ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

তারার ফুল

‘চলে যেও না’ সৌমি!

জান্নাতুল মাওয়া, প্রদায়ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ৪, ২০১৬
‘চলে যেও না’ সৌমি! ছবি-নূর-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মা-বাবার আদরের বড় মেয়ে। ইচ্ছে ছিলো বড় হয়ে উকিল হবেন।

কিন্তু বেড়ে ওঠার সঙ্গে শোবিজে কাজ করার আগ্রহ জন্মায় তার মধ্যে। একদিন মায়ের উৎসাহে যোগ দিলেন সুন্দরী প্রতিযোগিতায়। প্ল্যাটফর্ম- ‘লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার’। মুকুট জিততে না পারলেও জায়গা করে নেন সেরা দশে। এটা ২০১২ সালের কথা।

সেই আদুরে মেয়ে সেমন্তী সৌমি এখন মানুষের ভালোবাসাও কুড়াচ্ছেন অভিনয়ের মাধ্যমে। নতুন প্রজন্মের জনপ্রিয় মডেল-অভিনেত্রীদের তালিকায় তার নামটা ভালোই ছড়িয়েছে। নাটক আর মিউজিক ভিডিওতে কাজ করেছেন, সামনে বড় পর্দায়ও অভিষেক হতে যাচ্ছে তার। ‘লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার’-এ অংশ নেওয়ার পরের বছর থেকে সৌমি ক্রমে এগোচ্ছেন। ইতিমধ্যে কাজ করে ফেলেছেন নামিদামি ব্র্যান্ডের সঙ্গে। বিলবোর্ডেও দেখা গেছে তার মুখ। একক নাটক, ধারাবাহিক নাটক আর বিজ্ঞাপনে এখন তিনি পরিচিত মুখ।

দুষ্টুমি ও চঞ্চলতায় কেটেছে মিষ্টি মেয়েটির শৈশব-কৈশোর। সাজুগুজুতে কোনো ক্লান্তি ছিলো না তার। সবসময় সাজতেন, চুল বাঁধতেন বিভিন্ন ঢঙে। এ কারণে একদিন শাস্তিও পেতে হয়েছিলো স্কুলের শিক্ষকের কাছে। ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের মেধাবী ছাত্রী ছিলেন সৌমি। তার ইচ্ছা ছিলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার, কিন্তু সেটা আর হয়নি। এখন ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটিতে বিবিএ দ্বিতীয় বর্ষে পড়ছেন। ছোটবেলা থেকে নাচের প্রতি আগ্রহ সৌমির। মনের অজান্তেই আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে নাচতেন। নাচ সেভাবে শেখা না হলেও তালিম নিয়েছেন গানে। পরিবারের চাপেই তাকে গান শিখতে হয়েছে। এ ক্ষেত্রে তাকে সহযোগিতা করেছেন বড় চাচী আরতি ধর। তিনি বাংলাদেশ বেতারের জনপ্রিয় শিল্পী ছিলেন। সৌমি গান শিখেছেন ছায়ানটেও।
সৌমির প্রথম বিজ্ঞাপনচিত্র ছিলো গ্রামীণফোনের। এরপর আরএফএল প্রাণসহ প্রায় ১৫টি বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেছেন তিনি। এ ছাড়া তিনটি মিউজিক ভিডিওতে দেখা গেছে তাকে। এর মধ্যে এলিটা ও মাহাদীর গাওয়া ‘চলে যেও না’র জন্য বেশি সাড়া পাচ্ছেন তিনি।
মডেলিংয়ের পর নাটকেও নিয়মিত হয়ে উঠেছেন সৌমি। তার অভিনীত প্রথম একক নাটক ‘মায়াবতী’। এরপর গিয়াস উদ্দিন সেলিমের ‘গৃহবধূ সুন্দরী’, মাসুদ মহিউদ্দীনের ‘আগুন পোঁকা’, ‘নগর জোনাকি’, ‘নির্বিকার মানুষ’, সাইফুল ইসলাম মান্নুর ১০৪ পর্বের ধারাবাহিক ‘চলো হারিয়ে যাই’সহ প্রায় দুই ডজন নাটকে আভিনয় করেছেন তিনি। সামনে প্রচারে আসবে মাতিয়া বানু শুকুর ধারাবাহিক নাটক ‘আগুন আল্পনা’। গত সপ্তাহে কাজ করেছেন ‘দ্য আনফর্চুনেট জার্নি’ টেলিফিল্মে।
ছোটপর্দার গন্ডি পেরিয়ে অনন্য মামুনের ‘অস্তিত্ব’ ছবির মাধ্যমে রূপালি পর্দায় পথচলা শুরু হলো সৌমির। ছবিটির ‘অন্তর খোঁজে স্বজন’ শিরোনামের একটি গানে সৌমি প্রশংসিত হচ্ছে। এতে তার সহশিল্পী জোভান। একই পরিচালকের কাছ থেকে আগেও একটি ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু নিজেকে প্রস্তুত না ভাবায় তা ফিরিয়ে দেন। এবার আর পিছু হটেননি। কারণ ‘অস্তিত্ব’তে আরিফিন শুভ আর নুসরাত ইমরোজ তিশাও আছেন। তিশার অন্ধভক্ত বলা যায় সৌমিকে! তারা একসঙ্গে একটি নাটকে কাজ করেছেন।

টিভি ও চলচ্চিত্রে কাজের অভিজ্ঞতা কেমন লাগলো? ‘অনেক পার্থক্য। সত্যি বলতে বড় পর্দায় নিয়মিত কাজ করার ইচ্ছা নেই। আবার কখনও প্রস্তাব পেলে গল্প ও চরিত্র খুব বেশি ভালো লাগলে তবেই রাজি হবো। তবে নাটকে নিয়মিত কাজ করে যেতে চাই। ’ ‘আগামীতে ভালো অভিনেত্রী হতে চাই’- এক কথায় উত্তর দিলেন সৌমি। নিজেকে প্রতিষ্ঠিত একজন অভিনেত্রী হিসেবে দেখতে চান তিনি। তাই কাজ করে করে শিখতে চান অভিনয়। এই চলার পথে তার ছায়া হয়ে আছেন তার মা স্বপ্না দাস। ‘আমার আজকের অবস্থানের পেছনে সব অবদান মায়ের। বাবাও (স্বপন দাস) অনেক সহযোগিতা করেছেন। ’

সৌমি অভিনীত চারটি গানের ভিডিও :
* ‘স্বপ্ন আমার’ :
* ‘জীবনের মায়া’ :
* ‘অন্তর খোঁজে স্বজন’ :
* ‘চলে যেও না’ :

বাংলাদেশ সময়: ২০২৭ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৪, ২০১৬
জেএম/জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তারার ফুল এর সর্বশেষ