবিটি পরিচালনা করবেন জাকির হোসেন রাজু।  

বাংলানিউজ:  ‘হিরো ৪২০’-এর দৃশ্যধারণের সময় সহশিল্পী রিয়া সেনের সঙ্গে আপনার মনোমালিন্যের খবর বেরিয়েছিলো। এ ব্যাপারে আপনার বক্তব্য কী?
নুসরাত ফারিয়া: না, এমন কিছুই ঘটেনি। দেখুন, রিয়া সেন সিনিয়র অভিনয়শিল্পী। তিনি আছেন, এমন একটা ছবিতে আমি লিড নায়িকা হয়েছি। এটা আমার কাছে চ্যালেঞ্জ ছিলো। আমার মনে হয় আমি সর্বোচ্চ ভালোটুকু করেছি।

বাংলানিউজ: দেশের নায়িকাদের মধ্যে কলকাতায় কেউ কেউ কাজ করছেন। ওখানে এ দেশের নায়িকাদের ব্যাপারে দর্শকের কোনো আগ্রহ তৈরি হয়েছে বলে মনে করেন? এখানকার নায়িকাদের ব্যাপারে তাদের মূলায়ণটাই বা কেমন?
নুসরাত ফারিয়া: অন্যদের ব্যাপারে বলতে পারবো না। তবে ‘আশিকী’ মুক্তি পাওয়ার পর থেকে সেখানে আমি যথেষ্ট সমাদর পাচ্ছি। ‘হিরো ৪২০’-এর বেলায়ও সেটা সত্যি। ওখানকার টিভি চ্যানেল কিংবা বিভিন্ন জায়গায় আমার ছবিগুলোর প্রশংসা পাচ্ছি।

বাংলানিউজ: বড় বাজেটের দুটি ছবিতে অভিনয় করেছেন। নায়িকা হিসেবে আপনি কতোটুকু সফল বা ব্যর্থ?
নুসরাত ফারিয়া: সাফল্য বা ব্যর্থতা কতোটুকু আমি বলতে পারবো না। এটা দর্শক ভালো জানেন। ‘নুসরাত ফারিয়ার প্রথম ছবিটা দেখে আসি’-এটা বলেও অনেক দর্শক হলে গিয়েছেন। এটা অনেক বড় প্রাপ্তি আমার জন্য। সংখ্যায় তারা খুব বেশি না হলেও আমার ক্ষতি নেই।

বাংলানিউজ: বলিউডের ‘গাওয়াহ-দ্য উইটনেস’ ছবির কাজ কবে শুরু হবে? জটিলতা কেটেছে?
নুসরাত ফারিয়া: ছবিটি নিয়ে মাঝখানে জটিলতা তৈরি হয়েছিলো। এখন আর সেই পরিস্থিতি নেই। আশা করছি এ বছরের শেষদিকে কাজ শুরু করতে পারবো।  

বাংলানিউজ: এখন তো আপনার হাতে দুটি ছবি?
নুসরাত ফারিয়া: জ্বি। ‘বাদশা’ ও ‘প্রেমী ও প্রেমী’। ‘গাওয়াহ-দ্য উইটনেস’-এর আগে এ দুটি ছবির কাজ করবো। ‘বাদশা’তে আমার সঙ্গে থাকছেন জিৎ।

বাংলাদেশ সময়: ১৪১৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৬
এসও

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তারার ফুল এর সর্বশেষ