ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩০ মে ২০২৪, ২১ জিলকদ ১৪৪৫

তারার ফুল

অস্কারজয়ীদের নিয়ে বাংলানিউজের ভবিষ্যদ্বাণী!

জনি হক, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬১৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৬
অস্কারজয়ীদের নিয়ে বাংলানিউজের ভবিষ্যদ্বাণী!

কার কার ভাগ্যে জুটছে অস্কার? এ নিয়ে জল্পনা এখন তুঙ্গে। আচ্ছা, বিজয়ীদের নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করলে কেমন হয়? কার মুখে থাকবে শেষ হাসি, আগে থেকে তা অনুমান করে এখানে যে নামগুলোর পক্ষে বলা হচ্ছে, তাদের নিয়ে অনায়াসেই ধরতে পারেন বাজি!

অস্কার দৌড়ে এক ডজন মনোনয়ন নিয়ে এগিয়ে আছে আলেহান্ড্রো গঞ্জালেজ ইনারিতু পরিচালিত ও লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিও অভিনীত ‘দ্য রেভেন্যান্ট’।

বেশিরভাগ বিভাগেই এটি হাসতে পারে শেষ হাসি। এটাই এবারের অস্কারে নিরঙ্কুশ ফেভারিট। অস্কারের অন্যান্য আসরে কে পুরস্কার জেতেন তা নিয়ে থাকে যতো আগ্রহ, অথচ এবার হয়েছে উল্টোটা। ‘দ্য রেভেন্যান্ট’ প্রত্যাশিত পুরস্কারগুলো জেতে কি-না সেদিকেই যেন বাড়তি কৌতূহল!

অবশ্য সেরা চলচ্চিত্র বিভাগে ‘দ্য রেভেন্যান্ট’ই সেরা হতে যাচ্ছে! গোল্ডেন গ্লোব আর বাফটা জেতায় এই সম্ভাবনা শতকরা ৬৪ ভাগ। বাকি সাতটি ছবি এদিক দিয়ে ধারেকাছেও নেই। যদিও ক্রিটিকস চয়েস আর অস্কারের একদিন আগে ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্পিরিট অ্যাওয়ার্ডস জিতে হিসেব পাল্টে যাওয়ার আভাস দিয়ে রেখেছে ‘স্পটলাইট’। তারপরও হাড্ডহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। ‘দ্য রেভেন্যান্ট’ই জিতবে পুরস্কার! সেরা চলচ্চিত্র বিভাগে মনোনীত অন্য ছয়টি ছবি হলো- ‘দ্য বিগ শর্ট’, ‘ব্রিজ অব স্পাইস’, ‘ব্রুকলিন’, ‘ম্যাড ম্যাক্স: ফিউরি রোড’, ‘দ্য মার্শিয়ান’ এবং ‘রুম’।

‘দ্য রেভেন্যান্ট’-এর গল্প কিংবদন্তি অভিযাত্রী হিউ গ্লাসকে ঘিরে। হিংস্র ভালুকের আঘাতে জর্জরিত হওয়ার পরও তার বেঁচে থাকার সংগ্রামই এর মূল বিষয়বস্তু। এ চরিত্রে স্মরণীয় অভিনয়ের জন্য প্রথমবার সেরা অভিনেতা বিভাগে পুরস্কার জিতে যেতে পারেন লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিও। এর মধ্য দিয়ে কেটে যাবে তার অস্কার খরা। এর আগে পাঁচবার মনোনয়ন পেলেও শুন্য হাতে ফিরতে হয়েছে হলিউডের এই সুপারস্টারকে। তবে গোল্ডেন গ্লোব, বাফটা, স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড, ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ড জিতে এবার অন্যদের চেয়ে যোজন যোজন এগিয়ে আছেন তিনি।

এবার ডিক্যাপ্রিওর তেমন কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই বললেই চলে। তার দৌরাত্ম্যে বাকি সবাই ম্লান। তিনিই যে এবার পুরস্কার জিতবেন সে ব্যাপারে নিশ্চিত মনোনীত অন্য অভিনেতাদের মধ্যে এডি রেডমেইন (দ্য ডেনিশ গার্ল) ও ম্যাট ডেমন (দ্য মার্শিয়ান)। এ দু’জনের মতো সেরা অভিনেতা বিভাগে মনোনীত ব্রায়ান ক্র্যানস্টন (ট্রাম্বো) আর মাইকেল ফাসবেন্ডারের (স্টিভ জবস) জন্যও হতাশাই অপেক্ষা করছে সম্ভবত!

ডিক্যাপ্রিওর মতোই এবার অপ্রতিদ্বন্দ্বী ইনারিতু। অস্কারজয়ী এই মেক্সিকান নির্মাতা টানা দ্বিতীয়বারের মতো অস্কারে সেরা পরিচালক হতে যাচ্ছেন। ‘দ্য রেভেন্যান্ট’-এর জন্য এরই মধ্যে গোল্ডেন গ্লোব, বাফটা ও ডিরেক্টরস গিল্ড অব আমেরিকা (ডিজিএ) অ্যাওয়ার্ডস জিতে অস্কারজয়ের সম্ভাবনা উজ্জ্বল করে রেখেছেন তিনি। সেরা পরিচালক বিভাগে আরও মনোনয়ন পাওয়া লেনি আব্রাহামসন (রুম), টম ম্যাককার্থি (স্পটলাইট), অ্যাডাম ম্যাককে (দ্য বিগ শর্ট) ও জর্জ মিলার (ম্যাড ম্যাক্স: ফিউরি রোড) দর্শক সারিতে বসে ইনারিতুর অস্কারজয় দেখার প্রস্তুতি নিয়ে রাখলে ভুল করবেন না!

একই ছবির জন্য সম্ভবত তৃতীয়বারের মতো অস্কাজয়ের রেকর্ড গড়তে যাচ্ছেন চিত্রগ্রাহক ইমানুয়েল লুবেজকি। এর আগে ‘গ্র্যাভিটি’ ও ‘বার্ডম্যান’-এর জন্য এই সম্মান পেয়েছেন তিনি। এসব ছাড়াও শব্দ সম্পাদনা, শব্দমিশ্রণ, সম্পাদনা বিভাগে পুরস্কার জিততে পারে ‘দ্য রেভেন্যান্ট’।

সেরা অভিনেত্রীও প্রায় নিশ্চিত! পুরস্কারটা যে ব্রি লারসনই বাগিয়ে নেবেন তা একরকম অবধারিত! ‘রুম’ ছবিতে পাঁচ বছর বয়সী পুত্রসন্তানকে নিয়ে ছোট একটি ঘরে জিম্মি থাকা মায়ের ভূমিকায় অনবদ্য অভিনয়ের জন্য এরই মধ্যে গোল্ডেন গ্লোব, বাফটা, স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড (এসএজি) অ্যাওয়ার্ডস, ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডসের পর স্পিরিট অ্যাওয়ার্ডসও জিতেছেন তিনি। তাই সেরা অভিনেত্রী বিভাগে মনোনীত অন্যরা অর্থাৎ কেট ব্ল্যানচেট (ক্যারল), জেনিফার লরেন্স (জয়), চার্লোট র‌্যাম্পলিং (ফোর্টি ফাইভ ইয়ারস) ও সাওয়ার্স রোনান (ব্রুকলিন) খালি হাতে বাড়ি ফিরলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

পার্শ্ব-অভিনেত্রী বিভাগে সেরার স্বীকৃতি জিতে যেতে পারেন কেট উইন্সলেট। ‘স্টিভ জবস’ ছবিতে অ্যাপলের সহ-প্রতিষ্ঠাতা স্টিভ জবসের বিশ্বস্ত সহকারী জোয়ানা হাফম্যান চরিত্রে অনবদ্য অভিনয়ের সুবাদে দ্বিতীযবার অস্কার ঘরে নিতে পারেন তিনি। এর আগে ‘দ্য রিডার’ (২০০৮) তাকে এনে দিয়েছিলো সেরা অভিনেত্রীর অস্কার। এবার পার্শ্ব-অভিনেত্রী বিভাগে আরও মনোনীত জেনিফার জেসন লেই (দ্য হেটফুল এইট), রুনি মারা (ক্যারল), র‌্যাচেল ম্যাকঅ্যাডামস (স্পটলাইট) এবং অ্যালিসিয়া ভিক্যান্ডার (দ্য ড্যানিশ গার্ল) সুবিধা করতে পারবেন বলে মনে হচ্ছে না।

তবে সেরা পার্শ্ব-অভিনেতা বিভাগে থাকবে রুদ্ধশ্বাস উত্তেজনা। এতে মনোনয়ন পাওয়া ক্রিশ্চিয়ান বেল (দ্য বিগ শর্ট), টম হার্ডি (দ্য রেভেন্যান্ট), মার্ক রাইল্যান্স (ব্রিজ অব স্পাইস), মার্ক রাফালো (স্পটলাইট) ও সিলভেস্টার স্ট্যালোনের (ক্রিড) মধ্যে যে কেউ পুরস্কার জিততে পারেন। অবশ্য এ ক্ষেত্রে স্ট্যালোন অথবা রাইল্যান্সের সম্ভাবনাই বেশি।

সেরা বিদেশি ভাষার ছবি হবে হাঙ্গেরির ‘সান অব সাউল’, এটা নিশ্চিতই বলা চলে! গোল্ডেন গ্লোব, ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস, ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্পিরিট অ্যাওয়ার্ডস জিতে এগিয়ে আছে লাজলো নেমেসের কান উৎসবে পুরস্কৃত ছবিটি। নাৎসী গণহত্যার প্রেক্ষাপটে বানানো হয়েছে এটি। সেরা বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্র বিভাগে আরও মনোনয়ন পেয়েছে ডেনমার্কের ‘অ্যা ওয়ার’, কলম্বিয়ার ‘এমব্রেস অব দ্য সার্পেন্ট’, ফ্রান্সের ‘মাস্ট্যাং’ ও জর্ডানের ‘থিব’।

সেরা অ্যানিমেটেড ছবি হবে ‘ইনসাইড আউট’, পিট ডক্টরের এ ছবির সঙ্গে কোনোভাবেই পেরে উঠবে না ‘অ্যানোম্যালিসা’, ‘বয় অ্যান্ড দ্য ওয়ার্ল্ড’, ‘শাউন দ্য শিপ মুভি’, ‘হোয়েন ম্যারনি ওয়াজ দেয়ার’। সেরা প্রামাণ্যচিত্র হয়ে যেতে পারে ‘অ্যামি’। প্রয়াত ব্রিটিশ গায়িকা অ্যামি ওয়াইনহাউসের জীবন নিয়ে এটি নির্মাণ করেছেন ভারতীয় বংশোদ্ভুত আসিফ কাপাডিয়া। এ বিভাগে আরও মনোনয়ন পেয়েছে ‘কারটেল ল্যান্ড’, ‘দ্য লুক অব সাইলেন্স’, ‘হোয়াট হ্যাপেন্ড, মিস সিমোন?’ ও ‘উইন্টার অন ফায়ার: ইউক্রেন’স ফাইট ফর ফ্রিডম’।

মৌলিক গান বিভাগে স্যাম স্মিথের গাওয়া জেমস বন্ড সিরিজের ছবি ‘স্পেক্টর’-এর গান ‘রাইটিং’স অন দ্য ওয়াল’ পেতে পারে পুরস্কার। তবে  ‘টিল ইট হ্যাপেনস টু ইউ’ (দ্য হান্টিং গ্রাউন্ড) গানের জন্য লেডি গাগার মুখেও থাকতে পারে শেষ হাসি। মনোনীত অন্য তিনটি গান হলো দ্য উইকেন্ডের ‘আর্নড ইট’ (ফিফটি শেডস অব গ্রে), ‘মান্টা রে’ (রেসিং এক্সটিংশন) এবং ‘সিম্পল সং#থ্রি’ (ইয়ুথ)।  

অস্কার জয়ীদের নিয়ে এসব ভবিষ্যদ্বাণী ফলে কি-না তা জানা যাবে আরও কয়েক ঘণ্টা পর। ২৮ ফেব্রুয়ারি (বাংলাদেশ সময় ২৯ ফেব্রুয়ারি ভোর সাড়ে ৬টা) হলিউড অ্যান্ড হাইল্যান্ড সেন্টারের ডলবি থিয়েটারে শুরু হবে বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে মর্যাদাসম্পন্ন এই পুরস্কারের ৮৮তম আসর।

জমকালো আয়োজনে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা ও পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করবেন কমেডিয়ান-অভিনেতা ক্রিস রক। এই আয়োজন এবিসি নেটওয়ার্কের মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে বিশ্বের ২২৫টিরও বেশি দেশে। বাংলাদেশেও স্টার মুভিজ চ্যানেলে দেখা যাবে অস্কারযজ্ঞ।

বাংলাদেশ সময় : ১৬১৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৫
জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তারার ফুল এর সর্বশেষ