ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ জুলাই ২০২২, ০৭ জিলহজ ১৪৪৩

সৌদি আরব

প্রতিবছর ৫ লাখ বাংলাদেশি বিদেশ যাচ্ছেন

মোহাম্মদ আল-আমীন, সৌদি আরব করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১১৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২১, ২০১৫
প্রতিবছর ৫ লাখ বাংলাদেশি বিদেশ যাচ্ছেন ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

রিয়াদ: ২০০৯ সাল থেকে প্রতিবছর গড়ে প্রায় ৫ লাখ বাংলাদেশি বিদেশ যাচ্ছেন। ২০১৫ সালেই নভেম্বর মাস পর্যন্ত ২২টি দেশে ৫ লাখ ১৯ হাজার ৭৩০ জন কর্মী পাঠানো হয়েছে।

২০১৪ সালে শুধু সৌদি আরবেই এসেছেন ৫২ হাজার ৩৯২ জন কর্মী।

আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস পালন উপলক্ষে রোববার (২০ ডিসেম্বর) সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাস কার্যালয়ে এক আলোচনা সভায় দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর সারওয়ার আলম এসব তথ্য জানান।

রেমিটেন্স পাঠানোর দিক থেকে বাংলাদেশের কাছে সৌদি আরব অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, সারা পৃথিবী থেকে যে রেমিটেন্স বাংলাদেশে যায়, তার ২২ শতাংশ যায় সৌদি আরব থেকে।

২০১৪-১৫ অর্থবছরে সৌদি আরব থেকে ৩ হাজার ৩৪৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সমপরিমাণ টাকা রেমিটেন্স হিসাবে বাংলাদেশে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে সারয়ার আলম বলেন, প্রবাসীদের কল্যাণের জন্য বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, প্রবাসীদের নিরাপদ ও মর্যাদাপূর্ণ অভিবাসন নিশ্চিত করতে প্রবাসী কল্যাণ আইন-২০১৩ প্রণয়ন করা হয়েছে। অভিবাসন নীতিমালা-২০১৫ খসড়া অনুমোদন করা হয়েছে। বাংলাদেশ সরকার সহজ শর্তে প্রবাসীদেরর ঋণ দেওয়ার জন্য প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক স্থাপন করেছে। দেশের ৪৭টি ট্রেনিং কেন্দ্রে ৪৮ ধরনের প্রশিক্ষণদানের কাজ করে যাচ্ছে।

মৃত প্রবাসীদের মরদেহ দাফনের জন্য ৩০ হাজার এবং তার পরিবারকে ৩ লাখ টাকা ওয়েজ ওনার্স বোর্ডের মাধ্যমে অনুদান দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ২০১৪ সালে ২ হাজার ৭১৮ জনের জন্য মোট ৯ কোটি ৫১ লাখ ৩০ হাজার টাকা অনুদান দেওয়া হয়েছে। ২০১৪ সালে ৩,০৪৭টি পরিবারকে ৭২ কোটি ২৮ লাখ ৬৯ হাজার ৬০০ টাকা অনুদান দেওয়া হয়।

মৃত প্রবাসীদের বকেয়া বেতন, ক্ষতিপূরণ বাবদ ২০১৪ সালে ৩২৭টি পরিবারকে ৫১ কোটি ৪২ লাখ ৯৮ হাজার ৩০৪ টাকা বিতরণ করা হয়েছে। ২০১৪ সালে ৩২২ জনকে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়েছে ৫৩ লাখ ৫৮ হাজার টাকা- বলেন সারওয়ার আলম।

প্রবাসীদের কল্যাণের জন্য সরকারের পাশাপাশি রিয়াদ দূতাবাস কাজ চালিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ২০১৫ সালের নভেম্বর পর্যন্ত সৌদি শ্রম আদালতের ৩০৩টি মামলায় দূতাবাসের আইন সহায়তাকারী পাঠানো হয়েছে। আর এর মাধ্যমে বকেয়া বেতন ও সার্ভিস বেনিফিট বাবদ ১৫ কোটি ৪৩ লাখ ২৭ হাজার ৪০ টাকা আদায় করা হয়েছে। দু’জন মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির মধ্যে আপিলের মাধ্যমে একজনের সাজা মওকুফ হয়েছে এবং আরেক জনের ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

২০১৫ সালের নভেম্বর পর্যন্ত ২ হাজার ৬৫৪ জনকে রিয়াদ ডিপোটেশন সেন্টার থেকে দূতাবাসের সহায়তায় বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে। ৩৫৪টি মরদেহ দেশে পাঠানো হয়েছে এবং ৮৫টি মরদেহ পবিরারের অনুমতিক্রমে সৌদিতে দাফন করা হয়েছে বলেও জানান সারয়ার আলম।

‘বিশ্বময় অভিবাসন, সমৃদ্ধ দেশ, উৎসবের জীবন’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে এবারের আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস পালিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপ-মিশন প্রধান নজরুল ইসলাম, প্রথম সচিব মিজানুর রহমান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আ ক ম রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে গোলাম মসীহ বলেন, প্রবাসীদের কষ্টার্জিত উপার্জন থেকে দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বেতন নেই। তাই আমাদের সবার আগে প্রবাসীদের দুঃখ-কষ্টগুলো বুঝতে হবে।

দিবসটি উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হয়। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- আলোচনা সভা, মেডিকেল ক্যাম্প ও স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি। কিং ফাহাদ মেডিকেল সিটির ব্যবস্থাপনায় পাঁচ দিনব্যাপী চলবে রক্তদান কর্মসূচি।

বাংলাদেশ সময়: ১১১৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২০, ২০১৫
আরএইচএস/টিআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

সৌদি আরব এর সর্বশেষ

Alexa