ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩০ মে ২০২৪, ২১ জিলকদ ১৪৪৫

তারার ফুল

তরুণদের দোষ দিয়ে লাভ নেই : রাইসুল ইসলাম আসাদ

সোমেশ্বর অলি, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৬
তরুণদের দোষ দিয়ে লাভ নেই : রাইসুল ইসলাম আসাদ ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

এনটিভিতে ‘নায়ক’ (রাত ৯টা), দেশ টিভিতে ‘সাদা’ (সন্ধ্যা ৭টা ৪৫) ও চ্যানেল আইতে ‘লাল পলাশের মাস’ (সন্ধ্যা ৭টা ৫০); রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে প্রচার হবে এই তিনটি নাটক। প্রতিটিতে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেতা রাইসুল ইসলাম আসাদ।

নাটক ও অমর একুশের ভাবনা নিয়ে বাংলানিউজের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। পড়ুন তার সাক্ষাৎকার-

বাংলানিউজ: আপনার কাছে একুশ মানে কী?
রাইসুল ইসলাম আসাদ: আমার কাছে একুশ মানে বাঙালি জাতির নবজন্ম। নতুন চিন্তা। একুশ আমাদের অহঙ্কার।

বাংলানিউজ: ব্যক্তিগত জীবন ও নাটক-চলচ্চিত্রে আপনি আদর্শিক ও  নায়কোচিত চরিত্রে অভিনয় করেছেন। অাপনার জীবনের নায়ক কে?
আসাদ: আমি এভাবে ভাবিনি। আমার জীবনে নায়ক বলতে কেউ নেই। নাটক বা চলচ্চিত্রে যেসব চরিত্রে অভিনয় করি, এই চরিত্রগুলো নির্বাচনের বেলায়ও আমার হাত থাকে না।  

বাংলানিউজ: ‘নায়ক’ নাটকের গল্পের মতো বাস্তবেও এখনকার তরুণরা একুশে ফেব্রুয়ারি সম্পর্কে সচেতন নয় বলে মনে করেন?
আসাদ: এখনকার তরুণদের ব্যাপারে আমি বলতে পারবো না। তবে নাটকের গল্পটি নিশ্চয়ই সমাজ থেকে নেওয়া। আমার ছোটবেলা থেকে পারিবারিকভাবে জাতীয় দিবসগুলো পালন করে আসছি। এই বোধটা পারিবারিকভাবেই তৈরি হয়ে যায়। এখনকার তরুণদের মধ্যে যদি এই চেতনা না থাকে, তাহলে কিন্তু ওদের দোষ দিয়ে লাভ নেই। পরিবারকেই এই দায়িত্বগুলো পালন করতে হয়।  

বাংলানিউজ: ‘সাদা’ নাটকে আপনি অন্যায়কে প্রশ্রয় দেন না...
আসাদ: এই নাটকে আমি একজন নীতিবান স্কুল শিক্ষক। অন্যায় করি না, প্রশ্রয়ও দিই না। স্ত্রী ও এক ছেলেকে নিয়ে সংসার। ছেলের চাকরি হবে- এ জন্য ঘুষ দিতে হবে। আমি রাজি হই না। স্ত্রী বলেন যে, প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা দিয়ে ছেলের চাকরিটা যেন নিশ্চিত করা হয়। গল্পের এক পর্যায়ে জানা যাবে, অনেক আগেই প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা তুলে ফেলেছি। আসলে প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা দিয়ে একটি স্কুল তৈরি করেছিলাম। ওখানে শিশুদের বর্ণজ্ঞান  দেওয়া হয়। ‘লাল পলাশের মাস’ নাটকের গল্পটিও চমৎকার।

বাংলানিউজ: এখনকার টিভি নাটকে কোন প্রবণতা আপনার চোখে পড়ে?
আসাদ: এখন নাটক দেখা বিরক্তিকর। একটা দৃশ্য শেষ হতে না হতেই বিজ্ঞাপন শুরু হয়ে যায়। আমি অনেকবার টিভির সামনে বসে নাটক দেখার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছি।

বাংলানিউজ: আজকাল চলচ্চিত্রে খুব একটা অভিনয় করছেন না…
আসাদ: আসলে সিনেমায় আমাকে কেউ নেয় না (হেসে)। আমি তো কাজ করতেই চাই।  

বাংলানিউজ: দীর্ঘদিন ধরে অভিনয় করছেন। শিল্পী হিসেবে কোনো আক্ষেপ আছে আপনার?
আসাদ: কোনো আক্ষেপ নেই। আমি অভিনেতা হতে চাইনি। আমাকে ধরে-বেঁধে অভিনেতা বানিয়ে দেওয়া হয়েছে। যতটুকু পেয়েছি, বোনাস। আমি সন্তুষ্ট, আমার কোনো অপ্রাপ্তি নেই।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৬
এসও/জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তারার ফুল এর সর্বশেষ