ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

তারার ফুল

‘তিন দিন আগে জেনেছি আমার ছবি মুক্তি পাচ্ছে’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩৬ ঘণ্টা, মে ১৩, ২০১৬
‘তিন দিন আগে জেনেছি আমার ছবি মুক্তি পাচ্ছে’ ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মডেল ও অভিনেত্রী আলিশা প্রধানের চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় প্রয়াত চাষী নজরুল ইসলামের হাত ধরে, ‘অন্তরঙ্গ’ ছবিটির মাধ্যমে। এরপর আসে তার ‘যদি ভুল হয়’।

শুক্রবার (১৩ মে) রাজধানীসহ দেশের ৫৬টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে এজে রানা পরিচালিত সাইমন ও আলিশার ‘অজান্তে ভালোবাসা’। ক্যারিয়ারের তিন নম্বর ছবি ও অন্যান্য প্রসঙ্গে বাংলানিউজের সঙ্গে খোলামেলা কথা বলেছেন আলিশা। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন জান্নাতুল মাওয়া-

বাংলানিউজ: ‘অজান্তে ভালোবাসা’ ঘিরে প্রত্যাশা কেমন?
আলিশা প্রধান:
বরাবরই নিজের ছবি নিয়ে খুবই উৎসুক থাকি। এবারও এর ব্যতিক্রম ঘটছে না। এ ছবিটি নিয়ে একটু বেশিই আশাবাদী। এখানে আমাকে নতুন লুকে দেখতে পাবে।

বাংলানিউজ: ছবির প্রচারনা একটু কম বলেই মনে হচ্ছে!
আলিশা:
কী আর বলবো, তিন দিন আগে জেনেছি যে, আমার ছবি মুক্তি পাচ্ছে। আমি মনে করি ছবিটি দর্শকপ্রিয়তা না পেলে ছবির সংশ্লিষ্টরাই দায়ী থাকবেন। কারণ এ সময়ে প্রচার-প্রপাগান্ডা একটা ব্যাপার। ছবির কাটতির জন্য এগুলো বেশ দরকারি।

বাংলানিউজ: একই দিনে (১৩ মে) আরও দুটি ছবি মুক্তি পাচ্ছে…
আলিশা: 
অন্য ছবি মুক্তি পেলেও সমস্যা নেই। ছবির কাহিনিতো এক নয়! আমি মনে করি আমার এই ছবিটি ভিন্ন ধাঁচের। দর্শক এটি ভালোভাবেই গ্রহণ করবেন।

বাংলানিউজ:  ছবিতে আপনার চরিত্রটি কেমন?
আলিশা: 
চরিত্রের নাম কাজল। সে মফস্বল শহরের অনেক সহজ-সরল এবং আবেগপ্রবণ একটি মেয়ে। সে বাইরের দুনিয়া সম্পর্কে তেমন জানে না। কাজল নিজের মতো করেই চিন্তাভাবনা করতে পছন্দ করে। কিন্তু একটা সময় আবার আধুনিক হয়ে ওঠারও চেষ্টা করে। ছবিটি অনেকটাই বাস্তবভিত্তিক। একজন মফস্বলের মেয়ের জীবন কিভাবে বেড়ে ওঠে ও সমসাময়িক আরও ঘটনা নিয়ে আমার চরিত্রটি সাজানো হয়েছে।
 
বাংলানিউজ: সাইমনের সঙ্গে কাজ করে কেমন লেগেছে?
আলিশা:
ওর সঙ্গে কাজ করে খুবই ভালো লেগেছে। সাইমন অভিনয়ে অনেকটাই এগিয়ে আছে আমার থেকে। কাজ করতে গিয়ে ওর সাহায্যও পেয়েছি।

বাংলানিউজ:  কাহিনীতে কী ব্যতিক্রমী কিছু আছে?
আলিশা:
‘অজান্তে ভালোবাসা’ মোটামুটি গতানুগতিক ধারার ছবি। তবে যত্ন সহকারে বাস্তবতাকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। কিছু আবেগপ্রবণ ঘটনা দর্শকের মনে দাগ কাটবে। রোমান্টিক ঘরানার ছবি, সঙ্গে কমেডি ও অ্যাকশনও থাকছে।

বাংলানিউজ:  আপনার তৃতীয় ছবি হিসেবে ‘অজান্তে ভালোবাসা’ কোন দিক দিয়ে আলাদা?
আলিশা: 
আমার প্রথম ছবি ‘অন্তরঙ্গ’। এরপর করেছি ‘ভুল যদি হয়’। আমার কাছে মনে হয় আমার তিনটি ছবিই আলাদা। নিজেকে এক একটি ছবিতে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করেছি। আমার পক্ষে তুলনা করা সম্ভব নয়। আগেই বলেছি ছবিটিতে আমি ভিন্নভাবে উপস্থাপন করেছি নিজেকে। আর কখনও মফস্বলের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করিনি। ছবির সংশ্লিষ্টরাও বলছেন যে, আমার অভিনয়ের উন্নতি হয়েছে। এ দিক দিয়ে ছবিটি স্পেশাল বলেই মনে হয়।

বাংলানিউজ:  শুটিংয়ের সময়ের কোনো মজার ঘটনার কথা মনে পড়ে?
আলিশা: 
শুটিংয়ে টিফিন বাটি ভরে খাবার দেওয়া হতো। আমি ভাত তেমন খাই না। আমার একটা ছোট প্লেট ছিলো, ওটাতে ফল খেতাম। আমার খাওয়া দেখে আনোয়ারা আন্টি আর সাইমন খুবই হাসাহাসি করতো। শুটিংয়ের শেষদিন আমরা কেউই বুঝিনি যে, শুটিং শেষ হচ্ছে। আরেকটা ব্যাপার মনে পড়ে, ওইদিনই এফডিসিতে নতুন দুটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলাম। পরে অবশ্য গল্প পছন্দ না হওয়ায় ছেড়েও দিয়েছি।

বাংলানিউজ:  আপনি চলচ্চিত্র বা নাটকে এখনও নিয়মিত নন…
আলিশা: 
আমি সবসময় ভালো গল্প নিয়ে কাজ করতে চাই। এ কারণে যেকোনো কাজে হরহামেশাই লেগে পড়ি না। সময় নিয়ে ভালো কাজ করতে চাই। এছাড়াও ব্যক্তিগত কিছু কারণে এখন ততটা কাজ করছি না।

বাংলানিউজ:  এখনকার ব্যস্ততা কি নিয়ে?
আলিশা: 
পারিবারিক ব্যবসা নিয়েই ব্যস্ত আছি। এছাড়াও জাকির হোসেন রাজুর ‘প্রেমের কাজল’ ছবিতে কাজ করছি। ৫০ ভাগ কাজ শেষ। এ বছরেই ছবিটি মুক্তি পাবে বলে আশা করছি।

* ‘কে তুমি বলোনা’ গানের ভিডিও:

* ‘টিপ টিপ করে’ গানের ভিডিও:

* ‘ভালোবাসা অজান্তে’ গানের ভিডিও:

* ‘এমন সুন্দরী মেয়ে’ গানের ভিডিও:

বাংলাদেশ সময়: ১৪২০ ঘণ্টা, ১৩ মে ২০১৬
জেএম/এসও

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তারার ফুল এর সর্বশেষ