ঢাকা, শুক্রবার, ২০ মাঘ ১৪২৯, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১১ রজব ১৪৪৪

পর্যটন

রুমা-রোয়াংছড়ি-থানচিতে পর্যটকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আবার বাড়ল

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ৮, ২০২২
রুমা-রোয়াংছড়ি-থানচিতে পর্যটকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আবার বাড়ল

বান্দরবান: বান্দরবানের রুমা, রোয়াংছড়ি ও থানচি উপজেলায় পর্যটকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আগামী ১২ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় বান্দরবান জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি স্বাক্ষরিত একটি গণবিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

গত ১০ অক্টোবর থেকে বান্দরবান জেলার রুমা, রোয়াংছড়ি, থানচি এবং আলীকদম উপজেলার সীমান্তবর্তী পাহাড়ি এলাকাগুলোতে যৌথবাহিনীর সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান শুরু হয়। এ অবস্থায় নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে পর্যটকদের ভ্রমণে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করে বান্দরবান জেলা প্রশাসন।
প্রথমে ১৮ অক্টোবর থেকে অনির্দিষ্টকালের নিষেধাজ্ঞা শুরু হয় রুমা ও রোয়াংছড়ি উপজেলায়। পরে ২৩ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত থানচি ও আলীকদম উপজেলায় পর্যটকদের ভ্রমণে আবার নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এরপর ৩০ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞার সময় বাড়ানো হয়। পরে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে ৪ নভেম্বর থেকে ৮ নভেম্বর পর্যন্ত বান্দরবানের চার উপজেলায় ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা বাড়ানো হয়। এরপর সর্বশেষ মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় বান্দরবানের জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি স্বাক্ষরিত একটি গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে চার উপজেলা থেকে আলীকদম উপজেলাকে বাদ দিয়ে রুমা, রোয়াংছড়ি এবং থানচি উপজেলায় পর্যটকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আগামী ১২ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি বাংলানিউজকে জানান, সন্ত্রাস দমনে বান্দরবানের দুর্গম এলাকাগুলোতে যৌথবাহিনীর অভিযান চলছে। এ অবস্থায় এসব উপজেলায় বেড়াতে গিয়ে যাতে দেশি-বিদেশি কোনো পর্যটক সমস্যায় না পড়েন, সেজন্য আগামী ১২ নভেম্বর পর্যন্ত রুমা, রোয়াংছড়ি এবং থানচি উপজেলায় পর্যটকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা বাড়ানো হয়েছে।  

তিনি আরও জানান, বান্দরবানের অন্য চারটি উপজেলা বান্দরবান সদর, লামা, আলীকদম এবং নাইক্ষ্যংছড়িতে  কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। আর এসব উপজেলায় পর্যটকরা অনায়াসে বেড়াতে পারবেন।  

এদিকে ১৮ অক্টোবর থেকে বান্দরবানের চার উপজেলায় নিষেধাজ্ঞা শুরুর পর থেকেই বান্দরবান জেলা পর্যটকশূন্য হয়ে পড়েছে। বেকার সময় কাটাচ্ছেন জেলার হোটেল-মোটেল ও পর্যটকবাহী যানবাহনসহ পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫২ ঘণ্টা, নভেম্বর ৮, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa