ঢাকা, শুক্রবার, ৬ কার্তিক ১৪২৮, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বাণিজ্যমেলা

বাণিজ্যমেলায় এক হাজার টাকায় তিন শাড়ি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০১৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২, ২০১৯
বাণিজ্যমেলায় এক হাজার টাকায় তিন শাড়ি মেলায় শাড়ি দেখছেন একজন ক্রেতারা, ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: বাণিজ্যমেলায় অবিশ্বাস্য অফারে পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন ডিজাইনের শাড়ি। মাত্র এক হাজার টাকা খরচ করলেই আপনি পাবেন তিন তিনটি শাড়ি। ওয়ারেন্টিও রয়েছে তাদের শাড়িতে। সবশ্রেণীর ক্রেতাদের জন্য সাধ্যের মধ্যে এসব শাড়ি নিয়ে বাণিজ্যমেলায় হাজির হয়েছে আল আমিন জামদানি উইভিং ফ্যাক্টরি।

শুক্রবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অনুষ্ঠিত ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে এ তথ্য উঠে এসেছে।

বাণিজ্যমেলার ভিআইপি গেট দিয়ে প্রবেশ করেই হাতের বাম পাশে ভোক্তা অধিদফতর অফিসের সঙ্গে আল আমিন জামদানি উইভিং ফ্যাক্টরি নামে স্টলটি।

এ স্টলে যেকোনো শাড়ি আপনি চাইলে প্যাকেজ ও প্যাকেজ ছাড়া কিনতে পারবেন। তাছাড়া প্রতিটি শাড়িতেই আবার রয়েছে বিশেষ মূল্যছাড়। একটি শাড়ি কিনলে ৪০০ টাকায় পাবেন উন্নত মানের টাঙ্গাইল শাড়ি আর তিনটি শাড়ি একসঙ্গে কিনলে আপনাকে পরিশোধ করতে হবে মাত্র এক হাজার টাকা। এছাড়া স্টলটিতে ৫০ শতাংশ ডিসকাউন্টে পাওয়া যাচ্ছে মনিপুরি শাল। প্রতিটি শাল কিনতে এখন ক্রেতাকে পরিশোধ করতে হবে মাত্র ৪০০ টাকা। অথচ এসব শাল মেলার শুরুর দিকে বিক্রি হয়েছে ৮০০ টাকায়। মেলায় শাড়ি দেখছেন একজন ক্রেতারা, ছবি: শাকিল আহমেদস্টলটিতে রেখা আক্তার এসেছেন তার পছন্দের শাড়ি কিনতে। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, পরিবারের জন্য এর আগে তিনটা কিনেছি। গ্রামের বাড়িতে যাবো তাই আরও কয়েকটা কেনার জন্য আজ আবার আসা।

তিনি বলেন, মোটামুটি টেকসই শাড়ি। সাধ্যের মধ্যে কেনার সুযোগ করে দেওয়ায় এখানে বার বার আসা।

এ বিষয়ে স্টলটির প্রোপাইটর মো. মনিরুজ্জামান বলেন, আমরা মেলা উপলক্ষে কম দামে ক্রেতার কাছে আমাদের পণ্য পৌছে দিতে চায়। আমাদের পণ্য কেনার পর কোনো ধরনের সমস্যা থাকলে রূপগঞ্জ বিসিক জামদানিপল্লি অথবা মেলার মাঠে পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। মেলার শেষ দিন পর্যন্ত আমাদের স্টলে অফার থাকবে দর্শণার্থীর জন্য।

রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) তথ্য অনু্যায়ী, মাসব্যাপী এ মেলা আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি পর্দা নামবে। মেলার গেট ও বিভিন্ন স্টল প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। প্রাপ্ত বয়স্কদের প্রবেশের জন্য টিকিটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০ টাকা এবং অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ২০ টাকা। এবারই প্রথম মেলার টিকিট অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে।

মেলায় প্যাভিলিয়ন, মিনি-প্যাভিলিয়ন, রেস্তোরাঁ ও স্টলের মোট সংখ্যা ৬০৫টি। এর মধ্যে রয়েছে প্যাভিলিয়ন ১১০টি, মিনি-প্যাভিলিয়ন ৮৩টি ও রেস্তোরাঁসহ অন্যান্য স্টল ৪১২টি।

এবার বাংলাদেশ ছাড়াও ২৫টি দেশের ৫২টি প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিচ্ছে। দেশগুলো হলো থাইল্যান্ড, ইরান, তুরস্ক, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, নেপাল, চীন, মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, পাকিস্তান, হংকং, সিঙ্গাপুর, মরিশাস, দক্ষিণ কোরিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, জার্মানি, সুইজারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও জাপান।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৯
ইএআর/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa