ঢাকা, সোমবার, ৩ আষাঢ় ১৪৩১, ১৭ জুন ২০২৪, ০৯ জিলহজ ১৪৪৫

ভারত

সভামঞ্চে চপ্পল ছিঁড়ল মমতার, সেপটিপিন দিয়ে করলেন মেরামত

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৩ ঘণ্টা, মে ১৭, ২০২৪
সভামঞ্চে চপ্পল ছিঁড়ল মমতার, সেপটিপিন দিয়ে করলেন মেরামত

কলকাতা: ভারতের লোকসভা নির্বাচনের পঞ্চম ধাপের ভোটগ্রহণ হবে আগামী ২০ মে। সেদিন দেশটির বিভিন্ন রাজ্যের পাশাপাশি ভোট হবে পশ্চিমবঙ্গের কিছু আসনেও।

আর দিন যত গড়াচ্ছে ততই আক্রমণের ঝাঁঝ আরও বাড়িয়ে চলেছেন মমতা।

শুক্রবার (১৭ মে) দেখা গেল অন্য মমতাকে। মূলত, ইন্দ্রনীল সেনের গান এবং আদিবাসী নৃত্য দিয়ে শেষ হয় ভোট প্রচারণা।

এদিন ঝাড়গ্রামের জনসভা মাত্র শেষ হয়েছে। মঞ্চের সামনে তখনও অনেক ভিড়। মঞ্চে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু হঠাৎ তার চপ্পল ছিঁড়ে যায়। অবশ্য দ্রুত বিষয়টা নিজেই সামাল দেন নেত্রী। নিজেই সেফটিপিন দিয়ে চপ্পল ঠিক করে নেন।

বক্তব্য শেষ হতেই নেত্রী বলেন, এবার আমি ইন্দ্রনীলকে ডেকেছি। আর সঙ্গে আমার আদিবাসী ভাই-বোনদের বলব, ধামসা বাজাতে। পর মূহুর্তেই কথা থামিয়ে, নেত্রী তার নিরপত্তারক্ষীর উদ্দেশে বলেন, ‘ছিঁড়েই তো গেছে..। খালি পায়ে যাব আমি? একটা সেফটিপিন নিয়ে এসো। ’

নিরপত্তারক্ষী অন্য একটি জুতা পরার কথা বলেন, নেত্রী ধমকের সুরে বলেন, ‘না আমি ওই জুতো পড়ি না। আর আমি যা পরি, তা এখানে পাবে না। যাও গিয়ে সেফটিপিন নিয়ে এসো। ’

মঞ্চ থেকেই মমতা বলেন, ইন্দ্রনীল তুমি রেডি হও। আমার চপ্পল ছিঁড়ে গেছে। চপ্পলের কোনো দোষ নেই। ওই জুতোর যা আয়ু, তার থেকে বেশি হেঁটে ফেলেছি। আমি একটা সেফটিপিন লাগিয়ে নিচ্ছি। এরপর পায়ের চপ্পল খুলে হাতে নিয়ে নেন মমতা। নিজেই পড়িয়ে নেন সেফটিপিন। কিন্তু সেফটিপিন দিয়ে চপ্পল ঠিক করতে গিয়ে ঘটে আরেক বিপদ। হাতে ফুটে যায় সেটি। যদিও মঞ্চ থেকে বিষয়টিকে গুরুত্বই দিতে চাননি মুখ্যমন্ত্রী। সেফটিপিন দিয়ে চপ্পল ঠিক করেই আদিবাসীদের সঙ্গে নাচতে দেখা যায় নেত্রীকে।

তবে এদিনও স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে, বিজেপি, সিপিএম, কংগ্রেসকে আক্রমণ করতে থামেননি মমতা। তিনি বলেছেন, আমাদের চোর বলছে, কিন্তু সবথেকে বড় চোর তো বিজেপি। দেশটাকে বেঁচে দিয়েছে। সব টাকা পকেটে ভরেছে। মোদি বাবু তোমার টাকার দাম কত? আর মানুষের জীবনের দাম কত? একবার ভেবে দেখেছো?

মমতার দাবি, বিজেপি মিথ্যা কথা বলছে। ভোটে জিতলেই এনআরসি করে সবার ধর্ম বাতিল করে দেবে। মমতা বলেছেন, যদি এনআরসি, সিএএ না চান, বিজেপিকে ভোট দেবেন না। বিজেপির মতো এত বড় চোর, ডাকাত কোথাও নেই। বিজেপির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪২ ঘণ্টা, মে ১৭, ২০২৪
ভিএস/এসআইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।